ঘোষনা:
শিরোনাম :
ডিমলায় শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম এর ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন ডিমলায় অটো মালিক চালক সমবায় সমিতি লি: এর সাধারন সভা পশ্চিম তীরে ইসরাইলি সৈন্যের গুলিতে ৫ ফিলিস্তিনি নিহত যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণাঞ্চলে ভয়াবহ বজ্রঝড়, টর্নেডোর সতর্কতা পহেলা ডিসেম্বরকে ‘মুক্তিযোদ্ধা দিবস’ ঘোষণার দাবি সেক্টর কমান্ডারস ফোরামের প্রধানমন্ত্রীর জনসভা ৪ ডিসেম্বর: চট্টগ্রাম নগরজুড়ে থাকবে সাড়ে সাত হাজার পুলিশ নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ হার এড়াতে মাঠে নামছে ভারত আউটডোর টিকিট কেটে চোখের চিকিৎসা নিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এ্যান্ড কলেজে এসএসসিতে শতভাগ পাশ, ক্যাম্পাস ঘিরে উল্লাস। নীলফামারীতে দুই দিন ব্যাপি তথ্য মেলার উদ্বোধন
ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়ার নবীনগে দেশের অন্যতম মূর্তি তৈরী ও বিকিকিনি

ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়ার নবীনগে দেশের অন্যতম মূর্তি তৈরী ও বিকিকিনি

 ভৈরব প্রতিনিধি,

ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগর উপজেলার ভোলাচং গ্রাম। উপজেলার অন্য ৮/১০টি গ্রামের মতো সাধারণ গ্রাম হলেও, প্রায় দুইশত বছর ধরে গ্রামটি আলাদা নিজস্বতা নিয়ে আছে। কুমিল্লা, হবিগঞ্জ, নেত্রকোণা, কিশোরগঞ্জ, নরসিংদী, নারায়ণগঞ্জ জেলার সনাতন হিন্দু সম্প্রদায়ের কাছে ”ভোলাচং”গ্রামটির পরিচিতি ভিন্ন এক কারণে। আর সেটি হলো, এখানকার পাল সম্প্রদায়ের তৈরী বিভিন্ন দেব-দেবীর মূর্তি তৈরী আর বেচা-কেনার জন্য। আসন্ন শারদীয় দূর্গা পূঁজাকে সামনে রেখে এখানে প্রায় ৪ শতাধিক দূর্গা প্রতিমা তৈরী হয়েছে। তবে মহাজনের কাছ থেকে আনা ঋণের টাকায় গড়ে তোলা মূর্তি বিক্রি করে পুজি উঠে আসবে কীনা তাই নিয়ে চিন্তিত প্রতিমা শিল্পীরা। এ অবস্থায় সরকারের কাছে সুদ মুক্ত ঋণ চেয়েছেন তারা।

ভোলাচং গ্রামের পাল পাড়ার প্রায় শতাধিক মূর্তি তৈরীর কারিগর সারা বছরই বিভিন্ন দেব-দেবীর মনোমুগ্ধকর মূর্তি তৈরীতে ব্যস্ত থাকলেও, প্রতি বছর হিন্দু সম্প্রদায়ের সর্ববৃহৎ পূঁজা শারদীয় দূর্গা পূঁজার সময় এদের ব্যস্ততা বেড়ে যায় বহুলাংশে। এ সময় স্থানীয় কারিগররা দেশের বিভিন্ন এলাকার অর্ডারী মূর্তি তৈরী করতে হিমসিম খায় বলে এ সময় দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে এদের সাথে এসে যোগ দেয় আরো শতাধিক কারিগর।
একটি দূর্গা মূর্তি তৈরীতে একাধারে ৪/৫জন কারিগর কাজ করে থাকেন। এক সাথে একটি মূর্তি তৈরীর বিভিন্ন অংশের কাজ করে থাকেন বিভিন্ন জন। এ ক্ষেত্রে একটি বিশেষ সুবিধে হলো, পরিবারের ছেলে/বুড়ো, মহিলা/শিশু সবে মিলে-মিশে কাজ করা যায়। সাধারণত একেকটি মূর্তি আকার ও প্রকার ভেদে পছন্দ অনুযায়ী ২০ হাজার থেকে ১লক্ষ টাকায়ও মূর্তি বেচা/কেনা হয়ে থাকে। প্রতি দূর্গোৎসবে ভোলাচং পাল পাড়ায় ৩’শতাধিক মূর্তি বিক্রি হয়ে থাকে। তবে এবছর পূজার সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় মূর্তি তৈরী হচ্ছে ৪ ’শতাধিক। দূর্গোৎসবের প্রায় তিন মাস আগে থেকে ভোলাচং পাল পাড়ায় মূর্তি তৈরী শুরু হয়। মূর্তি তৈরী ও বিক্রি চলে পূজা শুরুর আগের দিন পর্যন্ত। দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে দূর্গা প্রতিমা কিনতে আসেন অনেকেই। এক স্থানে আনেক প্রতিমা তৈরী হয় বলে পচন্দ মত পাওয়া যায়। তা ছাড়া দামে কম ও মান সম্পন্ন প্রতিমা তৈরী হয় এখানে। যোগাযোগ ব্যাবস্থা ভাল বিধায় অনেকই আসেন এখানে।

কারখানার মালিকরা স্বপন পাল জানান, সাম্প্রতিক বছরগুলিতে মূর্তি তৈরীর আনুসাঙ্গিক জিনিসপত্রের মূল্য অত্যন্ত বেড়ে যাওয়ায় এবং মূর্তি তৈরীর সিজনে নিজেদের পূঁজি স্বল্পতার দরুন, এলাকার বিভিন্ন মহাজনদের কাছ থেকে চড়া সুদে ঋণ গ্রহন করতে হয় বলে, বিক্রি শেষে তাদের লভ্যাংশ তেমন থাকেনা। এ ক্ষেত্রে তারা প্রতি সিজনে সহজ শর্তে ব্যাংক ঋণ পেলে নিজেদের আর্থিক স্বচ্ছলতা ফিরে পেতো বলে জানালেন।

কারখানার মালিকরা স্বপন পাল জানান, এবছর দূর্গাপুজার সংখ্যা বাড়ায় মূর্তি তৈরী গতবারের চেয়ে বেশী তৈরী করেছি। এবছর আমার কারখানায় ৩৫টি মূর্তি তৈরী হয়েছে। কিন্তু বিক্রয় করা সময় যে লাভ হবে তার বেশীর ভাগ টাকা চলে যাবে মহাজনী সুদে।

নবীনগর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা একরামুল ছিদ্দিক জানান, নবীনগরের ঐতিয্য ধরে রেখেছেন এখানকার প্রতিমা শিল্পীরা। এ শিল্প টিকিয়ে রাখতে প্রতিমা শিল্পীদের ব্যাংক ঋণ ও আর্থিক সুবিধা বিষয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্যের সাথে কথাবলে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বস দেন তিনি।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST