ঘোষনা:
শিরোনাম :
সীতাকুণ্ডে পুকুর থেকে যুবকের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।স্ত্রীকে আটক। চট্টগ্রামে করোনায় প্রাণ গেল এক চিকিৎসকের। কক্সবাজার সৈকতে আরও একটি মৃত তিমি ভেসে এসেছে । সাতক্ষীরায় করোনা মোকাবেলায় জেলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে মাস্ক বিতরণ। সাতক্ষীরায় দিনে ঘরে ঢুকে বন্ধুকে জবাই করে হত্যা ।হত্যাকারী পলাতক। খুলনা পিসিআর ল্যাবে ৬১ জন করোনা পজেটিভ শনাক্ত। নীলফামারীতে বাংলাদেশ সাম্যবাদী দলের মাস্ক বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন। কিশোরগঞ্জে বালুবোঝাই ট্রাক্টরের ধাক্কায় ইজিবাইকের ৫ যাত্রী আহত। নীলফামারীতে বুড়িখোড়া নদীর কোল ঘেঁষে সৌন্দর্য্যে মন্ডিত আলোকিত আলোর বাজার। দিনাজপুরে ‍‍‍‍‍” মানুষ মানুষের জন্য ” সংগঠনের উদ্দ্যোগে মাস্ক বিতরণ
গ্রিনল্যান্ড এক্সপিডিশন কর্মসূচিতে যোগ দিচ্ছে প্রতিমন্ত্রী পলক।

গ্রিনল্যান্ড এক্সপিডিশন কর্মসূচিতে যোগ দিচ্ছে প্রতিমন্ত্রী পলক।

সামাউন আলী,সিংড়া(নাটোর)প্রতিনিধি ,
বিশ্বে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব ও ভবিষ্যৎ করনীয় ঠিক করতে গ্রিনল্যান্ডের ইলুলিসাত শহরে আগামী ২৩ মে শুরু হতে যাচ্ছে ৫ দিন ব্যাপী ‘ওয়াইজিএল ইম্প্যাক্ট এক্সপিডিশন গ্রিনল্যান্ড’ নামক কর্মসূচি। বাংলাদেশ কম কার্বন উৎপাদনকারী দেশ হওয়া সত্ত্বেও, সারা বিশ্বে ইন্ডিস্ট্রিয়ালাইজেশনের প্রভাব ও বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধির কারণে জলবায়ুর যে পরিবর্তন সাধিত হচ্ছে- তার প্রভাব বাংলাদেশ ইতোমধ্যেই প্রত্যক্ষ করতে শুরু করেছে। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে বাংলাদেশে ঝুঁকি ও করনীয় সম্পর্কে বিশ্বের তরুণ নেতৃবৃন্দের কাছে বিভিন্ন দিক তুলে ধরার পাশাপাশি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেত্রিত্তে জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় বাংলাদেশ এর সাফল্য তুলে ধরবেন পলক।
সুইজারল্যান্ড ভিত্তিক ইয়ং গ্লোবাল লিডার ফোরামের উদ্যোগে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে নির্বাচিত ২০ জন তরুণ নেতার উপস্থিতিতে গ্রিনল্যান্ডের ইলুলিসাত শহরে এবারের এই জলবায়ু কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হচ্ছে। জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবগুলো বিশ্বের তরুণ নেতারা যাতে খুব কাছ থেকেই প্রত্যক্ষ করতে পারেন এবং ভবিষ্যৎ করণীয় ঠিক করতে পারেন, একারণে কর্মসূচির ভেন্যু হিসেবে এবার গ্রিনল্যান্ডকেই বেছে নেওয়া হয়েছে। ২৩ মে থেকে শুরু হয়ে ‘ওয়াইজিএল ইম্প্যাক্ট এক্সপিডিশন গ্রিনল্যান্ড’ নামক কর্মসূচিটি ২৭ মে পর্যন্ত চলবে।
উক্ত সম্মেলনে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্বকারী জুনাইদ আহমেদ পলক তাঁর বক্তব্যের মাধ্যমে বিশ্বের তরুণ নেতৃবৃন্দের কাছে বাংলাদেশের জলবায়ু পরিস্থিতি ও বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তনের নেতিবাচক প্রভাবের কথা তুলে ধরবেন। জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব সম্পর্কে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শিতার ফলে সরকারি অর্থায়নে ২০০৯ সালেই ‘বাংলাদেশ ক্লাইমেট চেঞ্জ স্ট্র্যাটেজিক এন্ড একশন প্লান’ তৈরি ও অনুমোদনের কথাও তুলে ধরবেন তিনি। তিনি মনে করেন, এই প্লানের মাধ্যমে জলবায়ু পরিবর্তন সম্পর্কে বাংলাদেশের কি করতে হবে এবং বিশ্বের কি করনীয় তা ২০০৯ সালেই বাংলাদেশ বিশ্বের কাছে তুলে ধরতে পেরেছে। জলবায়ু পরিবর্তনের এই স্ট্রাটেজিক এ্যাকশান প্লানটি পরিপূর্ণরূপে বাস্তবায়ন করার জন্য তিনি বিশ্ব নেতৃবৃন্দের সহযোগিতাও কামনা করবেন। একই সাথে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির মাধ্যমে জলবায়ু পরিবর্তনের সমস্যাগুলোকে মোকাবেলা করার বিষয়েও বক্তব্য রাখবেন তিনি।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST