ঘোষনা:

খোলা চিঠি

নীলফামারীতে বিদ্যুৎ বিলে রাজস্ব টিকিট না দেয়ায় সরকার হারাচ্ছে বিপুল পরিমাণ রাজস্ব

 

৪শ টাকার উপরে বিদ্যুৎ বিল হলে গ্রাহকের প্রদান করা বিলে সরকারী রেভিনিউ ষ্ট্যাম্প লাগানোর সরকারি নিয়ম থাকলেও অসাধু ব্যাংক কর্মকর্তারা ওই ষ্ট্যাম্প না লাগানোর ফলে সরকার হারাচ্ছে বিপুল পরিমাণ রাজস্ব। দিন শেষে হিসেব করে সরকারের ওই রাজস্ব চলে যায় তাদের পকেটে। ব্যাংক কর্মকর্তাদের কারণে সরকার হারাচ্ছে বিপুল পরিমান রাজস্ব। এ ব্যাপারে মার্কেন্টাইল ব্যাংকে বিল গ্রহীতা কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসা করলে উনি বলেন, রেভিনিউ ষ্ট্যাম্প শেষ আনতে গিয়েছে। ২০ মিনিট পরে বললাম কই ভাই এখনো তো কেউ ষ্ট্যাম্প নিয়ে আসলো না। পরে উনি একজন কে ডেকে দুই হাজার টাকার রেভিনিউ আনতে দিলেন। এরপর উনি ৪শ টাকার নিচের বিলগুলি গ্রহন করে ছেড়ে দিচ্ছিলেন এবং ৪শ টাকার উপরের বিলগুলি ষ্ট্যাম্প লাগিয়ে ছাড়বেন বলে জানান। সাইফুল নামে এক গ্রাহক জানান যে, ৪শ টাকার উপরে হলে যে ষ্ট্যাম্প লাগাতে হয় বিষয়টি উনারা আগে জানতেন না।
নীলফামারী শহরের অন্যতম বিদ্যুৎ বিল গ্রহনকারী ব্যাংক হচ্ছে পূবালী ব্যাংক। এখানে ভিড় হওয়ার কারন হচ্ছে, ব্যাংকের অনেক বেশি জায়গা এবং নিচতলা এতে লোকজন তাদের সাইকেল এবং মটর সাইকেলের প্রতি নজর রাখতে পারেন। এখানেও ৪শ টাকার উপরে কোন বিদ্যুৎ বিলে রেভিনিউ ষ্ট্যাম্প লাগানো চোখে পড়লো না। একজনের ৮৭০ টাকার একটি বিল চেয়ে নিলাম এবং লাইনে দাড়ালাম। বিল দেয়ার পর দেখলাম রেভিনিউ নাই। উনাকে জিজ্ঞাসা করলাম ষ্ট্যাম্প কই? উনি বললেন এক হাজারের উপরের বিলে রেভিনিউ লাগানো হয়, আপনার তো এক হাজারের কম। মানে ইনি আমাকে ভুল বোঝাতে চাচ্ছেন। উনাকে বললাম ভাই আপনি তো এক হাজারের উপরের বিলেও ষ্ট্যাম্প লাগান না। উনি বললেন তাতে অসুবিধা কি? অফিশিয়াল বিল তো নয়, বাসা-বাড়ির বিল। নাম জিজ্ঞাস করলে উনি নাম বলেননি। কিন্তু পাশের এটিএম বুথের গার্ডের কাছে কৌশলে জিজ্ঞাসা করি ভাই বিদ্যুৎ বিল নিচ্ছেন উনার নাম কি? উনি জানান ঐ কর্মকর্তার নাম নুর। ব্যবস্থাপক সাহেব ছুটিতে থাকায় উনার সাথে কথা বলা যায়নি, উনার নাম্বারে ফোন করলে উনার পরিবর্তে ফোন ধরেন খোরসেদ সাহেব নামে একজন কর্মকর্তা। উনাকে বিষয়টি জানালে উনি বলেন বিষয়টি ব্যবস্থাপক সাহেবকে জানাবেন বলে লাইনটি কেটে দেন।
শহরের স্টাডার্ড ব্যাংকে চিত্র কিছুটা ভিন্ন, এখানে পল্লী বিদ্যুতের বিল বেশি হয়। আর টাকার পরিমানে ৪শ টাকার নিচের বিল-ই বেশী। তাই রেভিনিউ ষ্ট্যাম্পের পরিমানটাও কম।
সপ্তাহ খানেক পরেও বিদ্যুৎ বিল গ্রহনে রাজস্ব টিকিট না লাগানোর ব্যাপারটি পূর্বের মতই লক্ষ করা গিয়েছে।

হাসান জাহিদ

 

Hasan Jahid <amarmon1516@gmail.com>





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST