ঘোষনা:
শিরোনাম :
নীলফামারীতে বঙ্গবন্ধু কাবাডি প্রতিযোগিতা উপলক্ষে আনন্দ শোভাযাত্রা নিখোঁজের তিনদিন পর গৃহবধূর মৃতদেহ মিলল ভুট্টার ক্ষেতে। জলঢাকা হাসপাতাল সড়কটি উন্নয়ন কাজ তদারকি করছেন। পৌরসভার চট্টগ্রামে গৃহবধূ পারভিন আকতার হত্যা মামলায় ৪ আসামীর মৃত্যুদন্ডের আদেশ। স্টামফোর্ড সাংবাদিক ফোরামের সাধারণ সদস্যের তালিকা অনুমোদন ডিমলায় ২টি লাশ উদ্ধার । সৈয়দপুরে বন্ধ রয়েছে ট্রেনের স্ট্যান্ডিং টিকেট ,পকেটে ভারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের । ডোমারে ১০৪ কোটি টাকা ব্যয়ে সড়ক সংস্কার কাজের উদ্বোধন। ডিমলায় ৭ই মার্চ উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভা। কিশোরগঞ্জে জলাশয় সংস্কার পুনঃ খনন কাজের উদ্ধোধন
অসহায়দের জন্য ত্রাণ ফিরিয়ে দিলেন দুই প্রতিবন্ধী

অসহায়দের জন্য ত্রাণ ফিরিয়ে দিলেন দুই প্রতিবন্ধী

গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি,
অসহায়দের জন্য ত্রাণ ফিরিয়ে দিলেন দুই প্রতিবন্ধী। করোনাভাইরাসের কারণে কর্মহীন হয়ে অসহায় দিন কাটাচ্ছেন খেটে খাওয়া নিম্ন আয়ের মানুষ। অনাহারে-অর্ধাহারে থাকা খেটে খাওয়া মানুষগুলো খাবারের দাবিতে রাস্তায়ও নামছেন। এমন সংকটকালে গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার দুই প্রতিবন্ধী ত্রাণ ফিরিয়ে দিয়েছেন। রাগ করে নয়, তাদের চেয়েও অসহায়দের দেয়ার জন্য ত্রাণ ফিরিয়ে দিয়েছেন ওই দুই প্রতিবন্ধী।
খাদ্য সহায়তা হিসেবে বৃহস্পতিবার (১৪ মে) ১০ কেজি চাল , দুই কেজি ডাল, এক কেজি লবণ হাতে পাওয়ার পর তা না নিয়ে অন্যের হাতে তুলে দিয়ে মানববিকতার দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন তারা।
সাঘাটা উপজেলার শিমুল তাইড় গ্রামের দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মোফাজ্জল হোসেন। প্রতিদিন সকালে বোনারপাড়া থেকে সান্তাহারগামী লোকাল ট্রেনে ভিক্ষা করে যা আয় করেন তা দিয়েই চলে সংসার। কখনও কখনও সময় মতো স্টেশনে গিয়ে ট্রেন না পাওয়ায় অনাহারে থাকতে হয়। সরকারের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির কার্ড পাওয়ায় সেই কষ্ট অনেকটা লাঘব হয়েছে তার। নির্দিষ্ট সময়ে চাল খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির চাল পাওয়ায় এখন সংসাবে শান্তি এসেছে।
গাইবান্ধায় লকডাউন চলায় নেই ভিক্ষা করার সুযোগ। তবুও মনে অনেক আনন্দ দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মোফাজ্জল হোসেনের। কারণ কয়েকদিন আগেই খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ৩০ কেজি চাল পেয়েছেন। যা দিয়ে মাসখানেক চলবে তার।
বৃহস্পতিবার বিকেলে জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বী মিয়ার পক্ষ থেকে সাঘাটা উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নাছিরুল আলাম স্বপন তার হাতে ত্রাণ সামগ্রী (১০ কেজি চাল , দুই কেজি ডাল, এক কেজি লবণ ) তুলে দেন। কিন্তু তিনি ত্রাণ সামগ্রী গ্রহণ করেননি।
দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মোফাজ্জল হোসেনে বলেন, সরকার আমাকে ১০ টাকা কেজি মূল্যের ৩০ কেজি চাল দিয়েছে। তা দিয়ে আমার মাসখানেক চলবে। আমি চাই করোনাভাইরাসের কারণে আমার চেয়ে যে বেশি অসহায় সেই এই ত্রাণ গ্রহণ করুক।
তার এই মানবিকতার পরিচয়ে হতবাক ত্রাণ বিতরণকারী টিম। একই কাজ করেছেন সাঘাটা উপজেলার দলদলিয়া গ্রামের এক পা হারানো প্রতিবন্ধী সিরাজ উদ্দিন (৬০)। তিনিও ত্রাণ গ্রহণ করেননি।
প্রতিবন্ধী সিরাজ উদ্দিন বলেন, কয়েকদিন আগে আমি প্রতিবন্ধী ভাতা তুলেছি। ওই টাকায় আমার বেশ কিছু দিন সংসার চলবে। তাই করোনাভাইরাসের কারণে আমার চেয়েও যারা বেশি অসহায়, ঘরে খাবার নেই, তাদের হাতেই ত্রাণ দেয়া দরকার ।
সাঘাটা উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নাছিরুল আলাম স্বপন বলেন, দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক জীবনে এবং বিভিন্ন সময়ের দুর্যোগে মানুষের পাশে দাঁড়াতে গিয়ে হোচট খেয়েছি। অনেকেই একাধিকবার ত্রাণ পাওয়ার পরও ত্রাণের জন্য এসেছেন। অনেক মধ্যবিত্ত যারা চাইলে এক বছর বসে থেকে সংসার চালাতে পারবে তারাও ত্রাণের অপেক্ষায় থাকেন। কিন্তু এই দুই প্রতিবন্ধী চাইলে ত্রাণ গ্রহণ করে প্রয়োজন মতো খেতে পারতো। কিন্তু তারা মানবিকতার সর্বোচ্চ পরিচয় দিয়েছেন। এ থেকে আমাদের শিক্ষা নেয়া উচিত।
এমন ঘটনা শোনার পর কবি ও সাংবাদিক প্রতীক ওমর বলেন, আমাদের এই প্রতিবন্ধীদের থেকে শিক্ষা নেয়া উচিত। লোভের ফাঁদে পা দিয়ে আমরা চাল, ডাল, তেল চুরি করতে কখনও ভাবি না যে এটা গরিবদের হক। আসুন সবাই মিলে এই কনোনাভাইরাস থেকে বাঁচতে নিজেরা সচেতন হই আর খেটে খাওয়া মানুষদের পাশে দাঁড়াই, নিঃস্বার্থে কাজ করি। তাহলে দেশের এই দুর্যোগ মোকাবেলা করা সম্ভব হবে।
জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বী মিয়া বলেন, আমার নির্বাচনী এলাকা সাঘাটা-ফুলছড়ি উপজেলায় যেন কেউ অনাহারে না থাকে সে জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। সরকারি সহযোগিতা ছাড়াও আমার ব্যক্তিগত উদ্যোগে হটলাইন নম্বরের মাধ্যেম খাবার সামগ্রী বিতরণের ব্যবস্থা অব্যহত আছে ।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST