ঘোষনা:
শিরোনাম :
রিসোর্টে নারীকে নিয়ে, মামুনুলের ব্যক্তিগত বিষয়, এ নিয়ে হেফাজতের বক্তব্য নেই। নীলফামারী সৈয়দপুরে বৈশাখ আর ঈদের কেনাকাটায় ব্যাস্ত মানুষ। রাষ্ট্রপতির শোক বার্তা দিয়েছেন একুশে পদকপ্রাপ্ত রবীন্দ্রসংগীত শিল্পীর মৃত্যুতে। সাতক্ষীরায় ঘাতক সাগর গ্রেপ্তার, ‘২০০ টাকার জন্য বন্ধুকে খুন ’ ঘাতকের স্বীকারোক্তি। সীতাকুণ্ডে পুকুর থেকে যুবকের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।স্ত্রীকে আটক। চট্টগ্রামে করোনায় প্রাণ গেল এক চিকিৎসকের। কক্সবাজার সৈকতে আরও একটি মৃত তিমি ভেসে এসেছে । সাতক্ষীরায় করোনা মোকাবেলায় জেলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে মাস্ক বিতরণ। সাতক্ষীরায় দিনে ঘরে ঢুকে বন্ধুকে জবাই করে হত্যা ।হত্যাকারী পলাতক। খুলনা পিসিআর ল্যাবে ৬১ জন করোনা পজেটিভ শনাক্ত।
নীলফামারী সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানার  পরিত্যক্ত লোহা বিক্রির আয় সাড়ে ৩২ কোটি টাকা ।

নীলফামারী সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানার  পরিত্যক্ত লোহা বিক্রির আয় সাড়ে ৩২ কোটি টাকা ।

নীলফামারী প্রতিনিধি,

সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানার  পরিত্যক্ত লোহা (স্ক্র্যাপ) বিক্রির আয় সাড়ে ৩২ কোটি টাকা । দীর্ঘ দিনের এই সিন্ডিকেট ভেঙে পরিত্যক্ত লোহা বিক্রি করে পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ে সাড়ে ৩২ কোটি টাকা আয় করেছে। এই বিপুল পরিমাণ আয় হওয়ায় অভিনন্দন জানিয়েছে বাংলাদেশ রেলওয়ের রাজশাহীর প্রধান কার্যালয়।

রেলওয়ে সূত্র জানায়, দেশের বৃহত্তম সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানাসহ পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের বিভিন্ন ইয়ার্ডে পড়ে থাকা পরিত্যক্ত লোহা উন্মুক্ত দরপত্রে ২০১৭-১৮ অর্থবছরে বিক্রি করা হয়। পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের প্রধান সরঞ্জাম নিয়ন্ত্রক (সিওএস) প্রকৌশলী মো. বেলাল হোসেন ওই দরপত্র আহ্বান করেন।

একটি সূত্রের অভিযোগ, ইতিপূর্বে রেলওয়ের পরিত্যক্ত লোহা বিক্রি নিয়ে একটি মহল বরাবরই সক্রিয় ছিল। তারা সিন্ডিকেট করে এ খাত থেকে হাতিয়ে নেয় লাখ লাখ টাকা। বর্তমানে রেল প্রশাসন ওই সিন্ডিকেট প্রথা ভেঙে দেয়। ফলে ২০১৬-২০১৭ অর্থবছরে স্ক্র্যাপ বিক্রি করে আয় করেছিল সাড়ে ২৫ কোটি টাকা। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে তা দাঁড়ায় সাড়ে ৩২ কোটি টাকায়। অর্থাৎ প্রতি টন স্ক্র্যাপ বিক্রি হয়েছে ৩৮ হাজার টাকা দরে।

সূত্র জানায়, পূর্বাঞ্চল রেলওয়ে অর্থাৎ চট্টগ্রাম অঞ্চলে একই ধরনের স্ক্র্যাপ বিক্রি হচ্ছে ২০ হাজার টাকা প্রতি টন দরে। পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের আদলে পূর্বাঞ্চল রেলওয়েকেও স্ক্র্যাপ বিক্রি থেকে আয় বাড়াতে উদ্যোগ নিয়েছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। আগামী অর্থবছরে ওই খাত থেকে দ্বিগুণ আয় বাড়াতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেওয়া হয়।

পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপক মো. শহীদুল ইসলাম প্রধান সরঞ্জাম নিয়ন্ত্রককে আয় বাড়ানোর কারণে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে বৃহস্পতিবার পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের প্রধান সরঞ্জাম নিয়ন্ত্রক মো. বেলাল হোসেন জানান, ‘আমরা স্বচ্ছতা আনতে সক্ষম হয়েছি। ফলে স্ক্র্যাপ খাতে আয় বাড়ানো সম্ভব হয়েছে।’ ভবিষ্যতে এ খাত থেকে আরও বেশি টাকা আয় করা যাবে বলে জানান তিনি।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST