ঘোষনা:
শিরোনাম :
বিএনপি দন্ডপ্রাপ্ত দল, ভিডিও কনফারেন্সিং বিআরটিসি বাস উদ্বোধনে, ওবায়দুল কাদের। চট্টগ্রাম মেডিকেল ছাত্রাবাসে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ,কক্ষ ভাঙচুর। নীলফামারীতে মসলা বীজ উৎপাদন প্রকল্পের মাঠ দিবস ও রিভিউ ডিসকাশন। বরিশালের বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, হানিফ রাজধানীর ইবনেসিনা হাসপাতালে মৃত্যু বরন করেন। ডোমারে রাস্তার গাছ কাটার অভিযোগ। চট্টগ্রাম কারাগারে বন্দিকে হত্যা চেষ্টার অভিযোগে জেল সুপারসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা। রংপুরে নর্দাণ মেডিকেল কলেজ পরিচালকদের অবরুদ্ধ করেছে শিক্ষার্থীরা। কিশোরগঞ্জে নদীর বুক জুড়ে সবুজের সমারোহ। ডোমারে নববধূঁকে অপহরণের পর ধর্ষণ, গ্রেফতার-২ চট্টগ্রামে উচ্ছেদের মুখে লালদিয়ার চর ছাড়ছেন হাজারো পরিবার।
ড্রেস, জুতা, ব্যাগ কেনার জন্য বছরের শুরুতে এক কোটি ৪০ লাখ শিক্ষার্থী পাবে ৫০০ টাকা ।

ড্রেস, জুতা, ব্যাগ কেনার জন্য বছরের শুরুতে এক কোটি ৪০ লাখ শিক্ষার্থী পাবে ৫০০ টাকা ।

গ্রামপোষ্ট ডেস্ক ,
ড্রেস, জুতা, ব্যাগ কেনার জন্য বছরের শুরুতে এক কোটি ৪০ লাখ শিক্ষার্থীকে ৫০০ টাকা করে দেয়া হবে বললেন,প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন।আজ সোমবার (১৩ জানুয়ারি) বিকেলে সরকারি দলের সদস্য এম আবদুল লতিফের প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন বলেছেন, ‘প্রাথমিকের শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তির পাশাপাশি শিক্ষা সহায়ক উপকরণ (ড্রেস, জুতা, ব্যাগ) কেনার টাকা দেবে সরকার। বছরের শুরুতে এক কোটি ৪০ লাখ শিক্ষার্থীকে ৫০০ টাকা করে দেয়া হবে।’

তিনি বলেন, ‘বর্তমান সরকার শিক্ষার উন্নয়নের জন্য প্রাথমিক স্তরে উপবৃত্তি প্রদান ধারাবাহিকভাবে অব্যাহত রেখেছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীতে কোমলমতি ছাত্র-ছাত্রীদের স্কুলে যাওয়ার আনন্দকে আরও জোরালো করতে প্রতিটি স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীকে বছরের শুরুতে শিক্ষা উপকরণ (ড্রেস, জুতা, ব্যাগ) কেনার জন্য প্রাথমিকভাবে ৫০০ টাকা করে দেয়ার প্রস্তাব প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।’
তিনি বলেন, ‘স্কুলর সার্বিক পরিবেশ ও ছাত্র-ছাত্রীদের মানসিক অবস্থা আরও প্রফুল্ল করতে ছাত্র-ছাত্রীদের উপবৃত্তির পাশাপাশি শিক্ষা সহায়ক উপকরণ কিনতে প্রতিবছরের শুরুতে এককালীন ৫০০ টাকা করে দেয়া হবে। প্রকল্পটির মূল লক্ষ্য হলো- দারিদ্র-বিমোচন, শিক্ষার্থীদের শিক্ষা উপকরণ ক্রয়ের জন্য শিক্ষা সহায়তা প্রদান করা, যেন তারা সন্তুষ্টি এবং আনন্দের সঙ্গে স্কুলে যেতে পারে।’
সরকারি দলের সংসদ সদস্য নুরুন্নবী চৌধুরীর প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী জানান, ২০১৮ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত প্রধান শিক্ষক পদে সরাসরি নিয়োগযোগ্য ৩৫ শতাংশ অর্থাৎ তিন হাজার ৭১৬টি শূন্য পদে ৩৭তম বিসিএস হতে পিএসসির মাধ্যমে নিয়োগের জন্য পিএসসির সুপারিশ পাওয়া গেছে। এছাড়া প্রধান শিক্ষকের শূন্য পদ পূরণের কার্যক্রম চলমান রয়েছে। তাছাড়া প্রধান শিক্ষকের পদোন্নতিযোগ্য শূন্য পদে সহকারী শিক্ষকদের মধ্যে হতে পদোন্নতি/চলতি দায়িত্ব প্রদানের কার্যক্রম চলমান রয়েছে।
সরকারি দলের আরেক সদস্য মোরশেদ আলমের প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী জানান, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর সবশেষ তথ্য অনুযায়ী (২০১৮) দেশের স্বাক্ষরতার হার ৭৩ দশমিক ৯ শতাংশ। দেশের স্বাক্ষরতার হার বৃদ্ধির জন্য প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST