ঘোষনা:
শিরোনাম :
ডোমার উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেল ছাত্রী ,কনের বাবার ৭ দিনের জেল

ডোমার উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেল ছাত্রী ,কনের বাবার ৭ দিনের জেল

রতন কুমার রায়,ডোমার , নীলফামারী ,
নীলফামারী জেলার ডোমারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছাঃ উম্মে ফাতিমার হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে বোড়াগাড়ী বালিকা বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেনীর এক ছাত্রী। এ ঘটনায় ছাত্রীটির বাবা কে বাল্য বিয়ে দেওয়ার চেষ্টার অপরাধে ৭ দিনের জেল প্রদান করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। মঙ্গলবার রাতে উপজেলার বোড়াগাড়ী ইউনিয়নের নয়াবাড়ী এলাকায় ঘটনাটি ঘটে। ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক ও ডোমার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছাঃ উম্মে ফাতিমা এই সাজা প্রদান করেন। দন্ডপ্রাপ্ত কনের বাবা হলেন, উপজেলার বোড়াগাড়ী ইউনিয়নের নয়াবাড়ী এলাকার মোঃ আয়নাল হোসেন(৪২)।
জানাযায়,মঙ্গলবার রাতে আয়নাল হোসেন তার স্কুল পড়–য়া মেয়েকে বাল্য বিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার উম্মে ফাতিমা রাতেই ছাত্রীটির বাড়ীতে উপস্থিত হলে দেখতে পান বাড়ীতে বিয়ের আয়োজন চলছে। এ সময় উপজেলা নির্বাহী অফিসারের উপস্থিতি বুঝতে পেরে বিয়ের আয়োজনের লোকজন পালিয়ে যান। এ ঘটনায় ছাত্রীটির বাবা আয়নাল হোসেনকে আটক করে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে তাকে ৭ দিনের জেল প্রদান করেন ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক। ডোমার থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মোস্তাফিজার রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান দন্ডপ্রাপ্ত জয়নাল কে বুধবার জেলা কারাগাড়ে প্রেরন করা হয়েছে।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST