ঘোষনা:
শিরোনাম :
পদ্মা সেতু হওয়ায় বিএনপি উদভ্রান্তের মত কথা বলছে,চট্টগ্রামে তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী বানভাসি মানুষের পাসে লিয়ন চৌধুরী নীলফামারীতে মধ্য রাতে মাতলামি; প্রতিবাদ করায় গুরুতর রগকাটা জখম, থানায় এজাহার। নীলফামারীতে এক মাস ব্যাপি পুনাক তাঁত শিল্প ও পণ্য মেলার শুভ উদ্বোধন পাহাড়ে সন্ত্রাস দমনে এপিবিএন’র টহল শুরু শিক্ষক হত্যা ও কলেজ অধ্যক্ষকে নির্যাতনের প্রতিবাদে নীলফামারীতে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান। আওয়ামীলীগ হিন্দুদের দল, ভারতের চর এসব ট্যাবলেটে এখন আর কাজ হয়না,তথ্যমন্ত্রী হলি আর্টিজানে জঙ্গি হামলায় ৬ বছর পূর্তিতে,কূটনীতিকরা নিহতদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা বিকেএসপিতে ব্লু খেতাব অর্জন,দেশসেরা নারী আরচার নীলফামারীর দিয়া সিদ্দিকী জাতি হিসেবে আমাদের সক্ষমতাকে সবসময় অবমূল্যায়ন করে সমালোচকরা বললেন,প্রধানমন্ত্রী
জলঢাকায় দলিল লেখক সমিতির চাঁদা আদায়ের অভিযোগ।

জলঢাকায় দলিল লেখক সমিতির চাঁদা আদায়ের অভিযোগ।

জলঢাকা (নীলফামারী) প্রতিনিধি,
নীলফামারীর জলঢাকায় সাব-রেজিস্ট্রী অফিসে দলিল লেখক সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে অভিনব পন্থায় চাঁদা আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। একটি বিশেষ সীল ব্যবহার করে প্রতিটি দলিল সম্পাদনে সমিতির নামে অতিরিক্ত দুই হাজার করে টাকা আদায় করা হচ্ছে জমি গ্রহিতার কাছ থেকে। এমন অনিয়মের বিরুদ্ধে সোমবার দুপুর থেকে বিকাল পর্যন্ত সাব-রেজিস্ট্রারের কার্যালয়ের সামনে প্রতিবাদ সভা করেছেন দলিল লেখক আনিছুর রহমান ও মোস্তাফিজুর রহমানসহ ভুক্তভোগীরা। প্রতিবাদ সভায় দলিল লেখক আনিছুর রহমান অভিযোগ করে বলেন,“সাব-রেজিস্ট্রার কার্যালয়ে দলিল সম্পাদন করতে গেলে দলিল লেখক সমিতির সভাপতি আহমেদ হোসেন ভেন্ডার ও সাধারণ সম্পাদক আমজাদ হোসেন সরকার সরকারি নির্ধারিত ফি এর বাইরে প্রতিটি দলিলে অতিরিক্ত দুই হাজার করে টাকা চাঁদা আদায় করছেন। গত ৩ অক্টোবর থেকে এ কার্যক্রম শুরু হলে বিপাকে পড়েন জমি ক্রেতা বিক্রেতারা।”তিনি বলেন,“চাঁদার টাকা পরিশোধে দলিলের পেছন পাতায় একটি বিশেষ সীল ব্যবহার করছেন তারা। সীল না থাকা দলিল সম্পাদন না করে ফিরিয়ে দিচ্ছেন তারা। চাঁদা পরিশোধ না করে গত ১২ই অক্টোবর আমি একটি দলিল নিয়ে সাব-রেজিস্ট্রারের কামরায় গেলে হাত থেকে কেঁড়ে নিয়ে আমার দলিল খানা ছিড়ে ফেলেন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের লোকজন। এসময় তাদের নেতৃত্বে আমাকে মারধর করে কার্যালয় থেকে বের করে দেওয়া হয়। এ ঘটনায় সভাপতি- সাধারণ সম্পাদকসহ আট জনের নামে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছি। দলিল লেখক সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান বলেন,“তারা ঐক্যের নামে দলিল লেখকদেরকে সমিতির সদস্য করে ওই চাঁদাবাজী শুরু করেছেন। এতে গড়ে প্রতিদিন এক লাখ টাকার চাঁদা আদায় করছেন। সর্বসাধারণের স্বার্থে আমরা ওই চাঁদাবাজী বন্ধ চাই।”সাব-রেজিস্ট্রারের কার্যালয়ে আসা জমি ক্রেতা-বিক্রেতার সঙ্গে কথা বলে অতিরিক্ত ওই দুই হাজার টাকা আদায়ের সত্যতা পাওয়া যায়। এসময় উপজেলার কৈমারী ইউনিয়নের যদুনাথ গ্রামের জমি ক্রেতা আশেদুল ইসলাম (৫০) বলেন,“১১ শতক জমি কিনেছি আমার স্ত্রী মনোয়ারা বেগমের নামে। ৯০ হাজার টাকার দলিল করতে দলিল লেখকরা খরচ চাচ্ছেন ১২ হাজার টাকা। গত মাসে এ পরিমান টাকার দলিল সম্পাদন অনেকেই করেছিলেন। তাদের কম খরচ হয়েছে। দলিল লেখক ঝড়িয়া চন্দ্র রায় বলেন, অতিরিক্ত এ ২ হাজার টাকা ছাড়াও আরও ১৩ শ টাকা অফিস সহকারীর হাতে দিতে হয়। অভিযোগের বিষয়ে জলঢাকা সাব-রেজিস্ট্রী অফিসের দলিল লেখক সমিতির সভাপতি আহমেদ হোসেন ভেন্ডার উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, দলিল লেখক সমিতির নামে কোন চাঁদা বা অতিরিক্ত টাকা নেয়া হয় না। দলিলের পিছনে বিশেষ সীল ব্যবহার প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটা আমাদের ঐক্যের সীল। এবিষয়ে সাব রেজিস্ট্রার মনীষা রায় বলেন, অতিরিক্ত টাকা নেয়ার বিষয়ে কোন গ্রাহক আমার কাছে অভিযোগ করেননি। তার টেবিলে থাকা দলিলগুলোর পিছনে বিশেষ সীল প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এগুলো কিসের সীল আমার জানা নেই? আপনারা দলিল লেখক বা ভেন্ডারদের সাথে কথা বলেন। অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে জলঢাকা থানার ওসি মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, তদন্ত চলছে।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST