ঘোষনা:
নীলফামারীর ডিমলায় রিরোধপূর্ণ জমিতে স্কুলের বিল্ডিং নির্মাণ কতোটা যৌক্তিক কর্তৃপক্ষের।

নীলফামারীর ডিমলায় রিরোধপূর্ণ জমিতে স্কুলের বিল্ডিং নির্মাণ কতোটা যৌক্তিক কর্তৃপক্ষের।

মোঃ হারুন উর রশিদ,স্টাফ রিপোর্টার,
নীলফামারীর ডিমলায় অসহায় গরীবের ১০ শতক জমিতে জোরপূর্বক বিল্ডিং গড়ছে রামডাঙ্গা ডাক্তার পাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতিসহ স্কুল কর্তৃপক্ষ। রবিবার সকালে স্কুলের কাজে বাধা প্রদান করে ওবায়দলসহ অসহায় দরীদ্র পরিবারটি। কোন বাধা না শুনে জোর করে শ্রমীকদের কাজ করার হুকুম দেন স্কুলের সভাপতি মখখারল ইসলাম। ভূক্তভোগী ওবায়দুল বলেন, রামডাঙ্গা গ্রামে স্কুলের সাথে দীর্ঘদিন থেকে ১০ শতক জমি নিয়ে বিরোধ চলছে। ওবায়দুলসহ তার ভাইদের নিয়ে দীর্ঘ ২৪ বছর ভোগদখল করে আসছিলো। হঠাৎ রবিবার সকালে রামডাঙ্গা ডাক্তার পাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ইট,খোয়া নিয়ে ফেলে কাজ করার প্রস্তুতি গ্রহন করে কর্তৃপক্ষ। বিল্ডিং লেওয়াট দেয়ার জন্য খাল করে রাখে ঠিকাদার। ভোগ দখলি জমিতে স্কুলের বিল্ডিং করার বিষয়ে নীলফামারী কোর্টে একটি মামলা করা হয়েছে। কোর্টে মামলা থাকার পরেও করোনায় কোর্ট বন্ধের সুযোগে স্কুল কর্তৃপক্ষ কাজটি উদ্বোধনের চেস্টা করছে। ওবায়দুল আরও বলেন, কোর্টে আমি রায় পেলে স্কুলের বিল্ডিংয়ের ক্ষতিপুরন কে দিবে। ২৬৮৪ দাগে ৭৫ শতকের মধ্যে ৪৫ এর মধ্যে ১৫ শতক জমির মালিক আমরা ৬ ভাই। আমাদের ওই ১০ শতক জমি দিয়ে বর্ষার পানি নিস্কাশন হয় এবং সেচের পানির ড্রেন ওই জমির উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়।
এলাকার মোঃ আব্দুল কুদ্দুস,পিতাঃ মৃত-খইর উদ্দীন বলেন,আমার জানা মতে ওবায়দুলের পরিবার আনুমানিক ২৪ বছর ধরে ১৫ শতক জমি ভোগদখন করে আসছে। ওই জমিতে সবধরনের ফসল আবাদ করে আসছে। এলাকায় সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতিসহ স্কুল কর্তৃপক্ষ স্কুলের বিল্ডিং করার জন্য ওবায়দুলের জমিসহ বিল্ডিং লেওয়াট দেয়ার জন্য খাল করে রাখে।
রামডাঙ্গা ডাক্তার পাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি মখখারল ইসলাম ক্যামেরায় কথা বলতে না চাইলেও তিনি বলেন, আমাদের স্কুলের জমিতে কাজ করছি ওনি কোর্টে গেছেন কোর্টের রায় নিয়ে আসুক।আমাদের কাজ বন্ধ থাকবে না।
এলাকাবাসির অভিমত অসহায় দরিদ্র পরিবারের রিরোধপূর্ণ জমিতে স্কুলের বিল্ডিং নির্মাণ কতোটা যৌক্তিক কর্তৃপক্ষের।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST