ঘোষনা:
শিরোনাম :
শেখ কামাল জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ পুরস্কার পেয়েছেন নীলফামারীর মেয়ে দিয়া নীলফামারীতে চিকিৎসক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীকে লাঞ্চনার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও স্মারক লিপি প্রদান। নীলফামারীতে জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধিতে চড়ম ভোগান্তিতে সাধারণ মানুষ নীলফামারীর আর্চার দিয়া পাচ্ছেন,শেখ কামাল জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ পুরস্কার জিএম কাদেরের নেতৃত্বে এগিয়ে যাচ্ছে জাতীয় পার্টি বললেন,সংসদ সদস্য আদেল নীলফামারীতে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জমি দখলের অভিযোগ ডিমলায় শিশু নির্যাতন বিরোধী র‌্যালী ও আলোচনা সভা নীলফামারীতে চাঁদা না দেওয়ায় চলাচলের রাস্তা বন্ধ, তিন গ্রামের মানুষের দুর্ভোগে ডিমলায় ব্যবসায়িকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা চট্টগ্রামে শশার বস্তাতেই চোলাই মদ ও আফিমসহ গ্রেপ্তার ১ 
ডোমারে দেবর শাশুড়ীর নির্যাতনে হাসপাতালে কাতরাচ্ছে গৃহবধু।

ডোমারে দেবর শাশুড়ীর নির্যাতনে হাসপাতালে কাতরাচ্ছে গৃহবধু।

রতন কুমার রায়, স্টাফ রিপোর্টার, নীলফামারীর ডোমার উপজেলায় দেবর ও শাশুড়ীর নির্যাতনে গুরুতর আহত হয়ে মিনা রানী (৪০) নামের এক গৃহবধুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হওয়ার অভিযোগ উঠেছে। সোমবার (২০ জুলাই) রাতে এ বিষয়ে মিনা রানীর ছোটভাই চার জনকে আসামী করে ডোমার থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছে।
আসামীরা হলেন, দেবর লক্ষণ চন্দ্র রায় (৩৮), জা জনতা রানী রায় (৩০), শাশুড়ী বজে বালা (৫৮), স্বামী হৃদয় চন্দ্র রায় (৪৫)।
অভিযোগে জানা গেছে, প্রায় ২২ বছর পূর্বে বোড়াগাড়ী ইউনিয়নের নয়ানী বাগডোগড়া এলাকার মৃত দেবেন্দ্র নাথ রায়ের মেয়ে মিনা রানীর সাথে একই ইউনিয়নের বানিয়াপাড়া এলাকার মৃত হরেণ চন্দ্র রায়ের ছেলে হৃদয় চন্দ্র রায়ের সাথে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে মিনা রানীকে শাশুড়ী, দেবর, জা বিভিন্নভাবে নির্যাতন করে। স্বামী হৃদয় কোন প্রতিবাদ না করে, তাদের সঙ্গ দেয়। গত ১৯ জুলাই সকালে মিনা রানী বাড়ির কাজ করার সময় তাকে অশ্লীল ভাষায় গালাগালি ও লাঠি দিয়ে মারধর করে তারা। এলাকাবাসী মিনাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।
এ বিষয়ে অভিযোগ পাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেন ডোমার থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) বিশ্বদেব রায়।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST