ঘোষনা:
শিরোনাম :
ডিমলায় তিস্তার চরে ভুট্টার বাম্পার ফলন। সাতক্ষীরায় করোনায় আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে মেডিকেল হাসপাতালে নারীসহ দুই জনের মৃত্যু। বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির উপজেলা শাখা গঠনের আলোচনা সভা । নীলফামারীতে চাঁদা দিতে না পারায়,ঘরে অগ্নিসংযোগ জোড়পূর্বক মাছ চুরি। সৈয়দপুরের তিন শিক্ষার্থীর ভর্তি অনিশ্চিত মেডিকেল কলেজে । করোনা আক্রান্ত জননেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন অনেকটা সুস্থ্য বোধ করছেন। লকডাউনে ১০টা -০১ টা পর্যস্ত খোলা থাকবে ব্যাংক সেবা। চাঁদ দেখা গেছে, বুধবার থেকে পবিত্র রমজান শুরু। শঙ্কিত হওয়ার কোনো কারণ নেই, সরকার সবসময় পাশে থাকবে;প্রধানমন্ত্রী। সিলেটে দক্ষিণ আফ্রিকা নারী ক্রিকেট দলের ৫ ক্রিকেটার করোনা শনাক্ত।
অফিসে তালা দিয়ে গাইবান্ধায় পৌর কর্মচারীদের দিনব্যাপি কর্মবিরতি পালন ।

অফিসে তালা দিয়ে গাইবান্ধায় পৌর কর্মচারীদের দিনব্যাপি কর্মবিরতি পালন ।

কামরুল হাসান, গাইবান্ধা প্রতিনিধি ,   

রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে বেতন ভাতা প্রদানের এক দফা দাবিতে সোমবার (০১ জুলাই) সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত অফিসে তালা দিয়ে পৌর কার্যালয়ের সামনে কর্মকর্তা-কর্মচারিরা দিনব্যাপী কর্মবিরতি পালন করে। বাংলাদেশ পৌরসভা সার্ভিস এসোসিয়েশনের পূর্ব ঘোষিত কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে গাইবান্ধা পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা দুই দিনের এই অবস্থান কর্মসূচি পালন করছে। একইভাবে জেলার গোবিন্দগঞ্জ ও সুন্দরগঞ্জ পৌরসভাতেও এই কর্মসূচি পালিত হয়।

অবস্থান কর্মসূচি চলাকালে গাইবান্ধা পৌর কর্মচারী সংসদের সভাপতি অমিতাভ চক্রবর্তী রিন্টুর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, গাইবান্ধা পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী এবিএম সিদ্দিকুর রহমান, সহকারী প্রকৌশলী রেজাউল হক, বাংলাদেশ পৌরসভা সার্ভিস এসোসিয়েশনের কেন্দ্রীয় সহ-প্রচার সম্পাদক বিপুল কুমার সাহা, গাইবান্ধা জেলা পৌর সার্ভিস এসোসিয়েশনের সভাপতি নজরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক মিলন কুমার সরকার, সাংগঠনিক সম্পাদক রবিউল ইসলাম, পৌর কর্মচারী সংসদের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান, সহ-সাধারণ সম্পাদক সূচনা সরকার, সাবেক সভাপতি আব্দুল আহাদ বাবু, অসিম কুমার মহন্ত, যুধিষ্ঠির চন্দ্র সরকার, নুর হোসেন প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, দেশের ৩২৭টি পৌরসভার মধ্যে অধিকাংশ পৌরসভায় কর্মকর্তা-কর্মচারীরা নিয়মিতভাবে বেতন-ভাতা পান না। অনেক পৌরসভায় দুই মাস থেকে সাড়ে ছয় বছর পর্যন্ত বেতন ভাতাদি বকেয়া রয়েছে। এমনকি কোথাও কোথাও উৎসব ভাতা হতেও বঞ্চিত হচ্ছেন কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। ফলে তারা তাদের পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করতে বাধ্য হচ্ছেন। বক্তারা অবিলম্বে চাকরি জাতীয়করণের এক দফা দাবী মেনে নেয়ার জন্য সরকারের প্রতি জোর দাবি জানান।

উল্লেখ্য, অবস্থান কর্মসূচি চলাকালে পৌরসভার সকল নাগরিক সেবা এ সময় বন্ধ থাকায় সেবা গ্রহীতারা এসে ফেরত যান। বিশেষ করে জন্ম নিবন্ধন সনদ, নাগরিকত্ব সনদ, মৃত্যু সনদ, ওয়ারিশ সনদ নিতে এসে সেবা গ্রহীতরা দূর্ভোগে পড়েন। সেবা নিতে আসা পৌর এলাকার কুঠিপাড়ার মিজানুর রহমান (৩২) বলেন,‘ আমার ভাইয়ের মৃত্যু সনদ নিতে এসে না পেয়ে বাধ্য হয়ে বাড়িতে ফিরে যেতে হলো।’





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST