ঘোষনা:
শিরোনাম :
ডিমলায় তিস্তার চরে ভুট্টার বাম্পার ফলন। সাতক্ষীরায় করোনায় আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে মেডিকেল হাসপাতালে নারীসহ দুই জনের মৃত্যু। বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির উপজেলা শাখা গঠনের আলোচনা সভা । নীলফামারীতে চাঁদা দিতে না পারায়,ঘরে অগ্নিসংযোগ জোড়পূর্বক মাছ চুরি। সৈয়দপুরের তিন শিক্ষার্থীর ভর্তি অনিশ্চিত মেডিকেল কলেজে । করোনা আক্রান্ত জননেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন অনেকটা সুস্থ্য বোধ করছেন। লকডাউনে ১০টা -০১ টা পর্যস্ত খোলা থাকবে ব্যাংক সেবা। চাঁদ দেখা গেছে, বুধবার থেকে পবিত্র রমজান শুরু। শঙ্কিত হওয়ার কোনো কারণ নেই, সরকার সবসময় পাশে থাকবে;প্রধানমন্ত্রী। সিলেটে দক্ষিণ আফ্রিকা নারী ক্রিকেট দলের ৫ ক্রিকেটার করোনা শনাক্ত।
ডোমারের প্রধান সড়কটির বেহাল দশা,চলাচলের অযোগ্য দুর্ভোগে জনসাধারন ।

ডোমারের প্রধান সড়কটির বেহাল দশা,চলাচলের অযোগ্য দুর্ভোগে জনসাধারন ।

রতন কুমার রায়,ডোমার নীলফামারী ,
নীলফামারীর ডোমারে প্রধান সড়কটি দীর্ঘদিন সংস্কার কাজ না হওয়ায় চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে ।সামান্য বৃষ্টিতে অসংখ্য খানা-খন্দে হাটু পানি জমে থাকায় প্রতিনিয়ত ঘটছে ছোট খাটো দুর্ঘটনা । গত ৫বছর ধরে সড়কের এই করুন অবস্থার সৃষ্টি হলেও দেখার যেন কেউ নেই । ফলে চরম দুর্ভোগে পড়েছে ডোমারবাসী ।ডোমার শহরের প্রধান সড়কটির ডোমার ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশন থেকে শুরু করে ডোমার দেবীগঞ্জ সড়কের মাদ্রাসা মোড় পর্যন্ত প্রায় দেড় কিলোমিটার প্রধান সড়কটির করুন অবস্থার কারনে পথচারীদের হেটে চলাও দায় হয়ে পড়েছে । সড়কটিতে অসংখ্য গর্তের সৃষ্টি হয়েছে । সামান্য বৃষ্টি হলেই গর্তগুলোতে হাটুপানি লেগে থাকে । এর ফলে বোঝা মুশকিল কোথায় গর্ত রয়েছে এবং গর্তের গভীরতা কতটুকু ।এ সব গর্তে ছোট বড় যানবাহন প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনায় পতিত হচ্ছে । দুর্ঘটনা এড়াতে প্রধান সড়ক সংলগ্ন দোকান মালিকরা গর্তের মধ্যে লাল কাপড়ের পতাকাসহ টেবিলের জন্য বানানো ফ্রেম বসিয়ে দুর্ঘটনা এড়াতে সংকেত দিচ্ছে । ফলে ছোট খাটো যানবাহনসহ পথচারীরা বিকল্প রাস্তা ব্যবহার করছে । প্রধান এই সড়ক দিয়ে প্রতিনিয়ত শতাধিক বালুবাহী, পাথরবাহী ট্রাক ,অর্ধ শতাধিক দুর পাল্লার কোচ ও অসংখ্য ছোট ও মাঝারী আকারের যানবাহন চলাচল করে থাকে । এছাড়াও প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্মকর্তা ,রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দসহ অনেকে চলাচল করলেও সড়কটি সংস্কারে দৃষ্টি নেই কারো । সড়কটি সংস্কারের টেন্ডার হলেও কাজ শুরু করছে না ঠিকাদার এমন অভিযোগ সড়ক বিভাগের ।জনরোষ থেকে গাঁ বাঁচাতে সড়ক বিভাগ গর্তগুলো ভরাট করতে রাস্তার পাশে কিছু ব্লাকটপ ফেলে জোড়া তালি দেওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে ।
এ ব্যাপারে সড়ক বিভাগের বিভাগীয় সহকারী প্রকৌশলী শফিকুল ইসলাম মোল্লা গ্রাম পোষ্টকে জানান, আমি নিজে গিয়ে সড়কটি দেখেছি ,এলাকার মানুষ সড়কটির কারনে দুর্ভোগে রয়েছেন । সড়কটির কাজের টেন্ডার হয়েছে রড,সিমেন্ট,বালি দিয়ে ঢালাইয়ের কাজ করা হবে । সড়কটির ফাইল ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে দেওয়া হয়েছে । বৃষ্টির কারনে কাজ শুরু করতে পারেনি । দু- একদিনের মধ্যে কাজ শুরু হলে দৃশ্যমান দেখতে পারবেন ।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST