ঘোষনা:
শিরোনাম :
বরিশালের বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, হানিফ রাজধানীর ইবনেসিনা হাসপাতালে মৃত্যু বরন করেন। ডোমারে রাস্তার গাছ কাটার অভিযোগ। চট্টগ্রাম কারাগারে বন্দিকে হত্যা চেষ্টার অভিযোগে জেল সুপারসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা। রংপুরে নর্দাণ মেডিকেল কলেজ পরিচালকদের অবরুদ্ধ করেছে শিক্ষার্থীরা। কিশোরগঞ্জে নদীর বুক জুড়ে সবুজের সমারোহ। ডোমারে নববধূঁকে অপহরণের পর ধর্ষণ, গ্রেফতার-২ চট্টগ্রামে উচ্ছেদের মুখে লালদিয়ার চর ছাড়ছেন হাজারো পরিবার। কিশোরগঞ্জে নদীর বুক জুড়ে গাইবান্ধার আওয়ামী লীগ নেতার খুনিদের গ্রেপ্তারের দাবিতে সড়ক অবরোধ ও বিক্ষোভ মিছিল। ডোমারে শিক্ষানবীশ আইনজীবির বিরুদ্ধে রাস্তার গাছ কাটার অভিযোগ
নির্মিত হলো বিবাহ বিচ্ছেদের কারণ ও প্রতিকার নিয়ে ডকুফিকশন ‘শেষ বিকেলের সূর্য’।

নির্মিত হলো বিবাহ বিচ্ছেদের কারণ ও প্রতিকার নিয়ে ডকুফিকশন ‘শেষ বিকেলের সূর্য’।

 

বিনোদন প্রতিবেদক,

বিবাহ বিচ্ছেদের কারণ ও প্রতিকার নিয়ে নির্মিত হলো ডকুফিকশন ‘শেষ বিকেলের সূর্য’। ফিকশনটিতে স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্ক এবং যে সকল কারণে বিবাহ বিচ্ছেদের ঘটনা ঘটে তা পরিসংখ্যান ও তথ্যচিত্রের মাধ্যমে তুলে ধরা হয়েছে। পাশাপাশি, স্বামী-স্ত্রীর যেসব অভ্যাস ও আচরণ পরিবর্তনের মাধ্যমে একটি সুখী-সুন্দর সংসার গড়ে তোলা সম্ভব, সে বিষয়েও পরামর্শ রাখা হয়েছে।

প্রকৃতপক্ষে, বিয়ের মাধ্যমেই নারী ও পুরুষের ভালোবাসা যেমন পূর্ণতা পায় তেমনি সামাজিক ও পারিবারিক বন্ধন অটুট রাখার প্রয়াসও পায় মানুষ। এতে স্বামী বা স্ত্রী একজন আরেকজনের ওপর অধিকার প্রতিষ্ঠার সুযোগ পায়। সে বন্ধন যদি বিবাহ বিচ্ছেদের মতো ভাঙ্গনের দিকে মোড় নেয় তবে তা হয়ে ওঠে অনাকাংখিত। এতে পরিবারে সন্তানেরা বাবা-মা’র আদর-স্নেহ থেকে বঞ্চিত হয়ে এক সময় ভাসমান হয়ে পড়ে।

অপ্রত্যাশিত হলেও আমাদের সমাজে প্রতিনিয়ত ঘটছে ডিভোর্সের মত ভয়াভহ ঘটনা। গবেষণায় দেখা গেছে, দেশে বিবাহ-বিচ্ছেদের হার আগের চেয়ে বেড়েছে। বিবাহ -বিচ্ছেদের মতো ভয়াবহতা শহরের অভিজাত পরিবার থেকে শুরু করে এখন গ্রাম-গঞ্জেও ব্যাপকতা পেয়েছে। পরিসংখ্যান বলছে, বিবাহ-বিচ্ছেদে নারীরাই এ সময়ে এগিয়ে! বিচ্ছেদ কেন বাড়ছে? কেনইবা নারীরা এগিয়ে তা নিয়ে রয়েছে নানান কথা। প্রশ্ন উঠেছে- এটা সচেনতার ফল না কথিত আধুনিকতার প্রভাব? ফিকশনটিতে পাওয়া যাবে এসবের উত্তর।

ফিকশনিটির পরিকল্পনা, গ্রন্থণা, পরিচালনা ও উপস্থাপনা করেছেন মিলন মাহমুদ রবি। পান্ডুলিপি সম্পাদনা ও ধারার্ণনায় রিয়াজ রনি। ফিকশনটির মোটিভেশনাল স্পিকার হিসেবে দেখা যাবে ইস্ট ওয়েস্ট ইউনির্ভাসিটিমাইন্ড জিম কান্সিলর মো. আলমাসুর রহমানকেপ্রধান সহকারি পরিচালক হিসেবে ছিলেন বিপ্লব রেজা। কার্যক্রম পরিচালক ইসমত নাজ ববি। অভিনয়ে রোমানা আমিন, কাজী আল-আমিন এবং শিশুশিল্পী কাজী ওয়াসিয়া তাজরি বিনতে আমিন ও শার্লিন সাফা প্রমূখ। শিল্প নির্দেশনায় ফারহানা রহমান তিশা। চিত্রগ্রহণে আল মাসুম সবুজ। সম্পাদনা ও মোশনগ্রাফিক্সে আবুল হাসান শিমুল। ফটোগ্রাফিতে ফারহানা ফারা এবং টাইটেল অলংকরণ করেছেন শফিউল আলম উজ্জল ও রিয়াজ রনি। এছাড়া কারিগরি সহায়তায় রয়েছে ‘ব্যঞ্জন মাল্টিমিডিয়া প্রডাকশন’। ডকুফিকশনটি দেখা যাবে ইউটিউববিত্তিক চ্যানেল ‘ব্যঞ্জন মিডিয়া হাউজ’-এ।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST