ঘোষনা:
শিরোনাম :
নীলফামারী সৈয়দপুরে বৈশাখ আর ঈদের কেনাকাটায় ব্যাস্ত মানুষ। রাষ্ট্রপতির শোক বার্তা দিয়েছেন একুশে পদকপ্রাপ্ত রবীন্দ্রসংগীত শিল্পীর মৃত্যুতে। সাতক্ষীরায় ঘাতক সাগর গ্রেপ্তার, ‘২০০ টাকার জন্য বন্ধুকে খুন ’ ঘাতকের স্বীকারোক্তি। সীতাকুণ্ডে পুকুর থেকে যুবকের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।স্ত্রীকে আটক। চট্টগ্রামে করোনায় প্রাণ গেল এক চিকিৎসকের। কক্সবাজার সৈকতে আরও একটি মৃত তিমি ভেসে এসেছে । সাতক্ষীরায় করোনা মোকাবেলায় জেলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে মাস্ক বিতরণ। সাতক্ষীরায় দিনে ঘরে ঢুকে বন্ধুকে জবাই করে হত্যা ।হত্যাকারী পলাতক। খুলনা পিসিআর ল্যাবে ৬১ জন করোনা পজেটিভ শনাক্ত। নীলফামারীতে বাংলাদেশ সাম্যবাদী দলের মাস্ক বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন।
পল্লী বিদ্যুতের লাইন নির্মাণে অনিয়ম দুর্নীতি—৫ ,নীলফামারী পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডে ৪ টি উপজেলায় প্রায় ৪০০ কোটি টাকা হরিলুট লাইন নির্মাণে………..।

পল্লী বিদ্যুতের লাইন নির্মাণে অনিয়ম দুর্নীতি—৫ ,নীলফামারী পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডে ৪ টি উপজেলায় প্রায় ৪০০ কোটি টাকা হরিলুট লাইন নির্মাণে………..।

নূর সিদ্দিকী, বিশেষ প্রতিবেদক ,
ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌনছে দেওয়ার লক্ষে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষনা বাস্তবায়নে নীলফামারী জেলায় পল্লী বিদ্যুতের কিশোরগঞ্জ ও সদর উপজেলাকে শতভাগ বিদুৎ ঘোষনার পর এবার জলঢাকা,ডোমার,ডিমলা উপজেলায় প্রত্যান্ত অঞ্চলে প্রান্তিক জনগোষ্টির মাঝে শতভাগ বিদ্যুৎ পৌছে দেওয়ার লক্ষ্যে পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের অধিনে গ্রাম,পাড়া,মহল্লায় তিনটি প্রকল্পের মাধ্যমে লাইন নির্মাণের কাজে নীলফামারী পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডে ৪ টি উপজেলায় প্রায় ৪০০ কোটি টাকা হরিলুট করেছে দালাল,ঠিকাদার,অফিসের কিছু অসৎ কর্মকর্তা কর্মচারীদের যোগসাযসে গ্রাহকের পকেট কেটেছে চলমান লাইন নির্মাণ ও লাইন নির্মাণ হওয়ার আগে এলাকায়গুলোতে।১.৫এমসিসিপি প্রকল্পের অধিনে ৭৪৫ কিলোমিটার লাইন নির্মাণে গ্রাহক নির্ধারন করা হয়েছে ২৫ হাজার ৭শত ৮২ জন।১০০% ডিএনই প্রকল্পে ১১৯ কিলোমিটারে গ্রাহক সংখ্যা রয়েছে ২৭ হাজার ৭ শত ৬৭ জন।ইউআরআইডিএস প্রকল্পে ৪৩০ কিলোমিটার লাইনে ৬ হাজার ১ শত ৮ জন গ্রাহক।চারটি উপজেলায় ২৩ হাজর ৬৫ কিলোমিটার লাইনে প্রতি কিলোমিটারে বিশটি করে পোল দিয়ে লাইন নির্মাণের লক্ষে দ্রুত কাজ করছে পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড।এলাকায় দালাল মারফত নির্বাহী অফিসার নাফিউল ইসলামের কথা বলে দালালরা এলাকায় প্রতিপোল ৫ হাজার থেকে ১০ হজার টাকা গ্রাহকের কাছ থেকে নিচ্ছে এবং রাতারাতি পোল এলাকায় চলে যাচ্ছে। তেমনি এলাকায় দালালরা অনেক ব্যাস্ত লাইনের পোল নিয়ে এলাকায় ফেলতে,যেন তাদের দখলে পল্লী বিদ্যুতের নির্বাহী,তাদের অনেকটা দায়িত্ব ভাগ করে দিয়েছে বললেন গ্রাহকরা (প্রয়োজনে নাম প্রকাশ)।অফিসে গ্রাহকরা এসে নিদিষ্ট এলাকার নাম বলে লডের কথা বললে নির্বাহী বলে পোল নেই সময় হলে লাইন নির্মাণ হবে।দালালদের টাকা দিলে সাথে সাথে ঠিকাদারদের দিয়ে পোল এলাকায় পাওয়া যায় এমর অভিযোগ করলেন ডিম-এফ-১৫১ নম্বর লডের (প্রয়োজনে নাম প্রকাশ)অসংখ্য গ্রাহকরা।তরা আরও বলেন,উত্তরসোনাখুলি সবুজ পারা গ্রামের গ্রাহকরা আমরা সকলে নির্বাহী নাফিউল ইসলামের সাথে ফোনে কথা বলেছি তিনি আমাদের বলছে সময় হলে লাইন নির্মাণ হবে।সময় আর হয়না।ওই লডের মাথায় কথা বলার কয়েকদিন পরে ,ডিম-এফ-১৫১ লডের মাথার চারটি পোল ৩২ হাজার টাকা দালাল জাহাঙ্গীর ঠিকাদার কালামের ম্যাধ্যমে উক্ত লডে ৪টি পোল ইসু ছাড়া অবৈধ্যভাবে নির্মাণ করে তার টানিয়ে।মধ্য সোনাখুলি চাপানি সবুজ পাড়া গ্রামে ৩০ হাজার টাকা নিয়ে লাইন নির্মাণ করায় গ্রাহকদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।যাহার পরিপ্রেক্ষিতে নির্বাহী প্রকৌশলী নাফিউল ইসলাম গ্রাহকদের জন্য কিছুই করে নাই এবং দালালদের বিরুদ্ধে কোন প্রকার পদক্ষেপ গ্রহন করেন নাই।গ্রাহকরা তাকে অফিসে এসে জানিয়েছে।উল্টো গ্রাহকদের দালাল বানিয়ে পুলিশে দেয়ার হুমকি দিয়েছে। নীলফামারী পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী নাফিউল ইসলাম বলেন,টাকা লেন দেন হলে আমার কিছুই করার নেই। ডিমলা-০৬ পল্লী বিদ্যুাত সমিতির এলাকা পরিচালক প্রভাষক মোখলেছার রহমান বলেন,এলাকায় দালালের অভাব নেই।সমিতির বোর্ড মিটিংয়ে দালাল বিষয়ে কথা হয়েছে।দালালদের ধরতে আইন আছে,কেন প্রয়োগ হচ্ছেনা আমাদের জানা নাই।আমাদের দাবি দালালদের ধরে পুলিশে দেওয়া হোক।তাহলে এই টাকা নেয়া বন্ধ হবে। পল্লী বিদ্যুতের লাইন নির্মাণে গ্রাহকের অনেক অজানা দূর্ভোগ ও আর্থিক লেনদেনের খবর নিয়ে আরও থাকছে আগামী সংখ্যায়।
চলবে—-





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST