ঘোষনা:
শিরোনাম :
চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে ছাত্র রাজনীতি বন্ধ ঘোষণা । নীলফামারীতে বঙ্গবন্ধু কাবাডি প্রতিযোগিতা উপলক্ষে আনন্দ শোভাযাত্রা নিখোঁজের তিনদিন পর গৃহবধূর মৃতদেহ মিলল ভুট্টার ক্ষেতে। জলঢাকা হাসপাতাল সড়কটি উন্নয়ন কাজ তদারকি করছেন। পৌরসভার চট্টগ্রামে গৃহবধূ পারভিন আকতার হত্যা মামলায় ৪ আসামীর মৃত্যুদন্ডের আদেশ। স্টামফোর্ড সাংবাদিক ফোরামের সাধারণ সদস্যের তালিকা অনুমোদন ডিমলায় ২টি লাশ উদ্ধার । সৈয়দপুরে বন্ধ রয়েছে ট্রেনের স্ট্যান্ডিং টিকেট ,পকেটে ভারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের । ডোমারে ১০৪ কোটি টাকা ব্যয়ে সড়ক সংস্কার কাজের উদ্বোধন। ডিমলায় ৭ই মার্চ উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভা।
জলঢাকার মেধাবী শিক্ষার্থী প্রনয় দত্তের পাশে উপজেলা পরিষদ।

জলঢাকার মেধাবী শিক্ষার্থী প্রনয় দত্তের পাশে উপজেলা পরিষদ।

 

জলঢাকা (নীলফামারী) প্রতিনিধি,
জলঢাকা পৌরসভার দরিদ্র মেধাবী ছাত্র প্রনয় দত্তের পাশে দাঁড়ালেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুজাউদ্দৌলা ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহেদ বাহাদুর। প্রনয় এ বছর মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি পরীক্ষায় শুনামের সহিত উত্তীর্ণ হয়েছে। কিন্তু টিউশনি করে পড়ালেখা চালানো দারিদ্র মা পুতুল দত্ত ছেলের ভর্তি ও পরবর্তী লেখাপড়া নিয়ে চিন্তিত হয়ে পরেছে। জলঢাকা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুজাউদ্দৌলা সোমবার প্রনয়ের হাতে মেডিকেল কলেজ ভর্তির জন্য ২০ হাজার টাকা তুলে দেন। এ ছাড়াও উপজেলা পরিষদ থেকে পরবর্তী সময়ের লেখাপড়ার ব্যয় বহনের কথা জানান তিনি। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার চঞ্চল কুমার ভৌমিক, প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার নুর মোহাম্মদ। এর আগে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহেদ বাহাদুর ৫ হাজার টাকা প্রনয়ের পরিবারের হাতে তুলে দেন। প্রনয় দত্ত নীলফামারী জলঢাকা পৌর শহরের ৬নং ওয়ার্ড কলেজপাড়াস্থ দরিদ্র নিতাই দত্ত ও পুতুল দত্তের ছেলে। প্রনয় ২০১১ সালে মুন কেজি স্কুল থেকে পিএসসিতে জিপিএ ৫, ২০১৪ সালে জলঢাকা মডেল সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় থেকে জেএসসিতে জিপিএ ৫, ২০১৭ সালে একই স্কুল থেকে এসএসসি তে জিপিএ ৫ এবং জলঢাকা সরকারি কলেজ হতে ২০১৯ সালে অনুষ্ঠিত এইচএসসি পরীক্ষায় জিপিএ ৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়। তার বাবা জলঢাকা বাসস্টানে ছোট একটি মুদি দোকান করে ও মা পুতুল দত্ত টিউশনি করে তার লেখাপড়ার খরচ চালাতেন। প্রনয়ের মা পুতুল দত্ত বলেন, আমার ছেলে লেখাপড়ার প্রতি খুবই মনযোগী। মেডিকেলে পড়ার সুযোগ পাওয়ার খবরে পারিবারিক অনটনের কারণে ওর লেখাপড়া নিয়ে চিন্তায় ছিলাম। ইউএনও স্যার, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও এলাকার শিক্ষানুরাগী মানুষের সহায়তায় দিনরাত পরিশ্রম আর মেধার বিকাশ ঘটিয়ে সে ঢাকা মানিকগঞ্জের কর্নেল মালেক মেডিকেল কলেজে পড়ার সুযোগ পেয়েছে। আমাদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য চিরদিন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ থাকবো। উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুজাউদ্দৌলা বলেন, প্রনয়ের মতো অদম্য মেধাবী ছাত্রদের জন্য উপজেলা প্রশাসনের দ্বার সব সময় উন্মুক্ত। তবে জনগনের টাকায় চিকিৎসক হয়ে প্রনয় যেন এই জনগনের চিকিৎসায় নিজেকে উৎসর্গ করে সেটা আশা করছি। মেধাবী প্রনয় দত্ত সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, পরিবারিক অনটন ছিল কিন্তূ লেখাপড়া কখনো ছেড়ে দিইনি। এতদুর আসতে আমাকে সকল পর্যায়ের শিক্ষকবৃন্দ এবং শুভাকাঙ্ক্ষীগন যেভাবে উৎসাহ্ ও সহযোগিতা করেছেন তাতে আমি, আমার পরিবার তাদের প্রতি চির কৃতজ্ঞ।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST