ঘোষনা:
শিরোনাম :
ডিমলায় সোনালী ব্যাংক কর্মকর্তার অপহরন মামলা, এলাকায় তোলপাড় ।

ডিমলায় সোনালী ব্যাংক কর্মকর্তার অপহরন মামলা, এলাকায় তোলপাড় ।

 

নীলফামারী প্রতিনিধিঃ
নীলফামারীর ডিমলায় সোনালী ব্যাংক ডিমলা শাখার সদ্য যোগদানকৃত সিনিয়র অফিসার রমেন চন্দ্র রায়ের ঘটনায় এলাকাজুড়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। এ ঘটনায় ছাত্রীর বিরুদ্ধে ব্যাংকটির ডিমলা শাখা ব্যবস্থাপক শরিফ হাসান বাদী হয়ে ডিমলা থানায় একটি অপহরন মামলা দায়ের করলে পুলিশ ছাত্রীটি গ্রেফতার করেন।জানা গেছে,নীলফামারী জেলার গোড়গ্রাম ইউনিয়নের ধোপা ডাঙ্গা গ্রামের ভদ্র নারায়ন রায়ের ছেলে ও সোনালী ব্যাংক ডিমলা শাখা সিনিয়র অফিসার রমেন চন্দ্র রায়(২৮) এর সাথে তার কাকার বড় শ্যালক জেলার ডোমার উপজেলার সদরের কলেজ পাড়ার ভবেন রায়ের মেয়ে ও অনার্স পড়–য়া ছাত্রী বিথী (২০)এর দীর্ঘ বছর থেকে গভীর প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিল। সোমবার(২৯শে এপ্রিল)দুপুরে ওই ছাত্রীটি প্রেমিক রমেন চন্দ্রের কর্মস্থল এলাকা ডিমলায় এসে প্রেমিকের আত্মসম্মানের কথা ভেবে ব্যাংকে না গিয়ে লোক মারফত প্রেমিক রমেনকে ডেকে ডোমারে নিয়ে যায়।এমন সময়ে ডিমলা সোনালী ব্যাংক শাখার ব্যবস্থাপক ঘটনাটি জানতে পেরে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ ও ডিমলা থানা পুলিশকে তার ব্যাংকের সিনিয়র অফিসারকে অপহরন করা হয়েছে অবগত করলে ডিমলা থানা পুলিশের প্রচেষ্টায় প্রেমিক-প্রেমিকা দুজনেই সোনালী ব্যাংক ডিমলা শাখায় ফিরে আসে । পুলিশ ব্যাংকের ব্যবস্থাপক শরিফ হাসান বাদী হয়ে ছাত্রীটি সহ নামীয় ৩জন এবং অজ্ঞাত ৪/৫জনকে আসামী করে অপহরন মামলা নং-২৪ দায়ের করলে পুলিশ ছাত্রীটি গ্রেফতার দেখান।এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সোনালী ব্যাংকের নীলফামারী এজিএম আব্দুর সুলতান বলেন,আমি বিষয়টি জেনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করব।ডিমলা থানার ওসি মফিজ উদ্দি শেখ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন,ব্যাংক অফিসার অপহরন মামলার গ্রেফতারকৃত আসামী বিথীকে মঙ্গলবার দুপুরে আদালতে পাঠানো হয়েছে।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST