ঘোষনা:
শিরোনাম :
সাতক্ষীরার শ্যামনগরে আত্মসমর্পনকারী বনদস্যুর মাঝে ঈদ উপহার সাতক্ষীরার দুটি উপজেলায় ভূমিহীন ও গৃহহীনদের চাবী ও দলিল দিয়ে ভূমিহীন ও গৃহহীন মুক্ত ঘোষণা নীলফামারীতে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও জমির মালিকানা বহালে সংবাদসম্মেলন মিথ্যা প্রলোভনে পাহাড়ের নারীদের পাচার করছে একটি সংবদ্ধ চক্র সাতক্ষীরায় ভাঙান মাছ চাষ পদ্ধতি ও ব্যবস্থাপনা বিষয়ক কর্মশালা গ্রামীণব্যাংকের সেবার মান বাড়ানোর প্রতিশ্রুতি, নীলফামারীতে কোরবানির জন্য প্রস্তুত ২ লাখ ৭৬ হাজার ২০১টি পশু নীলফামারীতে প্রযুক্তিগত দক্ষতা বৃদ্ধিতে নারীদের ছয় মাস ব্যাপি প্রশিক্ষণের উদ্বোধন চট্টগ্রামে টাকার জন্য মাকে কুপিয়ে হত্যা, ছেলেকে আটক করেছে পুলিশ যুবদলের নির্যাতিত নেতৃবৃন্দের সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত
পিরোজপুরে তিন সন্তানকে হত্যার দায়ে বাবাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

পিরোজপুরে তিন সন্তানকে হত্যার দায়ে বাবাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

পিরোজপুর প্রতিনিধি,

পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া উপজেলায় তিন সন্তানকে হত্যার দায়ে বাবাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। ২০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। পিরোজপুরের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ সামছুল হক এ রায় দেন।

সাজা পাওয়া  জাকির হোসেন (৪৯) উপজেলার ধাওয়া নলকাটা গ্রামের বাসিন্দা। রায় ঘোষণার সময় জাকির আদালতে উপস্থিত ছিলেন। আসামিপক্ষের আইনজীবী ছিলেন কানাই লাল বিশ্বাস। তিনি বলেন, ‘আমরা এই রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করব।’ সরকারপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন সহকারী সরকারি কৌঁসুলি (এপিপি) জহুরুল ইসলাম।  মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণ ও আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১২ সালের ৯ অক্টোবর দুপুরে জাকির তাঁর স্ত্রী লিপি বেগম (৩০), ছেলে সোহাগ হাওলাদার (১৪) ও ইমরান হাওলাদার (৮) এবং মেয়ে সুলতানা আক্তারকে (৬) দা দিয়ে কুপিয়ে জখম করেন। এ সময় আহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করতে গিয়ে জাকির দায়ের কোপে বড় ভাই আবুল হোসেনও জখম হন। স্থানীয় লোকজন লিপি, সোহাগ, ইমরান, সুলতানা ও আবুলকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে নেওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক ইমরান ও সুলতানাকে মৃত ঘোষণা করেন। গুরুতর অবস্থায় লিপি ও সোহাগকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সন্থান্তর করা হয়। পরে সেখান থেকে সোহাগকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোহাগ মারা যায়। এ ঘটনায় আবুল ছোট ভাই জাকিরে বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেন। এর আগে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় জাকিরকে আটক করে পুলিশ। ২০১৩ সালের ২৫ মার্চ পুলিশ জাকিরের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেয়। মামলার ১৩ জনের সাক্ষ্য নেন আদালত।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST