ঘোষনা:
শিরোনাম :
কিশোরগঞ্জে কালবৈশাখী ঝড়ে লন্ডভন্ড কয়েকটি গ্রাম সাতক্ষীরায় শিশু ধর্ষন চেষ্টার অভিযোগ, অভিযুক্ত দুই শিশুসহ এক মা আটক অস্তিত্ব রক্ষা করতে হলে বিএনপিকে নির্বাচনে যেতে হবে,তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী কিশোরগঞ্জে ১ দোকান আগুনে পুড়ে ছাই মুন্সীগঞ্জে সয়াবিন তেল জব্দ তিনটি দোকানে ৬০ হাজার টাকা জরিমানা এশিয়া কাপ আর্চারির স্টেজ টুয়ের ফাইনালে বাংলাদেশের ৪টা রুপা ও ৪টা ব্রোঞ্জপদক ব্যর্থতার দায়ে মির্জা ফখরুলসহ বিএনপি’র টপ টু বটম নেতাদের পদত্যাগ করা উচিত;সেতু মন্ত্রী ডোমারে ইউপি চেয়ারম্যানদের সন্মননা স্মারক প্রদান নীলফামারীতে সম্পত্তির লোভে ধারালো অস্ত্র দিয়ে গৃহবধুকে গুরুতর জখম, থানায় এজাহার কিশোরগঞ্জে গোডাউনে সয়াবিন তেল মজুদ
বগুড়ায় যৌতুক না পেয়ে স্ত্রীকে হত্যা করে লাশ ঝুলিয়ে রাখার অভিযোগ,পপির পরিবারের।

বগুড়ায় যৌতুক না পেয়ে স্ত্রীকে হত্যা করে লাশ ঝুলিয়ে রাখার অভিযোগ,পপির পরিবারের।

বগুড়া প্রতিনিধি ,
বগুড়ার সদরের শেখেরকোলা ইউনিয়নে যৌতুক লোভী স্বামী যৌতুকের দাবিকৃত টাকা না পেয়ে স্ত্রীকে হত্যা করে লাশ বাথরুমের তীরের সাথে ঝুলিয়ে রাখার অভিযোগ পাওয়া গেছে।
মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৭টায় বগুড়ার সদর থানা পুলিশ উপজেলার শেখেরকোলা ইউনিয়নের বালাকৈগাড়ি গ্রামে পপি বেগম (২২) নামের এক গৃহবধ‚র ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে। পপির পরিবারের দাবি তাঁর স্বামী যৌতুকের দাবিতে হত্যার পর মরদেহ বাথরুমে ঝুলিয়ে রেখেছেন।
নিহতের পারিবার ও স্থানীয় বাসিন্দা স‚ত্র জানায়, ৬ বছর প‚র্বে ঠেঙ্গামারা চাঁদপুর এলাকার সরোয়ার সরদারের মেয়ে পপির সাথে সদর উপজেলার শেখেরকোলা ইউনিয়নের বালাকৈগাড়ি গ্রামের লুৎফর রহমানের পুত্র রিপনের সাথে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই স্বামী রিপন যৌতুকের দাবিতে কারণে অকারণে স্ত্রী পপিকে মারধর করতো। এক সময় স্ত্রী পপি স্বামীর দাবিকৃত যৌতুকের সমস্ত টাকা পরিশোধ করলেও একটু পান থেকে চুন খোসলেই আবার স্বামী স্ত্রীর বিবাদ শুরু হয়। এর একপর্যায়ে পপির পরিবার স্বামী রিপনের নির্যাতন থেকে রক্ষা পেতে মেয়ে পপিকে বাড়িতে নিয়ে রিপনকে ডিভোর্স দেয়। এরপর রিপন পপির সাথে আবার যোগাযোগ করে। পপিকে বিভিন্ন কৌশলে ফের বিয়ের প্রস্তাব দেয়। সংসার জিবনে তাদের রিপা (৪) ও রাজিয়া ৯ মাসের ২টি কন্যা সন্তান রয়েছে। সন্তানদের মুখের দিকে চেয়ে পপি বিয়েতে রাজি হয়। এই বিয়েতে রিপন আবারও ৫০হাজার টাকা যৌতুক দাবি করে। এনিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে প্রায় ঝগড়া লেগে থাকত। এতে পপির পরিবার কখনোই তাঁদের ব্যক্তিগত বিষয়ে কোনো হস্তক্ষেপ করতেন না। এরই ধারাবিকতায় মঙ্গলবার সকালে বাথরুমে পপির ঝুলন্ত মরদেহ পাওয়া যায়। পরে স্থানীয়রা বিষয়টি ওই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ফেরদৌস হোসেন কে জানালে তিনি তাৎক্ষণিক সদর থানা পুলিশকে অবগত করেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে নিহতের লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল রিপোর্ট শেষে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (শজিমেক) মর্গে পাঠায়। এ বিষয়ে তদন্তকর্মকর্তা এসআই সোহেল জানান, ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন হাতে না পাওয়া পর্যন্ত প্রাথমিকভাবে কিছুই বলা যাচ্ছে না।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST