ঘোষনা:
শিরোনাম :
কিশোরগঞ্জে পবিত্র ঈদ-উল ফিতরের আগে সরকারী আর্থিক সহায়তা না পাওয়ার শংকায়  সুবিধাভোগীরা। নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে ইফতার কিনতে যাওয়া হলনা শরিফুদ্দিনের । ডোমারে শিক্ষার্থীদের জন্য অভিভাবকদের মাঝে খাবার বিতরণ। যশোরের বেনাপোল কাস্টমস হাউস দেশের প্রথম ডিজিটাল কাস্টমস হাউসে উন্নীত। স্বেচ্ছাসেবক লীগের ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সদস্যদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী প্রদান। করোনা কালীন পরিস্থিতি ও পবিত্র মাহে রমজান উপলক্ষে দুই শতাধিক অসহায় পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ। কিশোরগঞ্জে সিটিজেন চার্টার না থাকায় মৎস্য চাষীরা সেবা বঞ্চি। নীলফামারীতে প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা ইফতার উপহার পেলেন অসহায় ও দরিদ্র মানুষ। নীলফামারীতে ভুল চিকিৎসায় পঙ্গু জাহিদুল, পরিবার বাঁচাতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা। চট্টগ্রামে করোনায় আরো ৫ জনের মৃত্যু ।
গাইবান্ধায় ঝুলে আছে ‘শহর ফোরলেন প্রকল্প’ বাস্তবায়ন কাজ : যানজটে নাকাল জেলার মানুষ।

গাইবান্ধায় ঝুলে আছে ‘শহর ফোরলেন প্রকল্প’ বাস্তবায়ন কাজ : যানজটে নাকাল জেলার মানুষ।

কামরুল হাসান,গাইবান্ধা ,
আষার মাসে নেই বৃষ্টির দেখা একদিকে প্রচন্ড তাপদাহ অন্যদিকে যানজটে নাকাল সর্বস্তরের মানুষ। গরমে হাঁসফাঁস তার উপর দীর্ঘদিনের দেখা যানজটে মানুষের দুর্ভোগ পিছু ছাড়ছেনা। সীমাহীন যানজটে গাইবান্ধা জেলা শহরের মানুষ এখন চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে প্রতিনিয়ত । এদিকে যানজট নিরসনে পুলিশ সুপারের কার্যালয় সংলগ্ন গাইবান্ধা-পলাশবাড়ী সড়ক থেকে শহরের পুরাতন জেলখানার মোড় পর্যন্ত ‘শহর ফোরলেন প্রকল্প’টি বাস্তবায়নের কাজ এখনও শুরু না হওয়ায় যানজট সমস্যা তীব্র আকার ধারণ করেছে।

শহরের বাসটার্মিনাল থেকে শুরু করে ডিবি রোড, পুরাতন বাজার ও বালাসীঘাট সড়ক জুড়েই প্রতিনিয়ত দীর্ঘক্ষণ সীমাহীন যানজট লেগে থাকে। এছাড়া জেলখানার মোড় থেকে পূর্বকোমরনই বাঁধের মাথা, বড় মসজিদের মোড় থেকে খন্দকার মোড়, ২নং ট্রাফিক মোড় থেকে গাইবান্ধা সরকারি কলেজ পর্যন্ত সড়কে প্রতিদিন যানজট লেগেই থাকে। এই যানজটের কারণে স্বল্প পরিসরের সড়কগুলো দিয়ে পথচারীদের চলাচল বিঘ্নিত হচ্ছে।

এরমধ্যে বেআইনীভাবে সড়ক সংলগ্ন ফুটপাত দখল এবং সড়কের সাথে ব্যাপকহারে অবৈধভাবে দোকানপাট গড়ে তোলা হয়েছে। বিশেষ করে বাসটার্মিনাল সংলগ্ন এলাকায় বাস সড়কের উপর দাঁড়িয়ে থাকায় ওই এলাকায় যানজট বৃদ্ধি পাচ্ছে। এছাড়া ডিবি রোডের ব্যবসায়িরা সড়কের পাশে ট্রাক থামিয়ে মালামাল লোড আনলোড করে থাকে বলেও অধিকাংশ সময়ে সীমাহীন যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। এই অবস্থাতেও নিয়ন্ত্রণহীন অটোরিক্সা, অটোবাইক, সিএনজি, মোটরসাইকেল, ট্রাক্টর, হ্যান্ড ট্রাক্টর, বাস-ট্রাক, ভটভটি অপরিসর সড়ক দিয়ে অবাধে চলাচলের মধ্য দিয়েই দুর্ঘটনার আশংকা নিয়ে শহরবাসীকে যাতায়াত করতে হচ্ছে। এ অবস্থাতেও শহরে অটোরিক্সা ও অটোবাইকের সংখ্যা নিয়ন্ত্রনহীনভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে। এতে যানজটে স্থবির হয়ে পড়ছে গোটা গাইবান্ধা জেলা শহর।

জেলা সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী আসাদুজ্জামান এ বিষয়ে গ্রাম পোষ্টকে জানান, গাইবান্ধা জেলা শহরের যানজট নিরসনে ১৫৭ কোটি টাকা ব্যয়ে এই ফোরলেন প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হচ্ছে। এতে শুধু নির্দিষ্ট এলাকার সড়ক ফোরলেনই হবে না বরং সড়কের পাশে পথচারী চলাচলের জন্য ফুটপাত, সড়ক ডিভাইডারে সুন্দর নান্দনিক ফুলের বাগান এবং কাচারী বাজার মসজিদ সংলগ্ন মোড়ে একটি গোল চত্বর ও দৃষ্টিনন্দন ফোয়ারাও গড়ে তোলা হবে। প্রকল্প বাস্তবায়নে ইতোমধ্যে ঠিকাদার নিয়োগ এবং জমি অধিগ্রহণের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এই প্রকল্পের আওতায় জমি অধিগ্রহন এবং জমি সংলগ্ন অবকাঠামোর মূল্য পরিশোধ বাবদ ব্যয় হবে মোট ১১০ কোটি টাকা। কিন্তু এ যাবত বরাদ্দ পাওয়া গেছে মাত্র ৫৩ কোটি টাকা। ফলে জমি অধিগ্রহণ সম্পন্ন হলেও অধিগ্রহণকৃত জমি ও জমি সংলগ্ন অবকাঠামোর মূল্য পরিশোধ করা সম্ভব হয়নি। এছাড়া রাস্তার ধারে বিশাল বিশাল কয়েকটি রেইন্ট্রিসহ অন্যান্য গাছ রয়েছে। যা জরুরী ভিত্তিতে অপসারণ করতে হবে। সেইসাথে রাস্তার বৈদ্যুতিক ও টেলিফোন লাইন অপসারণ করার বিষয়টিও রয়েছে। এসব কারণেই ফোরলেনের কাজ শুরু করতে কিছুটা বিলম্ব হচ্ছে। তবে আশা করা হচ্ছে আগামী দু’মাসের মধ্যেই বরাদ্দকৃত অর্থ প্রাপ্তি সাপেক্ষে ফোরলেন প্রকল্পের কাজ দ্রুতই শুরু করা হবে।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST