ঘোষনা:
শিরোনাম :
নীলফামারীতে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের ৭২ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন। খুলনায় স্বাস্থ্যবিধি না মানায় অর্থদণ্ড ও কারাদণ্ড প্রদান । জলঢাকায় হরিজন পল্লীতে তুরিন আফরোজ কিশোরগঞ্জে ভাতাভোগীদের টাকা হাতিয়েছে প্রতারক চক্রটি জলঢাকায় আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর বৃক্ষ রোপন ও চারাগাছ বিতরণ নীলফামারীতে মুজিববর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে বৃক্ষরোপন করেছে আনসার ওভিডিপি। সৈয়দপুরে রেলের তদন্ত প্রতিবেদন,নিজেকে বাঁচাতে উপজেলা চেয়ারম্যানের সংবাদ সম্মেলন । পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জে করোনা আক্রান্ত মাদ্রাসা শিক্ষিকার মৃত্যু। বাংলাদেশ স্কাউটস এর স্ট্রাটেজিক প্ল্যান ও গ্রোথ মূল্যায়ন ওয়ার্কশপ বরিশালের গৌরনদী উপজেলায় নির্বাচনী সহিংসতায় নিহত ১, আহত ২
সৈয়দপুরে করোনাকালে রেলভূমি দখলবাজরা বেপরোয়া।

সৈয়দপুরে করোনাকালে রেলভূমি দখলবাজরা বেপরোয়া।

সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি,
সৈয়দপুরে দখলবাজরা রেলভূমি দখলে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। তাদের হাত থেকে রেহাই মিলছে না রেল কোয়ার্টারগুলোও। পৌর এলাকার ১৫টি ওয়ার্ডেই দখলবাজির ঘটনা ঘটছে। গত দুই বছরে ভ‚মি খেকোদের বিরুদ্ধে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ কমপক্ষে ৫০টি মামলা করেছে। ওইসব মামলায় রেল কর্তৃপক্ষ তদ্বির না করায় দখলদারিত্বের অভিযুক্তরা আইনের ফাঁক গলিয়ে বের হয়ে আসছে। রাজত্ব কায়েম করতে উঠে পড়ে লেগেছে তারা। সবচেয়ে বেশি দখলবাজির ঘটনা ঘটছে শহরের ৫নং ও ২নং ওয়ার্ডে। দখলের নেপথ্যে থাকছে সরকার দলের ছত্রছায়ায় থাকা নেতা পাতি নেতারা।
সম্প্রতি মুন্সিপাড়া রেল কলোনী এলাকার ডি ব্লকের ৩৭১নং একটি রেল কোয়ার্টার দখল করে বহুতল ভবন নির্মাণ শুরু করেন উত্তরাঞ্চলের ধনাঢ্য ব্যবসায়ী বিউটি সাইকেল স্টোরের মালিক আলতাফ হোসেন। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লেখালেখি শুরু হলে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেয় এবং থানায় মামলা দায়ের করে। একই ধরণের কাজ অব্যাহত রেখেছেন শহরের আরেক শিল্পপতি আহমেদ প্লাইউড কারখানার মালিক আলহাজ্ব আহমেদ হোসেন। শহরের শেরে বাংলা সড়কে (সিনেমা সড়ক) রেলওয়ের ভূমি দখল করে চিরস্থায়ী স্ট্রাকচার (আরসিসি পিলার) তৈরী করে তিনি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান নির্মাণ করছেন। রেললাইনের পাশে প্রায় ১০ হাজার বর্গফুট আয়তনের জায়গা দখল করেই এ অবকাঠামো নির্মাণ অব্যাহত রয়েছে।
অভিযোগ রয়েছে, রেলওয়ের স্থানীয় কর্তৃপক্ষকে অনৈতিকতার বিনিময়ে ম্যানেজ করে এসব অবৈধ অবকাঠামো নির্মাণের কাজ চলছে। রেলওয়ের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানান, দিতে মাঝে মধ্যে রেললাইনের অস্থায়ী ঝুপড়ি ঘরগুলো গুড়িয়ে দেয়া হয়। গরীবদের বলি দিয়ে নিরাপদ করা হয় কোটিপতি দখলবাজদের। এসব দখলবাজদের হাত এত বড় লম্বা যে রেলওয়ের স্থানীয় কর্মকর্তারা তা ছুতেই পারেন না। দখলবাজদের বিরুদ্ধে শহরের বিশিষ্টজনরা সোচ্চার হলে কর্তৃপক্ষ নিজেকে বাঁচাতে মামলা ঠুকে দেয়। পরে তদবিরের অভাবে মামলাগুলো খারিজ হয়ে যায়। আইনের ফাঁক চালিয়ে বেরিয়ে আসে দখলবাজরা। এ কারণে তারা আইনকে সব সময় বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন করে আসছে। বর্তমান চলছে করোনাকাল। আদালতের কার্যক্রম বন্ধ। আর এই সুযোগকেই কাজে লাগিয়ে দখলবাজরা তাদের অনৈতিক কর্মকান্ড অব্যাহত রেখেছে।
রেলওয়ে কোয়ার্টার দখল করে বহুতলা ভবন নির্মাণ বিষয়ে অভিযুক্ত ব্যক্তি বিউটি সাইকেল স্টোরের মালিক আলতাফ হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটি আমার ভাতিজি জামাই ডা. আদনানের মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান।
রেল কোয়ার্টার ও রেলওয়ের জায়গা দখল করে ভবন নির্মাণের অভিযোগ বিষয়ে জানতে কথা হয় রেলওয়ের ভূমি-সম্পদ বিভাগের সহকারী নির্বাহী প্রকৌশলী আহসান আহমেদের সঙ্গে। তিনি বলেন, অপরাধী কেউ পার পাবে না। সবাইকে আইনের আওতায় এনে রেলভূমি ও কোয়ার্টার থেকে অবৈধ দখলদার উচ্ছেদ করা হবে।
সৈয়দপুর রেলভূমি কোয়াটার দখল বাণিজ্য বিষয়ে জানতে চাইলে বিভাগীয় ভূমি-সম্পদ কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. নুরুজ্জামান বলেন, অচিরেই অবৈধ দখলদার উচ্ছেদ করে সরকারি সম্পদ রক্ষা করা হবে।

 





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST