ঘোষনা:
শিরোনাম :
জলঢাকায় অসুস্থ ব্যক্তিদের হাতে চিকিৎসা সহায়তা চেক চট্টগ্রামে সড়কের দু’পাশে ঝুঁকিপূর্ণ ৩ শতাধিক ঘর উচ্ছেদ করেছে প্রশাসন । ডোমারে ট্রাক্টরের চাপায় বৃদ্ধার মৃত্যু ভোলায় ৩ সন্তানের জননীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ ঢালিউডের জনপ্রিয় নায়িকাকে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার প্রধান আসামিসহ ৫ জন গ্রেফতার মানিকগঞ্জে বিদেশগামী প্রশিক্ষণার্থীদের মাঝে সনদপত্র বিতরন। টেকনাফের নাফ নদীর তীর থেকে আরো দুই রোহিঙ্গার লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ ডোমার গোমনাতী সঃ প্রাঃ বিদ্যাঃ প্রধান শিক্ষক দুলু আর নেই নীলফামারীর ডোমারে পুকুর খননকালে পাওয়া গেল কৃষ্ণ মূর্তি। পঞ্চগড় পৌর মার্কেট নির্মাণ কাজের উদ্বোধন
কিশোরগঞ্জে আমন ক্ষেতে মাজরা পোকার আক্রমণে ফলন বিপর্যয়ের আশঙ্কা।

কিশোরগঞ্জে আমন ক্ষেতে মাজরা পোকার আক্রমণে ফলন বিপর্যয়ের আশঙ্কা।

 

মোঃ মিজানুর রহমান কিশোরগঞ্জ (নীলফামারী) প্রতিনিধি,
আমন চাষে এবারও উৎকণ্ঠায় রয়েছে নীলফামারী কিশোরগঞ্জ উপজেলার কৃষকেরা । বিভিন্ন বিস্তীর্ণ জনপদের আমন ধান ক্ষেতে দেখা দিয়েছে পাতা মোড়ানো, খোল পঁচা, মাজরা পোকার আক্রমণ, ফলন বিপর্যয়ের আশংকায় দিশেহারা কৃষক। সময়মতো কৃষিজাত হওয়ায় জমিতে আগেভাগেই আমন চারা রোপণ করেছিলেন স্থানীয় কৃষকেরা। চারা রোপণের পর প্রয়োজনীয় সার প্রয়োগ সহ আগাছা পরিষ্কার করা হয়েছে। মাঝে মধ্যে বৃষ্টি হওয়ায় জমিতে পানি লেগে থাকায় সবুজ ক্ষেত গাঢ় সবুজ রঙ ধারণ করেছে। কিন্তু পাতা মোড়ানো, খোল পঁচা ও মাজরা পোকার আক্রমণে দিনে দিনে ফসল ব্যাপক ক্ষতির শিকার হচ্ছে। বিভিন্ন ধরনের কীটনাশক ব্যবহার করেও থামানো যাচ্ছে না আক্রমণ। ভিততাকো,,নাটিভো একাধিকবার প্রতিষেধক ওষুধ প্রয়োগ করেও ফল না হওয়ার আশঙ্কায় দিশেহারা হয়ে পড়েছেন কৃষকরা। কৃষকরা জানান, উপজেলা কৃষি অফিস থেকে পাওয়া যাচ্ছেনা কৃষি সেবা কৃষকের ভরসা হয়ে দাঁড়িয়েছে কীটনাশক ব্যবসায়ীগণ। চলতি বছর এ উপজেলায় ১৪ হাজার ৯শত ২০হেক্টর জমিতে আমনের চাষ হয়েছে। উপজেলার মাগুরা ইউনিয়নের উত্তর সিঙ্গেরগাড়ী পূর্ব পাড়ার গ্রামের আমন চাষি রাহেদুল হক বলেন, কিছুদিনের মধ্যেই দেখা দিবে ধানের শীষ। ইতোমধ্য ধানে মাঝে দেখা দিয়েছে খোলপঁচা,পাতা মোড়ানোসহ মাজরা পোকার আক্রমণ। নানা ওষুধ দিয়ে কোন কাজ হচ্ছে না। সদর ইউনিয়নের বিএসসি পাড়ার আমন চাষী জিকরুল হক বলেন, জমিতে পোকা দমনে দুবার কীটনাশক স্প্রে করেছেন। কিন্ত কাজ হয় না, একটু কমছে আবার দেখা দিচ্ছে।
উপজেলার মাগুরা ইউনিয়নের উত্তর সিঙ্গেরগাড়ী জুম্মাপাড়া গ্রামের আনারুল, আসাদুল্লাহ মিষ্টু সহ একাধিক কৃষক বলছেন, এবার মাঠজুড়ে ধানের চেহারা ভালো ছিল। আর কদিন পরেই ধানের শীষ ফুটবে। ভালো ফলন আশা করছিলেন তারা। কিন্তু হঠাৎ খোলপঁচা, পাতা মোড়ানো ও মাজরা পোকার আক্রমণে দিশেহারা হয়ে পড়ছেন তারা। তাদের অভিযোগ মাঠে মাঠে এ অবস্থা বিরাজ করলেও কৃষি বিভাগের লোকজন কোনো খোঁজ খবর নিচ্ছে না। নিজেরাই বাজার থেকে প্রতিষেধক ওষুধ কিনে প্রয়োগ করছেন, কিন্তু ফল হচ্ছে না। এ অবস্থায় ফলন বিপর্যয়ের আশংকা করছেন কৃষকরা। এ ব্যাপারে উপজেলা কৃষি অফিসার মোঃ হাবিবুর রহমান বলেন, করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার কারণে মাঠ পর্যায়ে কোন খোঁজখবর নিতে পারিনি। আমন ক্ষেতে মাজরা পোকার আক্রমণের বিষয়টি আমার জানা ছিলনা। এখন আমি খোঁজখবর নিচ্ছি।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST