ঘোষনা:
শিরোনাম :
নীলফামারীতে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে দ্বীপ্তমান মানবউন্নয়ন ও সমাজকল্যাণ সংস্থার আলোচনা সভা ও মাক্স বিতরন সাতক্ষীরা এক প্রকৌশলীর বাড়িতে দূর্ধর্ষ ডাকাতি, ১৫ ভরি স্বর্ণালংকার ও নগদ টাকাসহ বিভিন্ন মালামাল লুট চট্টগ্রাম গণহত্যা দিবস আজ দেশে স্বাধীনতা রক্ষা ও গণতন্ত্র সমুন্নত রাখতে কাজ করার জন্য পুলিশ সদস্যদের প্রতি আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অনশন ভাঙাতে শিক্ষক সমিতির দাবি কুড়িগ্রাম সদর থানার উপ-পরিদর্শকের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরওয়ানা রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে মৃত্যু ৩ চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্ত ৯৮৯ জন,সংক্রমণের হার ৩৯ দশমিক ৯৫ বিজিবি ঠাকুরগাঁও সেক্টর আন্তঃ ব্যাটালিয়ন ভলিবল প্রতিযোগিতা-২০২২ এর উদ্বোধন নীলফামারীতে গ্রামের বিভিন্ন রাস্তাঘাট উন্নয়নে মাটি কাটার কাজ করছে,১৩ হাজার ৫৫১ জন শ্রমিক
নীলফামারীতে হুইল চেয়ারে জীবন পঙ্গু যুবকের,সেইসাথে কিডনী জটিলতায় সন্তান।

নীলফামারীতে হুইল চেয়ারে জীবন পঙ্গু যুবকের,সেইসাথে কিডনী জটিলতায় সন্তান।

এস আই মানিক, নিলফামারী,
নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলার ০৬ নং শিমুলবাড়ী ইউনিয়নের রাজবাড়ী গ্রামের অমূল্য চন্দ্র রায়ের ১ম পুত্র খিতেন ।২০১৮ সালে রাজবাড়ী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বিল্ডিংয়ের ছাদে উঠতে গিয়ে পা পিছলে পড়ে গিয়ে মেরুদণ্ড ভেঙে যায়। পড়ে রংপুর ডক্টর্স ক্লিনিকে মেরুদণ্ড অপারেশন করালেও মিলেনী স্বাভাবিক জীবন।

সেই থেকে পঙ্গু খিতেন।অপারেশন করার পড়ে শরীরের নিচের অর্ধেক অংশ হয়ে যায় অবস। নিজের কেনা হুইল চেয়ারই যেন তার জীবনে বেঁচে থাকার ঘরবাড়ী।নিজের চিকিৎসা চালাতেই হিমসিম তার উপরে আবার ৯ বছরের সন্তানের কিডনী জটিলতা।

৮০ বছর ছুঁই ছুঁই বাবা-মা, স্ত্রী সন্তান সহ ৭ জনের পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী ব্যক্তি ছিলেন খিতেন ।ছেলে পঙ্গু হওয়ায় শেষ বয়সে দিশেহারা হয়ে পরেছে বৃদ্ধা মা বাবা ।

এলাকাবাসী সূত্রে, দুর্ঘটনার পর চলাফেরা তো দুরের কথা বসে থাকতে গেলেও ক্ষিতেনকে লাগে ওষুধ। তিন বছরে পিতা পুত্রের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসার করতে ব্যয় হয়েছে প্রায় ৫ লক্ষাধিক টাকা। বর্তমানে ডক্টর্স ক্লিনিকের কর্তব্যরত ডাক্তারের পরামর্শে পিতা পুত্র মিলে প্রতি মাসে ওষুধ কিনতে লাগে ৮ থেকে ১০ হাজার টাকা। এই টাকা জোগাড় করতে, করতে দিশেহারা হয়ে পড়ছে পরিবারটি। খিতেন পিতার প্রথম ছেলে হলেও দ্বিতীয় ছেলে থাকেন ভারতে। খিতেনের বড় ছেলে ও মে শিমুলবাড়ী এস, সি উচ্চ বিদ্যালয়ে ৭ম শ্রেনীতে পড়াশোনা করে এবং ছোট ছেলে কিডনীতে রোগ নিয়ে রাজবাড়ী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে তৃতীয় শ্রেণীতে পড়াশোনা করে ।

ক্ষিতেন ও তার পরিবারের সুচিকিৎসার জন্য আর্থিক সহায়তা চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন ওই পরিবার সহ এলাকাবাসীর।

ক্ষিতেনের পরিবারের পাশে থেকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেয়ার কথা বলেন জলঢাকা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহবুব হাসান।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST