ঘোষনা:
শিরোনাম :
নীলফামারীতে পানি উন্নয়ন বোর্ডের স্বেচ্ছাচারিতায় ১২১৭ একর জমির ফসল নষ্ট, এলাকাবাসীর মানববন্ধন। গাজীপুরের কোনাবাড়ীর পোশাক কারখানা শ্রমিকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার সৈয়দপুরে বিনামূল্যে অক্সিজেন সেবায় ‘ইটস হিউম্যানিটি’ গৌরবোজ্জল সংগ্রাম ও সাফল্যের ২৭ বছর পূর্তি, আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ কিশোরগঞ্জে স্বেচ্ছাসেবক লীগের ২৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জয় এর ৫০তম জন্মবার্ষিকীতে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের ডাক টিকেট, উদ্বোধন। কক্সবাজারের উখিয়ায় ভারী বর্ষনে পাহাড় ধসে ৫ ও পানিতে ১ শিশু নিহত সময় ও নম্বর কমিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে নেয়া হবে,এসএসসি ও এইচএসসি বা সমমানের পরীক্ষা ডোমারে করোনা সংক্রমণরোধে মাস্ক বিতরণ চট্টগ্রামে লকডাউনের চতুর্থদিনে মহানগরীতে গাড়ি চলাচল বেড়েছে
ডোমারে করোনা স্বেচ্ছাসেবকদের ছবি এঁকে উপহার

ডোমারে করোনা স্বেচ্ছাসেবকদের ছবি এঁকে উপহার

ডোমারে করোনা স্বেচ্ছাসেবকদের ছবি এঁকে উপহার

রতন কুমার রায়,স্টাফ রিপোর্টার,
করোনা মহামারী প্রতিরোধে স্বেচ্ছাসেবকদের উৎসাহ দিতে তাদের ছবি এঁকে উপহার দেওয়া হচ্ছে। নীলফামারীর ডোমার উপজেলার বামুনিয়া ইউনিয়নের পাটোয়ারীপাড়া এলাকার রনি সরকার নামে এক তরুন মনের মাধুরি মিশিয়ে স্বেচ্ছাসেবকদের ছবি আঁকছেন। সেই ছবি আবার তাদের উপহারও দিচ্ছেন। রনির ব্যতিক্রম এ উদ্দ্যোগে করোনা প্রতিরোধ স্বেচ্ছাসেবকরা আরো বেশি উৎসাহিত হচ্ছেন। রনি ওই এলাকার মো. রুবেল সরকারের ছেলে।
রনি সরকার বলেন, ছোট বেলা হতেই আমার ছবি আঁকতে খুব ভালো লাগতো। ছবি আঁকাও চলছিল। তবে কিছুদিন পরেই কুসংস্কার ও সামাজিক গোঁড়ামি বাঁধা হয়ে দেখা দেয় আমার সামনে। এলাকায় অনেকে ছবি আঁকতে নিষেধ করে। তবে আমি পিছপা হই নাই। যখন পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণিতে বৃত্তি পাই। সেই সময় হতে বাঁধা কিছুটা কেঁটে যায়। আর এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় গোল্ডেন জিপিএ ৫ পাই, তখন সবাই খুব খুশি হয়। আর এ পর্যন্ত দেশী ও বিদেশি কমপক্ষে ১০ টি সংস্থা থেকে পুরস্কার পেয়েছি।
রনি আরো বলেন, করোনা মহামারীতে অনেকই মানুষকে দেখছি জীবন বাঁজি রেখে স্বেচ্ছাশ্রম দিচ্ছে। তখন ভাবলাম এইচএসসি পরীক্ষার রেজাল্ট পেয়েছি। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরিক্ষা কবে হবে ঠিক নাই। তাই সিন্ধান্ত নিলাম, যারা স্বেচ্ছাসেবক, তাদের উৎসাহ জোগাতে তাদের ছবি এঁকে উপহার দেবো। তাই বাড়ির পাশে নিরিবিলি স্থানে ছবি আঁকি। আর স্বেচ্ছাসেবকদের তা উপহার দেই। রনি বলেন, আমি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা বিভাগে পড়তে চাই। আর বড় মানের চিত্রশিল্পি হতে চাই।
রনির বাবা মো. রুবেল সরকার বলেন, আমার ছেলে যখন ছবি আঁকা শুরু করেছিল, ওই সময় এলাকার অনেকেই আমাকে রনির ছবি আঁকা বন্ধ করতে বলেছিল। তবে আমার ছেলে পড়াশোনার পাশাপাশি খুব সুন্দর ছবি আঁকে। রনি পরিক্ষায় খুব ভালো রেজাল্ট করায়, আর ছবি আঁকতে কেউ বাঁধা দেয় নাই। করোনা প্রতিরোধে স্বেচ্ছাশ্রমে যারা কাজ করে, রনি তাদের ছবি এঁকে উপহার দেয়। এটা আমারও খুব ভালো লাগে।
স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ভীষণ এর প্রতিষ্ঠাতা ও নীলফামারী সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওয়াদুদ রহমান জানান, সরকারের পাশাপাশি আমরা স্বেচ্ছাসেবকরা করোনা মহামারী প্রতিরোধে কাজ করছি। আর রনি স্বেচ্ছাসেবকদের ছবি এঁকে উপহার দিচ্ছে। উপহার পেতে সবার ভালো লাগে। রনির এ উপহার আমাদের স্বেচ্ছাশ্রম কাজে আরো উৎসাহ জুগিয়েছে।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST