ঘোষনা:
নীলফামারীতে অতিরিক্ত দামে চাল বিক্রি করায় ৬ চাল ব্যবসায়ীর জরিমানা

নীলফামারীতে অতিরিক্ত দামে চাল বিক্রি করায় ৬ চাল ব্যবসায়ীর জরিমানা

হারুন উর রশিদ,স্টাফ রিপোর্টার,
অতিরিক্ত দামে চাল বিক্রি করাতে নীলফামারীর ছয় চাল ব্যবসায়ীকে জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। গত বৃহস্পতিবার দুপুরে ভ্রাম্যমান আদালত বড় বাজারে অভিযান চালিয়ে এসব ব্যবসায়ীদের পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করে ভ্রাম্যমান আদালত।
সরেজমিনের গিয়ে ক্রেতারা অভিযোগ করে বলেন,চালের দাম হটাৎ করে বেরে মোটাচাল ৩৩ থেকে ৩৮ টাকা,মিনিগেট চাল ৪৭ টাকা থেকে ৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। ১৫দিন আগে ৫০ কেজি ওজনের ওই চাল প্রতিবস্তা তিন থেকে চারশ টাকা কম দামে বিক্রি হয়েছে। এছাড়াও ৭ দিন আগে স্বর্ণ-৫ জাতের ৫০ কেজির একটি বস্তা ১ হাজার ৬ শত টাকায় বিক্রি হয়। ওই চাল আজকের বাজারে দাম এক হাজার ৯ শত টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে। এজন্য আমাদের সাধ্যের বাইরে অতিরিক্ত দাম দিয়ে চাল কিনতে হচ্ছে।
বাজার ঘুরে বিভিন্ন দোকানে দেখা গেছে চালের মূল্য তালিকা টানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। তাতে মোটা চাল ২৮ থেকে ৩০টাকা, গুটি স্বর্ণ ৩২ থেকে ৩৩ টাকা, ২৮ জাতের চাল ৩৬ থেকে ৩৭ টাকা, মিনিকেট ৪৬ থেকে ৪৭ টাকা,নাজির শাইল ৫৬ থেকে ৫৮ টাকা, কাঠারী সিদ্ধ ও আতপ চাল ৭০ থেকে ৭৫ টাকা, সম্পা কাঠারী ৫২ টাকা, চিনিগুড়া ৮৫ থেকে ৯০ টাকা, স্বর্ণা-৫ ৩৫ থেকে ৩৬ টাকা, বাসুমতি ৫৬ থেকে ৫৮ টাকা দাম উল্লেখ করা হয়েছে। কিন্তু ওই তালিকার চেয়েও বেশি দামে চাল কেনা বেচা হচ্ছে বলে ক্রেতারা জানান।
বিষয়টি নীলফামারী জেলা প্রশাসক মোঃ হাফিজুর রহমান চৌধুরী নজরে আসলে সাথে সাথে ভ্রাম্যমান আদালতের দুইটি টিম মাঠে নামিয়ে দেয়। ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান চালিয়ে গত বৃহস্পতিবার বড় বাজারে নির্ধারিত দামের চেয়ে অতিরিক্ত দাম নেয়ার দায়ে ভোক্তা অধিকার আইন-২০০৯ এর ৩৮ ধারা মতে শ্রী বিক্রম চন্দ্রকে এক হাজার টাকা, মধু কুমার রায়কে পাঁচশত টাকা, রবী চন্দ্র রায়কে পাঁচশত টাকা, অনুকুল চন্দ্র রায়কে পাঁচশত টাকা এবং মধু চন্দ্র রায়কে এক হাজার টাকা জরিমানা করেন ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক মাসুদুর রহমান। অপরদিকে মনা সরকার নামের আরেক চাল ব্যবসায়ীকে দেড় হাজার টাকা জরিমানা করেন ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রোখসানা বেগম।
এবিষয়ে জেলা বাজার মনিটরিং কর্মকর্তা এটিএম এরশাদ আলম খান বলেন, গত এক মাসে প্রতি একশত কেজি চালের বস্তায় তিন থেকে চার শত টাকা দাম বেড়েছে । ধানের দাম বাড়ার কারণে চালের দামও কিছুটা বেড়েছে। আবার করোনা আতঙ্কে অনেকে প্রয়োজনের তুলনায় বেশি কেনার কারণেও দাম কিছুটা বেড়েছে।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST