ঘোষনা:
শিরোনাম :
পদ্মা সেতু হওয়ায় বিএনপি উদভ্রান্তের মত কথা বলছে,চট্টগ্রামে তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী বানভাসি মানুষের পাসে লিয়ন চৌধুরী নীলফামারীতে মধ্য রাতে মাতলামি; প্রতিবাদ করায় গুরুতর রগকাটা জখম, থানায় এজাহার। নীলফামারীতে এক মাস ব্যাপি পুনাক তাঁত শিল্প ও পণ্য মেলার শুভ উদ্বোধন পাহাড়ে সন্ত্রাস দমনে এপিবিএন’র টহল শুরু শিক্ষক হত্যা ও কলেজ অধ্যক্ষকে নির্যাতনের প্রতিবাদে নীলফামারীতে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান। আওয়ামীলীগ হিন্দুদের দল, ভারতের চর এসব ট্যাবলেটে এখন আর কাজ হয়না,তথ্যমন্ত্রী হলি আর্টিজানে জঙ্গি হামলায় ৬ বছর পূর্তিতে,কূটনীতিকরা নিহতদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা বিকেএসপিতে ব্লু খেতাব অর্জন,দেশসেরা নারী আরচার নীলফামারীর দিয়া সিদ্দিকী জাতি হিসেবে আমাদের সক্ষমতাকে সবসময় অবমূল্যায়ন করে সমালোচকরা বললেন,প্রধানমন্ত্রী
নীলফামারীতে মাদ্রাসা সভাপতির পকেট ভাড়ি, টাকার অভাবে সংস্কার হচ্ছেনা মাদ্রাসা।

নীলফামারীতে মাদ্রাসা সভাপতির পকেট ভাড়ি, টাকার অভাবে সংস্কার হচ্ছেনা মাদ্রাসা।

মোঃ হারুন উর রশিদ, স্টাফ রিপোর্টার,
নীলফামারীতে টাকার অভাবে সংস্কার হচ্ছেনা পূর্ব গুড়গুড়ি ইসলামীয়া মাদ্রাসা। সংস্কারের অভাবে শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে এলাকার শিক্ষার্থীরা। অথচ মাদ্রাসার উন্নয়ন ফান্ডের এক লক্ষ আশি হাজার টাকা জমা আছে মাদ্রাসার সভাপতি মোঃ সফিয়ার রহমানের কাছে। এমনটাই অভিযোগ সদর উপজেলার কুন্দপুকুর ইউনিয়নে পূর্ব গুড়গুড়ি (সুটিপাড়া) এলাকাবাসীর।

সরেজমিনে গেলে দেখা যায় মাদ্রাসাটির করুন অবস্থার বাস্তব চিত্র। এলাকাবাসী সূত্রে যানা যায়, ১৫ শতক জমির উপর মাদ্রাসাটি নির্মাণ হয় ১৯৯১ সালে। মাদ্রাসার নামে জমি আছে প্রায় ১১ বিঘা। প্রতিবছর এই ১১ বিঘা জমি থেকে আয় হয় প্রায় এক লক্ষ টাকা।

এলাকার দেলোয়ার হোসেন, ইয়ামুদ্দীন, হামিদুল ইসলাম ,মোস্তাকিন অভিযোগ করে বলেন, প্রতি বছর এই মাদ্রাসায় শিক্ষা নেয় এলাকার গরিব মেধাবী শিক্ষার্থীরা। কিন্তু মোঃ সফিয়ার রহমান সভাপতি হওয়ার পর থেকে গত কয়েক বছর ধরে মাদ্রাসার কোন উন্নয়ন হয়নি। আস্তে আস্তে মাদ্রাসাটি বিলিনের পথে কোমল মতি শিশু শিক্ষার্থীরা পরেছে বিপাকে। অথচ সভাপতি মাদ্রাসার উন্নয়ন ফান্ডের টাকা ও প্রতি বছরে জমির আয়ের অংশের কোন টাকাই মাদ্রাসার উন্নয়ন কাজে ব্যবহার না করে তার নিজের আখের গুছাচ্ছেন।

মাদ্রাসার উন্নয়নের কাজ না করে টাকা হাতে রাখার বিষয়ে জানতে চাইলে মাদ্রাসার সভাপতি সফিয়ার রহমান বলেন, আমার কাছে যে টাকা আছে তা দিয়ে কাজ শেষ হবে না। মাদ্রাসার অবৈধ কেশিয়ারের কাছে ফান্ডের টাকা জমা থাকায় কাজ শুরু করা সম্ভব হচ্ছেনা বলে কৌশলে অনিয়মের বিষয়টি এড়িয়ে যান।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST