ঘোষনা:
শিরোনাম :
সত্য বলার সৎ সাহসেই গঠিত হবে স্মার্ট বাংলাদেশ: অ্যাড. মমতাজুল শঙ্কামুক্ত নন অভিনেত্রী শারমিন আওয়ামী লীগ শাসনামলে দেশের ব্যাপক উন্নয়ন বিবেচনায় নিতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর নীলফামারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের ক্লাস প্রমোশন না দেয়ার প্রতিবাদে মানববন্ধন নীলফামারীতে সড়ক দূর্ঘটনায় আহত ৮ জন নীলফামারীতে পুলিশ সার্ভিস এসোসিয়েশনের শীতবস্ত্র বিতরণ কিশোরগঞ্জে বিদায়ী মাঘে শীতের হানা কিশোরগঞ্জে অপহরণের দায়ে পেশ ইমাম আটক-ছাত্রী উদ্ধার বিপদে পুলিশকে পাশে পেয়ে মানুষ যেন স্বস্তি বোধ করে তা নিশ্চিত করতে হবে : প্রধানমন্ত্রী উন্নয়নের বদলে শেখ হাসিনাকে ভোট উপহার দিন: চাঁপাইনবাবগঞ্জে নানক
দ্বীপ্তমান মানবউন্নয়ন ও সমাজকল্যান সংস্থার অান্তর্জাতিক নারী দিবসের অালোচনা সভা।

দ্বীপ্তমান মানবউন্নয়ন ও সমাজকল্যান সংস্থার অান্তর্জাতিক নারী দিবসের অালোচনা সভা।

নীলফামারী প্রতিনিধি: দ্বীপ্তমান মানবউন্নয়ন ও সমাজকল্যান সংস্থার অায়োজনে অান্তর্জাতিক নারী দিবসের অালোচনা সভা অনুষ্টিত হয়েছে।

অাজ শুক্রবার (৮ই মার্চ )পুরাতন ষ্টেশন রোড়, ডালপট্রি, নীলফামারীতে দ্বীপ্তমান মানবউন্নয়ন ও সমাজকল্যান সংস্থার অায়োজনে অান্তর্জাতিক নারী দিবসের অালোচনা সভা অনুষ্টিত হয়েছে।

দ্বীপ্তমান মানবউন্নয়ন ও সমাজকল্যান সংস্থার সভাপতি অাব্দুল মোমিনের সভাপতিত্বে ও মোস্তাফিজুর রহমান বাবুর সঞ্চালনায় উপস্থিত ছিলেন,সহ-সভাপতি সৈয়দ অারফিন জুই মুদ্রা, সাংগঠনিক সম্পাদক অা: মমিত, অর্থ সম্পাদক হাফিজুল ইসলাম, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক রুবেল ইসলাম, কার্যনির্বাহী সদস্য বৈশাখী অাক্তার, নাজির হোসাইন প্রমুখ।

দ্বীপ্তমান মানবউন্নয়ন ও সমাজকল্যান সংস্থার সভাপতি অাব্দুল মোমিন সভাপতিত্বের বক্তব্যে বলেন, নারীদের ওপর হওয়া বৈষম্য, নির্যাতনের বিরুদ্ধে করা প্রতিবাদে নারীদের জাগ্রত করাই নারী দিবস পালনের মূল লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য। ১৮৫৭ সালে ৮ মার্চ নিউইয়র্কের সুতা কারখানায় কর্মরত নারীশ্রমিকরা সড়কে আন্দোলনে নামতে বাধ্য হন । সেদিন বেতন বৈষম্য, নির্দিষ্ট কর্মঘন্টা আর কাজের বৈরি পরিবেশের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে নারীরা একজোট হলে তাদের উপর কারখানা মালিকেরা আর মদদপুষ্ট প্রশাসন দমন-পীড়ন চালায়। প্রায় অর্ধশতাব্দী পর ১৯০৮ সালে জার্মানীতে এ দিনটি স্মরণে প্রথম নারী সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় । এরপর ১৯১০ সালে ডেনমার্কের কোপেনহেগেনে অনুষ্ঠিত হয় দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক নারী সম্মেলন। ১৭টি দেশ থেকে প্রায় ১০০ জন নারী প্রতিনিধি এতে অংশ নিয়েছিলেন।এ সম্মেলনেই প্রথমবারের মত ক্লারা প্রতি বছরের ৮ মার্চকে ‘আন্তর্জাতিক নারী দিবস’ হিসেবে পালন করার প্রস্তাব দিয়েছিলেন। এ প্রস্তাবে সাড়া দিয়ে ১৯১৪ সাল থেকে বেশ কয়েকটি দেশে ৮ মার্চ নারী দিবস পালিত হয়। বাংলাদেশে ১৯৭১ সাল থেকেই ৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে। ১৯৭৫ সালে জাতিসংঘ ৮ মার্চ দিনটিকে আন্তর্জাতিক নারী দিবস হিসেবে পালনের আহ্বান করলে এরপর থেকে সারা বিশ্বব্যাপী দিনটি পালিত হয়ে আসছে। এছাড়াও তিনি বলেন, বাল্যবিবাহ, ইভটিজিং, নারী নির্যাতন, যৌতুক মুক্ত সমাজ গঠনের জন্য অামাদের সকলকে একত্রিত ভাবে কাজ করতে হবে।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST