ঘোষনা:
শিরোনাম :
বিএনপি দন্ডপ্রাপ্ত দল, ভিডিও কনফারেন্সিং বিআরটিসি বাস উদ্বোধনে, ওবায়দুল কাদের। চট্টগ্রাম মেডিকেল ছাত্রাবাসে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ,কক্ষ ভাঙচুর। নীলফামারীতে মসলা বীজ উৎপাদন প্রকল্পের মাঠ দিবস ও রিভিউ ডিসকাশন। বরিশালের বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, হানিফ রাজধানীর ইবনেসিনা হাসপাতালে মৃত্যু বরন করেন। ডোমারে রাস্তার গাছ কাটার অভিযোগ। চট্টগ্রাম কারাগারে বন্দিকে হত্যা চেষ্টার অভিযোগে জেল সুপারসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা। রংপুরে নর্দাণ মেডিকেল কলেজ পরিচালকদের অবরুদ্ধ করেছে শিক্ষার্থীরা। কিশোরগঞ্জে নদীর বুক জুড়ে সবুজের সমারোহ। ডোমারে নববধূঁকে অপহরণের পর ধর্ষণ, গ্রেফতার-২ চট্টগ্রামে উচ্ছেদের মুখে লালদিয়ার চর ছাড়ছেন হাজারো পরিবার।
এক প্রসূতির অপারেশন টেবিলেই মারা যাওয়ার অভিযোগ।মৃতদেহ রেখে পালিয়েছে ডাক্তার।

এক প্রসূতির অপারেশন টেবিলেই মারা যাওয়ার অভিযোগ।মৃতদেহ রেখে পালিয়েছে ডাক্তার।

নওগা প্রতিনিধি ,
এক প্রসূতির অপারেশন টেবিলেই মারা যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে নওগায়।মৃতদেহ রেখে পালিয়েছে ডাক্তার,নার্স।আজ বুধবার দুপুরে শহরের পার-নওগাঁয় বেসরকারি ‘নওগাঁ ডায়াবেটিক সমিতি’ হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটে। নিহত রাজিয়া সুলতানা শহরের চকরামপুর এলাকার মারুফ হোসেনের স্ত্রী।
নওগাঁয় ভুল সিজারিয়ান অপারেশনে রাজিয়া সুলতানা (২৭) নামে এক প্রসূতি । ঘটনার পর চিকিৎসক ও নার্স মরদেহ অপারেশন টেবিলে রেখেই পালিয়ে যান বলে জানান প্রসূতির স্বজনরা।প্রসূতির পরিবার ও হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, রাজিয়া সুলতানাকে সকাল ৮টার দিকে নওগাঁ ডায়াবেটিক সমিতি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সিজারিয়ান অপারেশনের সময় প্রসূতির সকল পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়। এরপর সকাল সাড়ে ১০টার দিকে অ্যানেসথেসিয়ার চিকিৎসক ডা. মাসুদ আলীর সহযোগিতায় গাইনি চিকিৎসক ডা. আঞ্জুমান আরা সিজারিয়ান অপারেশন করেন। অস্ত্রোপচারে প্রসূতি এক কন্যাসন্তানের জন্ম দেন। কিন্তু অস্ত্রোপচারের পর তার ব্যাপকহারে রক্তক্ষরণ শুরু হয়। একদিকে রক্তক্ষরণ অপরদিকে প্রেশার কমতে থাকে। রক্তক্ষরণ বন্ধ করতে না পারায় প্রায় দুই ঘণ্টা পর অপারেশন টেবিলেই প্রসূতি মারা যান। অবস্থা বেগতিক দেখে অপারেশন টেবিলে মরদেহ রেখেই চিকিৎসক ও নার্স পালিয়ে যান।
এদিকে দীর্ঘ সময় অপারেশন থিয়েটার থেকে প্রসূতিতে নিয়ে না আসায় স্বজনরা দেখতে যান। তারা অপারেশন থিয়েটারে প্রসূতিকে অচেতন অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন। ঘটনা জানাজানি হলে মৃতের স্বজন ও এলাকাবাসী হাসপাতালের চিকিৎসক-নার্স ও কর্মকর্তাদের ওপর চড়াও হয়। উত্তেজনা বিরাজ করলে থানা পুলিশকে অবগত করা হয়। দুপুর দেড়টার দিকে পুলিশ হাসপাতালে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে। ঘটনার পর পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আব্দুল মান্নান মিয়া ও সিভিল সার্জন কার্যালয়ের প্রতিনিধিরা ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যান। বিকেল ৩টার দিকে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।মৃতের স্বামী মারুফ হোসেন বলেন, সন্তান প্রসবের জন্য বাড়ি থেকে সুস্থ মানুষকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। এরপর বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়। সবকিছুই ঠিকঠাক ছিল বলে হাসপাতাল থেকে জানানো হয়। এরপর সিজারিয়ান অপারেশন করে স্ত্রী দ্বিতীয় কন্যাসন্তানের জন্ম দেয়। কিন্তু দীর্ঘ সময় অপারেশন থিয়েটার থেকে স্ত্রী বেরিয়ে না আসায় আমাদের সন্দেহ হয়। দেরি কেন হচ্ছে জানতে চাইলে কেউ কোনো সদুত্তর দিচ্ছিলেন না। একপর্যায়ে অপারেশন থিয়েটারে গিয়ে দেখি কোনো ডাক্তার নেই। স্ত্রীর মরদেহ অপারেশন টেবিলে পড়ে আছে।
তিনি অভিযোগ করে বলেন, ভুল অস্ত্রোপচারের কারণে স্ত্রীর মৃত্যু হয়েছে। তাই সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে চিকিৎসায় অবহেলায় দোষীদের বিচার হওয়া দরকার।এ ব্যাপারে গাইনি চিকিৎসক ডা. আঞ্জুমান আরার সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন তুলেননি ।
নওগাঁ ডায়াবেটিক সমিতি হাসপাতালের পরিচালনা কমিটির সহ-সভাপতি ও সিভিল সার্জন ডা. মুমিনুল হক বলেন, ঘটনার পর ঘটনাস্থলে ডেপুটি সিভিল সার্জনসহ দুই জনকে পাঠানো হয়েছিল। এ ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্তে চিকিৎসায় ভুলের কারণে রোগের মৃত্যুর প্রমাণ পাওয়া গেলে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।নওগাঁ ডায়াবেটিক সমিতি হাসপাতালের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ আব্দুস সালাম অপারেশনের সময় রোগীর মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে রোগীর মৃত্যু হয়েছে। নিহতের স্বজনরা মরদেহ নিয়ে গেছে। পরবর্তীতে বিষয়টি দেখব।নওগাঁ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সোহরাওয়ার্দী হোসেন বলেন, ঘটনার সংবাদ পেয়ে মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নেয়া হয়েছিল। কোনো অভিযোগ না থাকায় পরে রোগীর স্বজনেরা বাড়িতে নিয়ে যায়। তবে অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST