ঘোষনা:
শিরোনাম :
নীলফামারীতে ক্লুলেস হত্যা মামলার চার আসামী গ্রেফতার; পুলিশ সুপারের প্রেস ব্রিফিং নীলফামারীতে গর্ভবর্তী মায়েদের কমিউনিটি ক্লিনিকে সেবা নিতে স্বাস্থ্য মন্ত্রীর আহব্বান পাটগ্রামে স্বঘোষিত মুক্তিযোদ্ধা গবেষক মিঠু’র বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন লালমনিরহাটের হাতিবান্ধায় ফেন্সিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব-১৩ নদীতে মাছ ধরতে গিয়ে, লাশ হয়ে ফিরতে হলো চট্টগ্রামে এইচএসসি পরীক্ষার্থীকে ধর্ষণ, আটক পিয়ন নীলফামারীতে বিরল আ’কৃতির শি’শুর জ’ন্ম, নেই হাত-পা ও মাথা পাটগ্রামে বিভিন্ন  স্থানে অভিযান, বোমা মেশিন বিনষ্ট ও জরিমানা চট্টগ্রামে মহামারী আকারে ক্ষুরা ও লাম্পি রোগে আক্রান্ত গরু চট্টগ্রামে আমন চারা তৈরিতে ব্যাস্ত সময় পার করছে কৃষক
ডোমারে স্ত্রীর দাবীতে নেতার বাড়ীতে নারীর অবস্থান

ডোমারে স্ত্রীর দাবীতে নেতার বাড়ীতে নারীর অবস্থান

স্টাফ রিপোর্টার,

নীলফামারীর ডোমারে পৌর ছাত্রলীগ নেতার বাড়িতে স্ত্রীর স্বীকৃতি পেতে অনশন করছেন এক নারী।আজ
বৃহস্পতিবার(০১জুন/২৩) দুপুর থেকে ডোমার পৌর ছাত্রলীগ সভাপতি অভিজিৎ সর্বঙ্গ পাপনের বাড়িতে অনশন শুরু করেছেন ওই নারী। এদিকে বাড়িতে অনশন করতে দেখে পালাতে গিয়ে নিজের পা মচকিয়ে যাওয়ার দাবী করে হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন ওই ছাত্রলীগ নেতা। এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

অভিজিৎ সর্বঙ্গ পাপন ডোমার পৌর এলাকার ছোটরাউতা সাহাপাড়া এলাকার দেব রঞ্জন সর্বঞ্জের ছেলে। তিনি ২০২২ সালের ২৯ জুলাই ডোমার পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি পদ পান।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, বৃহস্পতিবার দুপুর একটার দিকে ওই নারী ছাত্রলীগ নেতা পাপনে বাড়িতে অবস্থান নেন। ওই নারীকে দেখে ক্ষিপ্ত হয়ে মারধর করার অভিযোগ উঠেছে পাপনের বিরুদ্ধে। নারীর চিৎকার ও কান্নায় স্থানীয়রা এগিয়ে আসেন। খবর পেয়ে ডোমার থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে আসেন। এক সময় সবার অগোচরে বাড়ির পিছন দিয়ে পালানোর চেষ্টা করেন পাপন। পালানোর সময় এলাকাবাসী ও পুলিশ তাকে ধাওয়া করে আটক করে।পরে পুলিশ হেফাজতে ডোমার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তাকে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়।

এদিকে পৌর ছাত্রলীগ সভাপতি পাপনের বিয়ে নিয়ে কয়েকদিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে আলোচনা সমালোচনার ঝড় বইছিল। ছাত্রলীগ নেতা পাপনের সাথে ওই নারীর একাধিক ছবি ইতিমধ্যে ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।

ভুক্তভোগী নারী বলেন, পাপনের সাথে ২০১৩ সালে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ি। ২০১৪ সালে পঞ্চগড়ের বোদেশ্বরি মন্দিরে আমরা বিয়ে করি।
বিয়ে পরেও আমাকে বলে এখন কাউকে জানাইও না । আমার মায়ের হার্টের সমস্যা, আমি আমার মা’কে আস্তে আস্তে ম্যানেজ করে তোমাকে বাড়ী নিয়ে যাবো। এখন তুমি ভাড়া বাড়িতে থাকো, আমি যখন সাহাপাড়া নারু সাহা নামে এক লোকের বাড়িতে ভাড়া ছিলাম। সে সময় তার মা আমাদের সম্পর্কের কথা জানতে পারে, পরে তার মা আমাকে আজেবাজে ভাষায় গালিগালাজ করে ও তার মা আমাকে মারতে আসে। তার পরে আমি যে বাড়িতে ভাড়া ছিলাম সে বাড়িওয়ালা আমাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়।

তিনি বলেন, তারপর আমরা ডোমার ও নীলফামারী শহরের বিভিন্ন জায়গায় বাড়ি ভাড়া করে সংসার করে আসছিলাম। গত একমাস থেকে পাপন আমার সঙ্গে দেখাও করে না, খোঁজ খবর রাখে না। এমনকি আমার মোবাইল ফোনও রিসিভ করে না। সে আমাকে স্ত্রী বলে স্বীকার করছে না। আমি যেখানে ভাড়া থাকি, সেখানে গিয়ে জিজ্ঞেস করলে বুঝতে পারবেন আমার স্বামীকে। আমাকে খারাপ বানানোর জন্য অনেক চেষ্টা করেছে। আমার তিন মাসের পেটের বাচ্চা নষ্ট করে দিয়েছে। আজ আমি তার বাড়িতে অবস্থান নিয়েছি স্ত্রীর মর্যাদা পেতে। সে আমাকে মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দেওয়ার চেষ্টা করছে। আমি স্ত্রীর মর্যাদা চাই।

অভিজিৎ সর্বঙ্গ পাপন বলেন, তার তিনটা স্বামী। সে বিভিন্ন জায়গায় মানুষকে ব্লাকমেইল করে টাকা খায়। আমার কাছে প্রতারণা করে টাকা চায়। তার একটা ছেলে আছে। আমি একটা অবিবাহিত ছেলে। সে আমার মাকে মারধর করেছে । আমি একটা অবিবাহিত হিন্দু সম্প্রদায়ের ব্রাহ্মণ ছেলে। আমার সম্পর্কে এলাকায় সবাই ভালো জানে। সে আজকে পরিকল্পিত ভাবে আমার মাকে মেরে ঘরে ঢুকেছে।

ডোমার থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মাহমুদ উন নবী বলেন, এখন পর্যন্ত এ বিষয়ে কোনো লিখিত অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আর পাপন একটু অসুস্থ অনুভব করায় তার আমাদের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST