ঘোষনা:
ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি ।যানজটে নাকাল যাত্রী আর পরিবহন সংশ্লিষ্টরা।

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি ।যানজটে নাকাল যাত্রী আর পরিবহন সংশ্লিষ্টরা।

টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধি ,
ঈদের ছুটি শুরুর দিন ৮ আগস্ট থেকে আজ ১১ আগস্ট পর্যন্ত যানজটে স্থবির ঢাকা টাঙ্গাইল বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়ক। দেশের উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গের ২২টি জেলার সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ এ সড়ক পথটি ঈদযাত্রায় এখন ঘরমুখো মানুষের ভোগান্তির একটি কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছে। রোববার দুপুর পর্যন্ত কোথাও কোথাও ধীরগতি আবার কোথাও কোথাও ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজটে আটকে ছিল যানবাহন।

 


যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন আর দেশের সর্ববৃহৎ বঙ্গবন্ধু সেতুটি নির্মিত হলেও এ মহাসড়ক পথটিতে প্রতিটি ঈদযাত্রায় যানজটে নাকাল হচ্ছেন যাত্রী আর পরিবহন সংশ্লিষ্টরা।
অতিরিক্ত যানবাহনের চাপ ও বঙ্গবন্ধুসেতুর পশ্চিম অংশে সিরাজগঞ্জের হাটিকুমরুল, নলকা ব্রিজ, কড্ডা এলাকায় গাড়ি টানতে না পারাসহ সড়ক ব্যবস্থা চরম খারাপ থাকার কারণে দীর্ঘ যানজটে যাত্রী আর পরিবহন সংশ্লিষ্টদের কাছে অকার্যকর হয়ে পড়ছে দেশের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এ মহাসড়কটি। চলতি ঈদের ছুটিতেও এর ব্যতিক্রম ঘটেনি। ঈদ ছুটির শুরু গত বৃহস্পতিবার মধ্য রাত থেকে আজ রোববার দুপুর পর্যন্ত কোথাও কোথাও ধীরগতি আবার কোথাও কোথাও কোথাও ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজটে আটকে ছিল যানবাহন। এরই মধ্যে ছিল গত গত ৮ আগস্ট থেকে ১১ আগস্ট পর্যন্ত ১৪ বারে প্রায় ৭ ঘণ্টা সেতুর টোল আদায় বন্ধ। যা মহাসড়কের এ ভুক্তভোগীদের ওপর মরার খরার ঘা হয়ে রূপ নিয়েছে। রোববার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত অতিরিক্ত যানবাহনের চাপ ও বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম অংশে সিরাজগঞ্জে গাড়ি টানতে না পারার কারণে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এতে বঙ্গবন্ধু সেতু থেকে টাঙ্গাইল পাকুল্লা পর্যন্ত প্রায় ৪০ কিলোমিটার জুড়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা আটকে ছিল শত শত গাড়ি। এর ফলে চরম দুর্ভোগ পোহান যাত্রীরা। বিশেষ করে বৃদ্ধ শিশু ও নারী যাত্রীদের দুর্ভোগ ছিল বেশী। দীর্ঘ সময় যানজটে আটকা পড়ে যাত্রীরা বিক্ষুদ্ধ হয়ে উঠেছে। তারা রাস্তায় নেমে ঢাকামুখী লেন দিয়ে চলাচল করা যানবাহন আটকে দিচ্ছে। এমনিক রোগী বহন ছাড়া কোনো এম্বুলেন্সও যেতে দিচ্ছে না। মহাসড়কে আটকে থাকা উত্তরবঙ্গগামী যাত্রী ফরিদ মিয়া ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, বছরের পর বছর কাজ করা স্বত্বেও মহাসড়কের কাজ হয় না শেষ। যার ফলে এ মহাসড়কে পরিবহন চলাচলে সৃষ্টি হচ্ছে সমস্যা। কর্তৃপক্ষ এ দিকে নজর না দিয়ে টিভিতে যানজট নেই বলে বড় বড় বক্তব্য দিচ্ছেন। এছাড়াও ঈদের আগে থেকে শুরু করেন মহাসড়ক দিয়ে স্বাভাবিক চলাচলের সুবিধার কথা। তবে বাস্তবে তো আমরা এর কিছুই পাই না। এ অবস্থার উন্নতির দাবি জানান তিনি।
উত্তরবঙ্গগামী ট্রাক চালক রহিম মিয়া বলেন, ভোরে গাবতলী হাটে গরু নামিয়ে রওনা দিয়েছি আর এখন বাজে দুপুর ১টা আটকা রয়েছি টাঙ্গাইল বাইপাসে। তাহলে কখন পৌঁছাবো রাজশাহী এ নিয়ে চরম দুঃচিন্তায় আছি। টাঙ্গাইল হাইওয়ে ট্রাফিক পুলিশের পরিদর্শক (টিআই) ইফতেখার নাসির রোকন জানান, সিরাজগঞ্জ অংশে গাড়ি টানতে না পারার কারণে আজ সকালেও বঙ্গবন্ধু সেতুর টোল আদায় দুই দফা বন্ধ ছিল। এ কারণে দীর্ঘ এ যানজট হয়েছে। এছাড়াও মহাসড়কে ফিটনেসবিহীন গাড়ি চলাচল করাসহ যত্রতত্র সেগুলো বিকল হয়ে যাবার কারণেও যানজট দীর্ঘ হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষের নির্বাহী প্রকৌশলী আহসানুল কবির জানান, সেতুর টোল আদায় বন্ধ করা হয়নি। সেতুর উপর দিয়ে যানবাহন আটকে থাকলে টোল আদায় করা এমনিতেই সম্ভব হয়না।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST