ঘোষনা:
শিরোনাম :
নীলফামারীতে পুড়ে ছাই পাঁচটি দোকান তিস্তার চরে গম চাষে আগ্রহ বেড়েছে কৃষকদের নীলফামারীতে উগ্রবাদ, জঙ্গি বাদ দমনে পাঁচ দিন ব্যাপী সচেতনতামূলক সেমিনার শুরু সক্ষম সকলকে কর প্রদানের আহবান প্রধানমন্ত্রীর রংপুর বিভাগীয় গন সমাবেশে নীলফামারী উপজেলা বিএনপি স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ  নীলফামারীর জলঢাকায় স্কুল বন্ধে নিমিসেই নিয়োগ শেষ, সভাপতির বিরুদ্ধে বাণিজ্যের অভিযোগ দেশ পাকিস্তান হবে নাকি মালয়েশিয়া- সিঙ্গাপুর, তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী সত্য বলার সৎ সাহসেই গঠিত হবে স্মার্ট বাংলাদেশ: অ্যাড. মমতাজুল শঙ্কামুক্ত নন অভিনেত্রী শারমিন আওয়ামী লীগ শাসনামলে দেশের ব্যাপক উন্নয়ন বিবেচনায় নিতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর
পহেলা ডিসেম্বরকে ‘মুক্তিযোদ্ধা দিবস’ ঘোষণার দাবি সেক্টর কমান্ডারস ফোরামের

পহেলা ডিসেম্বরকে ‘মুক্তিযোদ্ধা দিবস’ ঘোষণার দাবি সেক্টর কমান্ডারস ফোরামের

স্টাফ রিপোর্টার,
সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ’৭১ পহেলা ডিসেম্বরকে ‘মুক্তিযোদ্ধা দিবস’ ঘোষণার দাবি জানিয়েছে ।

মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর/২২) এক বিবৃতিতে ফোরামের কার্য নির্বাহী সভাপতি মোহাম্মদ নুরুল আলম ও মহাসচিব বরেণ্য সাংবাদিক, কলামিস্ট ও বীর মুক্তিযোদ্ধা হারুন হাবীব এ দাবি জানান।

বিবৃতিতে তারা বলেন, ‘সেক্টর কমান্ডারস্ ফোরামসহ অনেক সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠন অনেক বছর ধরে নানা কর্মসূচির মাধ্যমে দিনটি পালন করে আসছে। জাতীয় সংসদের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রনালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি ২০২১ সালের নভেম্বর মাসে দিনটিকে মুক্তিযোদ্ধা দিবস হিসেবে ঘোষণার ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয়ে জোর সুপারিশ পেশ করেছেন। কিন্তু এখনো এ সংক্রান্ত কোনো সরকারি ঘোষণা দেয়নি।’

তারা বলেন, আমরা মনে করি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আহবানে যে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের আত্মত্যাগে ১৯৭১ সালের রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠিত হয়েছে, জাতির সেই শ্রেষ্ঠ সন্তানদের স্মৃতির উদ্দেশে একটি দিবস পালনের যৌক্তিকতা রয়েছে।’

সেক্টর কমান্ডারস্ ফোরাম নেতৃবৃন্দ ১ ডিসেম্বরকে মুক্তিযোদ্ধা দিবস হিসেবে ঘোষণা করে দিনটি যথাযথ মর্যাদার সঙ্গে পালনের উদ্যোগ নিতে সরকারের প্রতি আহবান জানান।

এদিকে ফোরামের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আগামি ১ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার সেক্টর কমান্ডারস্ ফোরাম মুক্তিযুদ্ধ’৭১‘মুক্তিযোদ্ধা দিবস’ পালন করবে। কেন্দ্রিয়ভাবে ঢাকায় এবং সকল জেলা, মহানগর ও প্রাতিষ্ঠানিক কমিটিগুলো সারাদেশে দিবসটি একযোগে পালন করবে।

সকাল ৯টায় ঢাকার সোহরাওয়ার্দি উদ্যানের শিখা চিরন্তন বেদীতে পুস্পস্তবক অর্পণের মধ্য দিয়ে কর্মসূচি শুরু হবে। ফোরামের কেন্দ্রিয় এবং ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ও উত্তরের নেতৃবৃন্দ, সকল স্তরের বীর মুক্তিযোদ্ধা ও নতুন প্রজন্মের মানুষ এতে অংশ গ্রহন করবেন।
কর্মসূচির অংশ হিসেবে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের কবরে পুস্পস্তবক অর্পণ ও তাঁদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করা হবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST