ঘোষনা:
শিরোনাম :
শঙ্কামুক্ত নন অভিনেত্রী শারমিন আওয়ামী লীগ শাসনামলে দেশের ব্যাপক উন্নয়ন বিবেচনায় নিতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর নীলফামারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের ক্লাস প্রমোশন না দেয়ার প্রতিবাদে মানববন্ধন নীলফামারীতে সড়ক দূর্ঘটনায় আহত ৮ জন নীলফামারীতে পুলিশ সার্ভিস এসোসিয়েশনের শীতবস্ত্র বিতরণ কিশোরগঞ্জে বিদায়ী মাঘে শীতের হানা কিশোরগঞ্জে অপহরণের দায়ে পেশ ইমাম আটক-ছাত্রী উদ্ধার বিপদে পুলিশকে পাশে পেয়ে মানুষ যেন স্বস্তি বোধ করে তা নিশ্চিত করতে হবে : প্রধানমন্ত্রী উন্নয়নের বদলে শেখ হাসিনাকে ভোট উপহার দিন: চাঁপাইনবাবগঞ্জে নানক বিএনপির বক্তব্যে মনে হয় আওয়ামী লীগকে রাজপথে দেখে তারা ভীত : তথ্যমন্ত্রী
বাতিল হচ্ছে ট্রাম্পের জরুরি অবস্থা সিনেটে প্রথম ভেটো

বাতিল হচ্ছে ট্রাম্পের জরুরি অবস্থা সিনেটে প্রথম ভেটো

জিপি ডেস্ক ঃ

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জাতীয় জরুরি অবস্থা জারির বিষয়টি বাতিল করতে যাচ্ছে সিনেট। এর আগে মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণ ইস্যুতে দেশটিতে জরুরি অবস্থা জারির ঘোষণা দিয়েছেন ট্রাম্প। সিনেটের এ সিদ্ধান্তে এটিই হবে প্রেসিডেন্টের জারি করা জরুরি অবস্থার বিরুদ্ধে প্রথম ভেটো। সোমবার এ কথা বলেন রিপাবলিকান সিনেটর মিচ ম্যাককনেল। খবর সিএনএন ও এএফপির।

যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটে রিপাবলিকানরা সংখ্যাগরিষ্ঠ। তবে প্রতিনিধি পরিষদে ডেমোক্র্যাটদের আধিপত্য রয়েছে। এরই মধ্যে প্রতিনিধি পরিষদ ট্রাম্পের জরুরি অবস্থা ঘোষণার বিরুদ্ধে প্রস্তাব পাস করে তা অনুমোদনের জন্য সিনেটে পাঠিয়েছে। খুব শিগগির সিনেটে এ প্রস্তাবের ওপর ভোট হবে।

সিনেটে ৫৩-৪৭ আসনে এগিয়ে রিপাবলিকানরা। তবে চারজন রিপাবলিকান সিনেটর ট্রাম্পের ঘোষণা প্রতিহত করতে ডেমোক্র্যাটদের সমর্থন দিচ্ছেন। আরও কয়েকজন রিপাবলিকান ঘোষণা না দিলেও তারা ট্রাম্পের এ সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ভোট দেবেন বলে জানিয়েছেন। প্রেসিডেন্টের এভাবে নির্বাহী ক্ষমতা প্রয়োগকে তারা অশোভন বলে মনে করছেন।

গত সপ্তাহের শেষে সিনেটর র‌্যান্ড পলের যোগ দেওয়ার মধ্য দিয়ে প্রকাশ্যে চারজন রিপাবলিকান সিনেটর প্রতিনিধি পরিষদে পাস হওয়া প্রস্তাবের পক্ষে অবস্থান নিয়েছেন। এই প্রস্তাব ট্রাম্পের টেবিলে পাঠানো হচ্ছে। ট্রাম্পের ঘোষণার বিরুদ্ধে ভেটো দিতে কংগ্রেসের দুটি কক্ষে আলাদাভাবে দুই-তৃতীয়াংশ ভোটের প্রয়োজন হবে।

এর আগে দেয়াল নির্মাণ নিয়ে বাজেট ইস্যুতে বিতর্কের জেরে ৩৫ দিন বন্ধ ছিল ফেডারেল সরকারের একাংশের কাজকর্ম (শাটডাউন)। যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে যা রেকর্ড সৃষ্টি করেছে। পরে রাজনৈতিক চাপের কাছে নতিস্বীকার করে ফেডারেল সরকারের চাকা আবার সচল করেন তিনি। এ ইস্যুতে ডেমোক্র্যাটদের সঙ্গে ট্রাম্পের বাজেট বরাদ্দ নিয়ে দ্বন্দ্ব শুরু হয়েছে। মেক্সিকো সীমান্ত হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে অবৈধ অভিবাসীদের ঢল রুখতে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারের সময় থেকেই সীমান্তে দেয়াল নির্মাণের কথা বলে আসছিলেন ট্রাম্প। প্রেসিডেন্ট পদে ক্ষমতাসীন হওয়ার পর সেই দেয়াল নির্মাণে অনড় অবস্থানে যান যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট। ওই দেয়াল নির্মাণ কাজ শুরু করতে চলতি বছর কংগ্রেসের কাছে ৫৭০ কোটি ডলারও চেয়েছিলেন তিনি। পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভে সংখ্যাগরিষ্ঠ ডেমোক্র্যাটদের সঙ্গে এ নিয়ে মতানৈক্যের ফলে বাজেট বরাদ্দের অভাবে গত বছরের শেষ থেকে টানা ৩৫ দিন কেন্দ্রীয় সরকারের এক-চতুর্থাংশ বিভাগ ও সংস্থা বন্ধ হয়ে যায়। এ শাটডাউনের ফলে দেশটির প্রায় ৮ লাখ সরকারি কর্মচারী বেতনহীন অবস্থায় ছিলেন।

এর পর মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণে অর্থ সংগ্রহে কংগ্রেসের অনুমোদন পেতে ব্যর্থ হয়ে ১৫ ফেব্রুয়ারি জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেন ট্রাম্প। জরুরি ক্ষমতা বলে তিনি কংগ্রেসকে পাশ কাটিয়ে সামরিক নির্মাণ প্রকল্প বা দুর্যোগ তহবিল থেকে তার চাহিদামতো অর্থ সংগ্রহ করতে পারবেন। সমকাল ডেস্ক





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST