ঘোষনা:
শিরোনাম :
চট্টগ্রামে মিতু হত্যায় সাবেক এসপিকে জিঙ্গাসাবাদ শেষে গ্রেফতার করেছে পিবিআই। ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে দুই মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত-১, আহত-৩। খেটে খাওয়া এবং কর্মহীন মানুষের কল্যানে সহায়তা করে যাচ্ছে সরকার রেলপথ মন্ত্রী । নীলফামারীর ডোমারে মাইক্রোবাস ও মটরসাইকেলের সংঘর্ষে,নিহত ১। নীলফামারীতে সমাজের প্রবীণ ও অসচ্ছল প্রবীণ ব্যাক্তিদের মাঝে ঈদ উপহার নীলফামারীতে ঈদ-উল-ফিতরের নামাজ সকাল সাড়ে সাতটায় কেন্দ্রীয় বড় মসজিদে নীলফামারীতে বোরো ধানের বাম্পার ফলন,কৃষকের মুখে হাসির ঝলক। আগামীকাল চাঁদ দেখা গেলে বৃহস্পতিবার ঈদ নীলফামারীতে ভিজিএফ’র নগদ অর্থ বিতরণে অনিয়ম। স্ট্যামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় হাল্ট প্রাইজের নেতৃত্বে নাজির-নুসরাত।
ভোটাররা চান পর্যাপ্ত নিরাপত্তা,নির্বাচনে জিততে ভোটারদের কেন্দ্রে আনতে মরিয়া

ভোটাররা চান পর্যাপ্ত নিরাপত্তা,নির্বাচনে জিততে ভোটারদের কেন্দ্রে আনতে মরিয়া

চট্টগ্রাম ব্যুরো /

উত্তর চট্টগ্রামে নিরুত্তাপ নির্বাচন হলেও দক্ষিণ চট্টগ্রামের চিত্র পুরো উল্টো। এখানকার আট উপজেলার মধ্যে আজ রবিবার চারটিতে নির্বাচন হচ্ছে। নৌকা প্রতীকের প্রার্থী এবং প্রতিদ্বন্দ্বীরা নির্বাচনে জিততে ভোটারদের কেন্দ্রে আনতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন। ভোটাররাও বলছেন, পর্যাপ্ত নিরাপত্তাব্যবস্থা থাকলে তারা ভোট দিতে যাবেন। গত ১৮ মার্চ উত্তর চট্টগ্রামের সাত উপজেলার মধ্যে কেবল ফটিকছড়িতে চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন হয়। অন্য উপজেলাগুলোতে চেয়ারম্যানসহ বেশিরভাগ পদে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা জয়ী হন। কিন্তু ফটিকছড়ির নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী নাজিম উদ্দিন মুহুরীকে প্রায় ১৮ হাজার ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করেন চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য এইচএম আবু তৈয়ব। নির্বাচন সুষ্ঠু হওয়ায় ভোটকেন্দ্রগুলোতে ভোটারদের উপস্থিতি দেখা যায়। তা ছাড়া প্রার্থীরাও জয়ী হতে নিজেদের লোকজনকে ভোটকেন্দ্রে যেতে উদ্বুদ্ধ করেন। ফটিকছড়ির ফল দেখার পর দক্ষিণ চট্টগ্রামের চার উপজেলার আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীরা নতুন করে কোমর বেঁধে মাঠে নেমেছেন। তারা মনে করছেন, নীরব ভোট নৌকার বিপক্ষে যাওয়ার সম্ভাবনা বেশি। সে ক্ষেত্রে নির্বাচন সুষ্ঠু হলেই জিতবেন তারা। এর কারণ হিসেবে বিদ্রোহী প্রার্থীরা বলছেন, সদ্য বিগত সংসদ নির্বাচনে বেশিরভাগ ভোটারই ভোট দিতে পারেননি। এর একটি জবাব তারা উপজেলা নির্বাচনে দিতে চান। বাঁশখালী উপজেলার বিগত দুটি নির্বাচনে স্বল্প ভোটের ব্যবধানে হেরে যান চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের শ্রমবিষয়ক সম্পাদক খোরশেদ আলম। এবার তিনি দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে আনারস মার্কায় বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন। আর নৌকা নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী মো. গালিব। খোরশেদ আলম আমাদের সময়কে বলেন, ভোটাররা কেন্দ্রে যেতে পারলে নীরব বিপ্লব হবে বলে আশা করি। তিনি বলেন, স্থানীয় সংসদ সদস্য ও পুলিশ কর্মকর্তারা আশ্বাস দিয়েছেন নির্বাচন সুষ্ঠু হবে। আমিও তাই জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী। নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও চট্টগ্রাম অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) কামাল হোসেন বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু ও উৎসবমুখর করতে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। ভোটার ও কেন্দ্রের নিরাপত্তায় পর্যাপ্ত পুলিশ, আনসার এবং অন্যান্য বাহিনীর সদস্যরা দায়িত্ব পালন করবেন। এদিকে বোয়ালখালীতে চেয়ারম্যান পদে নুরুল আলম রাজার (নৌকা) সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন জাসদের সৈয়দুল আলম (মোটরসাইকেল) দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আবদুল কাদের সুজন (আনারস) ও নুর হোসেন (কাপ-পিরিচ)। একইভাবে পটিয়া উপজেলায় মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরীর প্রতিদ্বন্দ্বী সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সাজ্জাত হোসেন (দোয়াত-কলম) ও বিএনপি থেকে বহিষ্কৃত নেত্রী আফরোজা বেগম জলি (আনারস)। চন্দনাইশে আওয়ামী লীগের প্রার্থী একেএম নাজিম উদ্দিনের প্রতিদ্বন্দ্বী আবদুল জব্বার চৌধুরী দোয়াত-কলম নিয়ে নির্বাচন করছেন। আবদুল জব্বার চৌধুরী সাবেক এলডিপি নেতা ও চন্দনাইশ উপজেলার দুবারের চেয়ারম্যান। এক বছর আগে তিনি এলডিপি ছেড়ে আওয়ামী লীগে যোগ দেন। কিন্তু আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পাননি। তাই স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। দক্ষিণ চট্টগ্রামের আট উপজেলার মধ্যে আনোয়ারায় তিন পদে আগেই বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা জয়ী হয়েছেন। কর্ণফুলী উপজেলা পরিষদের মেয়াদ পূর্ণ হয়নি। সাতকানিয়া উপজেলার নির্বাচন হবে সবশেষ পর্যায়ে। আর হাইকোর্টের আদেশে লোহাগাড়া উপজেলা নির্বাচন স্থগিত রয়েছেন





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST