ঘোষনা:
শিরোনাম :
জলঢাকা হাসপাতাল সড়কটি উন্নয়ন কাজ তদারকি করছেন। পৌরসভার চট্টগ্রামে গৃহবধূ পারভিন আকতার হত্যা মামলায় ৪ আসামীর মৃত্যুদন্ডের আদেশ। স্টামফোর্ড সাংবাদিক ফোরামের সাধারণ সদস্যের তালিকা অনুমোদন ডিমলায় ২টি লাশ উদ্ধার । সৈয়দপুরে বন্ধ রয়েছে ট্রেনের স্ট্যান্ডিং টিকেট ,পকেটে ভারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের । ডোমারে ১০৪ কোটি টাকা ব্যয়ে সড়ক সংস্কার কাজের উদ্বোধন। ডিমলায় ৭ই মার্চ উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভা। কিশোরগঞ্জে জলাশয় সংস্কার পুনঃ খনন কাজের উদ্ধোধন নীলফামারীতে রিলেশন এর সম্মান ক্ষুন্ন করার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন সৈয়দপুরে অনিয়মতান্ত্রিকভাবে কেন্দ্রীয় শ্মশান কমিটি গঠনের অভিযোগ।
ডোমার হানাদার মুক্ত দিবস ।

ডোমার হানাদার মুক্ত দিবস ।

রতন কুমার রায়-স্টাফ রির্পোটার ,
নীলফামারী জেলার ডোমার হানাদার মুক্ত দিবস মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড এর আয়োজনে একটি বর্নাঢ্য র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
দিবসটি উপলক্ষে শুক্রবার বিকালে ডোমার মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন হতে একটি বর্নাঢ্য র‌্যালী বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে উক্ত কমপ্লেক্সে ভবন মিলয়তনে আলোচনা সভায় মিলিত হয়। এর আগে সকালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুস্পমাল্য অর্পন,জাতীয় পতাকা উত্তোলন,সকল শহীদদের সন্মানার্থে পুস্পমাল্য অর্পন ও এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড ডোমার উপজেলা শাখার আহবায়ক আল আমিন এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নীলফামারী জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন। জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড এর সদস্য তানভীর ইসলাম সিদ্দিকীর সঞ্চলনায় আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন,ডোমার মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার,বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরন নবী,আব্দুল জব্বার,পৌর কমান্ডার ইলিয়াছ হোসেন,বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের কেন্দ্রীয় কমিটির সা.সম্পাদক সরকার ফারহানা আক্তার সুমি,ডোমার থানা ইন্সপেক্টর তদন্ত বিশ্বদেব রায়,পৌর প্যানেল মেয়র এনায়েত হোসেন নয়ন প্রমূখ। এছাড়াও যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।
বীর মুক্তিযোদ্ধা বক্তরা বলেন ১৯৭১ সালে ৬ডিসেম্বর ডোমার হানাদার মুক্ত হয়েছে। এইদিনে ভোরে ভীত সন্তস্থ হয়ে পাকিস্থানি হানাদার বাহিনী ডোমার হতে ট্রেন যোগে সৈয়দপুর পালিয়ে যায়। ওই দিনেই সকাল ৭টা/৮টার দিকে বর্তমান শহীদ ধীরাজ মিজান মিলায়তন ও পাঠাগারের সামনে (সাবেক জিন্না হল) জাতীয় পতাকা উত্তোলন করি।এসময় হাজার হাজার জনতা সমবেত হয়েছে ।এবং ২৮জন রাজাকার অস্ত্রসহ আত্মসমর্পন করে ছিলো। সেদিনেই ডোমার হানাদার মুক্ত হয়।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST