ঘোষনা:
শিরোনাম :
জলঢাকায় অসুস্থ ব্যক্তিদের হাতে চিকিৎসা সহায়তা চেক চট্টগ্রামে সড়কের দু’পাশে ঝুঁকিপূর্ণ ৩ শতাধিক ঘর উচ্ছেদ করেছে প্রশাসন । ডোমারে ট্রাক্টরের চাপায় বৃদ্ধার মৃত্যু ভোলায় ৩ সন্তানের জননীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ ঢালিউডের জনপ্রিয় নায়িকাকে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার প্রধান আসামিসহ ৫ জন গ্রেফতার মানিকগঞ্জে বিদেশগামী প্রশিক্ষণার্থীদের মাঝে সনদপত্র বিতরন। টেকনাফের নাফ নদীর তীর থেকে আরো দুই রোহিঙ্গার লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ ডোমার গোমনাতী সঃ প্রাঃ বিদ্যাঃ প্রধান শিক্ষক দুলু আর নেই নীলফামারীর ডোমারে পুকুর খননকালে পাওয়া গেল কৃষ্ণ মূর্তি। পঞ্চগড় পৌর মার্কেট নির্মাণ কাজের উদ্বোধন
২০ থেকে ২১ জনের দল যাবে শ্রীলঙ্কায় টেস্ট খেলতে।

২০ থেকে ২১ জনের দল যাবে শ্রীলঙ্কায় টেস্ট খেলতে।

স্পোর্টস ডেস্ক,দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে ঢাকায় পা রাখার পর ডোমিঙ্গোর সঙ্গে কথা বলে ৮-৯ সেপ্টেম্বরের মধ্যে দল চূড়ান্ত করে খেলোয়াড় তালিকা বোর্ডে জমা দেয়ার কথা বলেছিলেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু ।

কিন্তু ফ্লাইট বিলম্বের কারণে হেড কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো আর ফিল্ডিং কোচ রায়ান কুকের ঢাকায় আসতে দেরি হয়েছে। তাদের রাজধানীতে পৌঁছানোর তারিখ দুই দফা বদলেছে। প্রথমে কথা ছিল ওই দুই প্রোটিয়া ২ সেপ্টেম্বর এসে পৌঁছাবেন। শেষ পর্যন্ত টাইগার হেড কোচ ও ফিল্ডিং কোচ এসে পৌঁছেছেন ৬ সেপ্টেম্বর রাতে।

পরের দিন ১৭ ক্রিকেটারের সাথে তাদের করোনা টেস্ট করা হয়। যার রিপোর্ট মিলেছে গতকাল মঙ্গলবার, ৮ সেপ্টেম্বর। দুই প্রোটিয়া কোচ করোনা নেগেটিভ হওয়ার পরই নির্বাচকরা তাদের সাথে বৈঠকে বসেন। এবং গতকালই (মঙ্গলবার) সোনারগাঁওয়ের প্যান প্যাসিফিক হোটেলে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু, অপর নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমন এবং হেড কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো শ্রীলঙ্কা সফরের টেস্ট স্কোয়াড নিয়ে একান্তে কথা বলেন।

একটা অনানুষ্ঠানিক বৈঠক হয় সোনারগাঁ হোটেলে। প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু সোনারগাঁ হোটেলে গিয়ে প্রধান নির্বাচকের সাথে দল নিয়ে আলাপ আলোচনার কথা স্বীকারের পাশাপাশি জানান, দল নিয়ে বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান পাপনও তার সাথে একান্তে অনেক্ষণ কথা বলেছেন। শ্রীলঙ্কা সফরে নির্বাচক, টিম ম্যানেজমেন্ট কেমন দল চান, তা জানতে চান বোর্ড সভাপতি।

সব মিলিয়ে গতকাল ৮ সেপ্টেম্বর মূলতঃ আলাপ-আলোচনায় কেটেছে। আজ বুধবার দল চূড়ান্ত করতেই বিসিবিতে নিজেদের রুমে বসেছিলেন দুই নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু আর হাবিবুল বাশার সুমন। সেখানে দল চূড়ান্ত হয়েছে কি না, নিশ্চিত নয়।

দু’রকমের কথা শোনা যাচ্ছে। প্রধান নির্বাচক জানিয়েছেন, ‘আমরা আজ সন্ধ্যার আগেই খেলোয়াড় তালিকা বোর্ডে জমা দিয়ে দিয়েছি।’

নান্নু আরও জানান ২০ থেকে ২১ জনের দল যাবে শ্রীলঙ্কা। আবার অন্য পক্ষের দাবি, ‘দল আজও চূড়ান্ত হয়নি। অধিনায়ক মুমিনুল হকের মতামত আগে নেয়া থাকলেও হেড কোচ ডোমিঙ্গোর মতামত আর বোর্ড সভাপতির প্রেসক্রিপশন নিয়ে আগামীকাল বৃহস্পতিবার আবার বসবেন নির্বাচকরা, তখনই দল চূড়ান্ত হবে।’

এখন এর কোনটা ঠিক? তা বৃহস্পতিবারই বোঝা যাবে। এদিকে দল সাজানোর সময় যত ঘনিয়ে আসছে, ততই প্রশ্ন জাগছে, ‘কোন ২০-২১ জন যাবেন শ্রীলঙ্কা? কারা তারা? আগেই জানিয়ে রাখা ভাল, এ বছর ফেব্রুয়ারিতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ঘরের মাঠে টেস্ট সিরিজে বাংলাদেশ দল ছিল ১৬ জনের।

সেই ১৬ জন ছিলেন- মুমিনুল হক (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, সাইফ হাসান, নাজমুল হোসেন শান্ত, লিটন দাস, মুশফিকুর রহীম, মোহাম্মদ মিঠুন, তাইজুল ইসলাম, মেহেদি হাসান মিরাজ, নাঈম হাসান, আবু জায়েদ রাহি, মোস্তাফিজুর রহমান, ইবাদত হোসেন, তাসকিন আহমেদ, হাসান মাহমুদ, ইয়াসির আলি রাব্বি।

এখন এবার সেই ১৬ জনই থাকবেন এবং সাথে আরও ৪-৫ জন যুক্ত হবেন? নাকি ওই ১৬ জনের কেউ বাদ যাবেন এবং নতুন করে কাউকে নেয়া হবে এবং সাথে আরও চার থেকে পাঁচজনের অন্তর্ভুক্তি ঘটবে? তা নিয়েই রাজ্যের জল্পনা-কল্পনা।

এদিকে ওই দলে থাকা সাইফ হাসান আবার করোনা পজিটিভ, তাই তাকে নিয়ে একটি প্রশ্ন উঠেছে। তবে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নুর কথায় সে সংশয় কেটে গেছে। তিনি বলেছেন, ‘সাইফ পজিটিভ আর বাকিরা নেগেটিভ মানেই যে ওই বহরের সবাই শ্রীলঙ্কা যেতে পারবে, এমন নয়। আরও তিন-তিনবার টেস্ট হবে। শেষ দিকের টেস্টগুলি বেশি গুরুত্বপূর্ণ। কাজেই এখন কেউ কোভিড-১৯ মানেই সে বাদ আর বাকিরা নিশ্চিত এমন ভাবার কোনই কারণ নেই। সামনে আরও টেস্ট আছে, তার রিপোর্টও অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

এদিকে ওই ১৬ জনের বহরে অভিজ্ঞ মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের জায়গা হয়নি। আর আহত সাদমান ইসলামও ছিলেন না। এবার শ্রীলঙ্কা যাবার আগে অস্ট্রেলিয়া থেকে অপারেশন করে অনেকটাই সুস্থ সাদমান। অভিজ্ঞ রিয়াদ আর তরুণ সাদমান শেরে বাংলায় চুটিয়ে অনুশীলন করেছেন । তাদের বিবেচনায় আনা হবে কি না? তা নিয়েও নানা গুঞ্জন।

পাশাপাশি সৌম্য সরকার আর পেসার আল আমিন হোসেনকে নিয়েও আছে নানা কানাঘুষা। একই সাথে আরেক পেসার রুবেল হোসেনও আছেন আলোচনায়। এমনকি তরুণ লেগস্পিনার আমিনুল ইসলাম বিপ্লবকে নিয়েও আলোচনা আছে।

যেহেতু তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ এবং একাধিক প্রস্তুতি ম্যাচও আছে। তাই বাড়তি বোলার, বিশেষ করে পেসারের অন্তর্ভুক্তির সম্ভাবনা খুব বেশি। তাই ধরা হচ্ছে স্কোয়াডে অন্তত ৬ জন পেসার (আবু জায়েদ রাহি, ইবাদত হোসেন, মোস্তাফিজুর রহমান, তাসকিন আহমেদ, হাসান মাহমুদ আর আল আমিন হোসেনের সম্ভাবনাই বেশি) রাখা হবে।

সাথে তিন স্পেশালিস্ট স্পিনার তাইজুল, নাঈম হাসান ও মেহেদি হাসান মিরাজের থাকাও একরকম নিশ্চিত। এছাড়া ব্যাটসম্যান কাম উইকেটরক্ষক কোটায় আরও তিনজন নিশ্চিত- মুশফিকুর রহীম, লিটন দাস ও মোহাম্মদ মিঠুন। ১২ জন এখানেই হয়ে গেল। এর বাইরে তামিম, সাইফ, সাদমান, সৌম্য, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, ইয়াসির আলি, রুবেল হোসেন এবং আমিনুল বিপ্লবের কারা শেষ পর্যন্ত দলে জায়গা পান, সেটাই এখন দেখার।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST