ঘোষনা:
শিরোনাম :
ডোমারে সন্ত্রাসী হামলার স্বীকার প্রতিবন্ধী পরিবার, মামলা তুলে নেওয়ার হুমকী প্রদান নীলফামারীতে জাতীয় দক্ষতামান বেসিক ট্রেড কোর্সকে কারিগরি শিক্ষাবোর্ডে চলমান রাখার দাবীতে মানববন্ধন। নীলফামারীতে দূর্গা পুজা মন্ডপ পরিদর্শন করেছেন রংপুর বিভাগীয় কমিশনার। ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়ার নবীনগে দেশের অন্যতম মূর্তি তৈরী ও বিকিকিনি নীলফামারী সার্কেল অফিস এবং পুলিশ সুপার কার্যালয় পরিদর্শন নীলফামারী কমিটির পক্ষে পুরস্কার গ্রহণ করেন জেলা প্রশাসক খাগড়াছড়িতে ৬ষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্রী ধর্ষনের অভিযোগে ২ যুবক আটক নীলফামারীতে পুলিশ সুপারের সাথে হিন্দু ধর্মালম্বীদের মতবিনিময় নীলফামারীতে সামাজিক-সম্প্রীতি সমাবেশ হয়েছে। ডিমলায় কৃষক সমাবেশ ও আলোচনা সভা
স্থানীয় নির্বাচনে আ.লীগের বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা,শোকজের জবাব,না দিলে বহিষ্কার ।

স্থানীয় নির্বাচনে আ.লীগের বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা,শোকজের জবাব,না দিলে বহিষ্কার ।

নূর সিদ্দিকী ,ঢাকা,
স্থানীয় সরকার নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী বিদ্রোহী প্রার্থী, ইন্দনদাতা ও তাদের সহযোগিতাকারী মন্ত্রী, সংসদ সদস্য ও নেতাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা বা শাস্তির বিষয়টি চূড়ান্ত হবে। আজ শনিবার তাদের কার কার বিরুদ্ধে কী কী অভিযোগ সাংগঠনিক সম্পাদকরা যৌথসভায় তা তুলে ধরবেন। নেতাদের অভিযোগের ওপর নির্ভর করে শাস্তির বিষয়টি নির্ধারণ করা হবে। তবে যে শাস্তিই হোক না কেন অভিযুক্ত নেতারা আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ পাবেন। দলের একজন সাংগঠনিক সম্পাদক বলেন, ‘আজকের যৌথসভায় সিদ্ধান্তের পর অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কারণ দর্শানোর (শোকজ) নোটিশ যাবে। তাদের তিন সপ্তাহ সময় দেয়া হবে নোটিশের জবাব দেয়ার জন্য। এর মধ্যে যারা জবাব দেবেন তাদের জবাবের গ্রহণযোগ্যতার ওপর ভিত্তি করে শাস্তি নির্ভর করবে। আর যারা শোকজের জবাব দেবেন না তাদেরকে দল থেকে বহিষ্কার করার মতো সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।’
দলের একটি সূত্র জানায়, তাদের শাস্তি কী হতে পারে সে বিষয়ে দলের কার্যনির্বাহী কমিটির বৈঠকে আলোচনা হয়ে গেছে। দলের সভাপতি সাধারণ সম্পাদকের কাছে বিষয়টি বলা হয়েছে। দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে যেসব নেতা স্থানীয় সরকার নির্বাচনে বিদ্রোহী হয়ে দল মনোনীত প্রার্থীর বিরুদ্ধে লড়েছেন তাদের দলীয় পদ থেকে অব্যাহতি দেয়া হবে। এ-সংক্রান্ত চিঠি শিগগিরই কেন্দ্রীয় দফতর থেকে ওইসব প্রার্থীর কাছে ডাকযোগে পাঠানো হবে। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এক প্রশ্নের জবাবে  বলেন, ‘স্থানীয় সরকারের বিভিন্ন নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে দাঁড়িয়ে বা বিদ্রোহী প্রার্থীদের ইন্দন দিয়ে যারা দলে শৃঙ্খলা ভঙ্গ করেছেন তাদেরকে শোকজ করা হবে। তিন সপ্তাহের মধ্যে তারা শোকজের জবাব দেবেন। আওয়ামী লীগের হাইকমান্ড তা যাচাই-বাছাই করে দলীয় সিদ্ধান্তের বিপক্ষে অবস্থানকারীদের বিরুদ্ধে চূড়ান্ত সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করবে। জবাব সন্তোষজনক না হলে তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ বিষয়ে শনিবার দলের যে যৌথসভা হবে সেখানে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গৃহীত হবে।’ কী ধরনের শাস্তি হতে পারে-এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘সেটাও যৌথসভায় সিদ্ধান্ত নেয়ার পর বলা যাবে।’ দলের দফতর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ স্বক্ষরিত এক বিবৃতিতে বলা হয়, আওয়ামী লীগ সম্পাদকমণ্ডলীর সঙ্গে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক এবং সহযোগী সংগঠনের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকদের এক যৌথসভা শনিবার বেলা ১১টায় আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হবে।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST