ঘোষনা:
শিরোনাম :
জাদুঘর স্থাপনের প্রস্তাবিত জমি পরিদর্শন করেছে,প্রধানমন্ত্রীর মূখ্য সচিব চট্টগ্রামে চোরাইকৃত ৭ টি সিএনজি উদ্ধারসহ ৬ জনকে আটক করেছে র্যা ব। সাতক্ষীরায় ১০ম শ্রেণির স্কুল ছাত্রীর রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার কুন্দপুকুর ইউনিয়নকে উন্নয়নের ধারায় ফিরিয়ে আনতে লালু সমর্থক গ্রূপের সাথে মতবিনিময়। সাতক্ষীরার কলারোয়ার সোনাবাড়ীয়া ইউনিয়নে পুনরায় ভোট গ্রহণের দাবীতে মানববন্ধন জলঢাকায় ৫২ বোতল ফেন্সিডিল সহ দুই মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার নীলফামারীতে ইউনিয়ন উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির দ্বি-মাসিক সভা অনুষ্ঠিত।  সিলেটের ব্যাংকের বুথে লুটপাটের ঘটনায় ৪ জনের রিমান্ড মঞ্জুর ময়মনসিংহ মেডিকেলে করোনায় ২ উপসর্গ নিয়ে ২ , মৃত্যু ৪ চট্টগ্রামে করোনায় মৃত্যু ৩,আক্রান্ত ১৬৫
গানির সন্তানরা যুক্তরাষ্ট্রে বিলাসবহুল জীবনযাপনে ব্যস্ত

গানির সন্তানরা যুক্তরাষ্ট্রে বিলাসবহুল জীবনযাপনে ব্যস্ত

আন্তর্জাতিক নিউজ,
তালেবানের পুনরুত্থানের সময় দেশের সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা না করেই দেশত্যাগ করেন আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ গানি। তিনি এখন সংযুক্ত আরব আমিরাতে রয়েছেন। অন্যদিকে, দেশের মানুষ যখন ভয় আর আতংকে ভিটেমাটি ছাড়ছে তখন যুক্তরাষ্ট্রে বিলাসবহুল জীবনযাপনে ব্যস্ত আশরাফ গানির সন্তানরা।

আশরাফ গানির কন্যা মরিয়াম গানি বসবাস করছেন ব্রুকলিনের একটি বিলাসবহুল বাড়িতে। গত সপ্তাহে খবরের পাতায় চাওড় হয় যে, আশরাফ গানির পুত্র তারেক গানি ১ দশমিক ২ মিলিয়ন ডলার মূল্যের ওয়াশিংটন ডিসির একটি বাড়িতে থাকছেন।

তারেক গানি স্টেন্ট লুইসে ওয়াশিংটন ইউনিভার্সিটির একজন অর্থনীতির প্রফেসর এবং তার স্ত্রী এলিজাবেথ পিয়ারসন এলিজাবেথ ওয়ারেনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক পদে আছেন। যদিও এসব বিষয় নিয়ে কথা বলতে নারাজ সাবেক প্রেসিডেন্ট গানি।

১৫ আগস্ট সশস্ত্র গোষ্ঠী তালেবান কাবুল দখলের পর এক প্রকার অজুহাত দিয়ে দেশ ত্যাগ করেন গানি। এসময় তিনি চারটি গাড়ি ও একটি হেলিকপ্টার ভর্তি নগদ অর্থ নিয়ে পালিয়ে যান বলে দাবি করে কাবুলের রুশ দূতাবাস।

দেশের যখন কঠিন পরিস্থিতি তখন এভাবে প্রেসিডেন্টের পালিয়ে যাওয়াকে অনেক আফগান ‘কাপুরুষ’ মন্তব্য করে তীব্র সমালোচনা করছেন। যদিও গত বুধবার সংযুক্ত আরব আমিরাতে তার অবস্থান নিশ্চিত হওয়ার পর ফেসবুকে একটি ভিডিওবার্তা প্রকাশ করেন গানি। এতে পশ্চিমাসমর্থিত প্রেসিডেন্ট আবারও দাবি করেন, রক্তপাত এড়াতেই তিনি কাবুল ছেড়েছেন। পাশাপাশি, বিপুল অর্থ নিয়ে পালানোর অভিযোগও অস্বীকারও করেন এ নেতা।

এদিকে, ভয় আর আতংকে আফগান ছাড়তে কাবুল বিমানবন্দরে হাজার হাজার মানুষ। রোববার পর্যন্ত বিমানবন্দরে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির মধ্যে মারা গেছেন ২০ জন।

সূত্র: নিউইয়র্ক পোস্ট





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST