ঘোষনা:
শিরোনাম :
নরসিংদীর রায়পুরায় গোলাগুলিতে এক কিশোর নিহত।আহত ৭জন। বাংলাভিশনের গাজীপুর প্রতিনিধির ব্যক্তিগত প্রাইভেটকারে ট্রাকের ধাক্কায় গাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত । খুলনার ভৈরব নদ থেকে কিশোরের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় পানিতে ডুবে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। নীলফামারীর ডোমারে করোনা প্রতিরোধে ভ্রাম্যমান প্রচারণার উদ্বোধন । বাগেরহাট সদরের তালশাস কাটাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে নিহত -১ চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর এলাকায় ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব-৫। চট্টগ্রামে মিতু হত্যা মামলায় আরও দুই আসামিকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে ১৪ দিন পর ঢাকায় ফেরার অনুরোধ ২৩ মে পর্যন্ত লকডাউনে নতুন দুটি প্রজ্ঞাপন জারি।
পল্লী বিদ্যুতের লাইন নির্মাণে অনিয়ম দুর্নীতি—৪,নীলফামারী পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড দালালের দখলে । নীলফামারী পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের পোল দালালের দায়িত্বে ……………..।

পল্লী বিদ্যুতের লাইন নির্মাণে অনিয়ম দুর্নীতি—৪,নীলফামারী পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড দালালের দখলে । নীলফামারী পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের পোল দালালের দায়িত্বে ……………..।

নূর সিদ্দিকী, বিশেষ প্রতিবেদক ,
ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌনছে দেওয়ার লক্ষে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষনা বাস্তবায়নে নীলফামারী জেলায় পল্লী বিদ্যুতের কিশোরগঞ্জ ও সদর উপজেলাকে শতভাগ বিদুৎ ঘোষনার পর এবার জলঢাকা,ডোমার,ডিমলা উপজেলায় প্রত্যান্ত অঞ্চলে প্রান্তিক জনগোষ্টির মাঝে শতভাগ বিদ্যুৎ পৌছে দেওয়ার লক্ষ্যে পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের অধিনে গ্রাম,পাড়া,মহল্লায় তিনটি প্রকল্পের মাধ্যমে লাইন নির্মাণের কাজ চলছে দ্রুত গতিতে। তেমনি এলাকায় দালালরা অনেক ব্যাস্ত লাইনের পোল নিয়ে এলাকায় ফেলতে,যেন তাদের দখলে পল্লী বিদ্যুতের নির্বাহী,তাদের অনেকটা দায়িত্ব ভাগ করে দিয়েছে বললেন গ্রাহকরা।
ডিম-এফ-১৫১ লডের দালাল জাহাঙ্গীর ঠিকাদার কালামের ম্যাধ্যমে উক্ত লডে ৪টি পোল অবৈধ্যভাবে নির্মাণ করে।মধ্য সোনাখুলি চাপানি সবুজ পাড়া গ্রামে ৩০ হাজার টাকা নিয়ে লাইন নির্মাণ করে।যাহার পরিপ্রেক্ষিতে নির্বাহী প্রকৌশলী নাফিউল ইসলাম কিছুই করে নাই।গ্রাহকরা তাকে অফিসে এসে জানিয়েছে।উল্টো গ্রাহকদের দালাল বানিয়ে পুলিশে দেয়ার হুমকি দিয়েছে।ডিম-সি-৪২ প্যাকেজ নং ২১৭-১-ডিএনই প্রকল্পের মধ্য সন্দুর খাতা ডিমলার গ্রাহকরা অনেক ঘুরাঘুরি করেও কোন লাভ না হওয়ায়।লেবার সদদার রবিউল ইসলামের মাধ্যমে গ্রাহক নিজে ২৫ হাজার টাকা লেনদেন করে গত বৃহস্পতিবার ২৫ জুলাই দালাল ফুলচানের মাধ্যমে পোল এলাকায় নিয়ে যায়।ডিম-এ-১২৪ লডে ঠিকাদার আশরাফের পোষা দালাল মোস্তফা ও জুয়েলের মধ্যমে ৩০ হাজার টাকা নিয়ে ১১টি পোল প্রায় পনে এক কিলোমিটার লাইনের পোল পায় গ্রাহক।আকাশকুড়ি এলাকার ডিম-বি-১৭০ লডের ভিআইপি দালাল নাউতারা বাজারের পাশে বাড়ী বাবুল ঠিকাদার আশরাফের মাধ্যমে ৬৫ হাজার টাকা নিয়ে লাইন নির্মাণ কাজ চলমান আছে।গ্রাহকরা বলছে আরও টাকা দিতে হবে লাইন নির্মাণের পর মিটার ও ওয়ারিং করতে হবে।প্রতি সংযোগ ১০ থেকে ১৫ হাজার টাকা পরবে।এলাকায় কোন উর্ধতন কর্মকর্তা এসেছেন কিনা এমন প্রশ্ন করতে গ্রাহকরা বলেন,স্যাররা এসি বাতাস ছেরে গ্রামে মরতে আসবে,দরকার কি।ঘরে বসেই লাখ লাখ টাকা গরমে মরতে আসবে।অপরদিকে ১৬-১৭ অর্ধ বছরে লাইন ডিজাইন করতে গিয়ে উপদেষ্টা প্রতিষ্ঠানের ইঞ্জিনিয়াররাও টাকা লেন দেন করেছে।এমন অভিযোগ করেছে গ্রাহকরা।ডিম-বি-৯৬-পি-২ এলাকা পশ্চিম ছাতনাই সিট তৈরী করে আব্দুল কাইয়ুম ।গ্রাহক ১৭৫ জন ৫০০-৭০০টাকা করে দেয় ।উক্ত এলাাকায় ইন্জিনিয়ার লিমন একই এলাকায় ডিজাইন করে। প্রতি গ্রাহক ১ হাজার করে ১৫৬ জন গ্রাহকে কাজ থেকে টাকা তোলেন।
পল্লী বিদ্যুতের লাইন নির্মাণে গ্রাহকের অনেক অজানা কথা নিয়ে আরও থাকছে আগামীতে।
চলবে—-





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST