ঘোষনা:
শিরোনাম :
কিশোরগঞ্জে পবিত্র ঈদ-উল ফিতরের আগে সরকারী আর্থিক সহায়তা না পাওয়ার শংকায়  সুবিধাভোগীরা। নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে ইফতার কিনতে যাওয়া হলনা শরিফুদ্দিনের । ডোমারে শিক্ষার্থীদের জন্য অভিভাবকদের মাঝে খাবার বিতরণ। যশোরের বেনাপোল কাস্টমস হাউস দেশের প্রথম ডিজিটাল কাস্টমস হাউসে উন্নীত। স্বেচ্ছাসেবক লীগের ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সদস্যদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী প্রদান। করোনা কালীন পরিস্থিতি ও পবিত্র মাহে রমজান উপলক্ষে দুই শতাধিক অসহায় পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ। কিশোরগঞ্জে সিটিজেন চার্টার না থাকায় মৎস্য চাষীরা সেবা বঞ্চি। নীলফামারীতে প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা ইফতার উপহার পেলেন অসহায় ও দরিদ্র মানুষ। নীলফামারীতে ভুল চিকিৎসায় পঙ্গু জাহিদুল, পরিবার বাঁচাতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা। চট্টগ্রামে করোনায় আরো ৫ জনের মৃত্যু ।
জাতীয় শোক দিবসে সংঘর্ষের ঘটনায় জলঢাকায় আ’লীগের সভাপতি-সম্পাদকসহ আসামী ॥ গ্রেফতার-৫

জাতীয় শোক দিবসে সংঘর্ষের ঘটনায় জলঢাকায় আ’লীগের সভাপতি-সম্পাদকসহ আসামী ॥ গ্রেফতার-৫

ফাইল ছবি । ।গ্রাম পোষ্ট।
জলঢাকা (নীলফামারী) প্রতিনিধি ,
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসে নীলফামারীর জলঢাকায় আওয়ামী লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশের করা একটিসহ তিনটি মামলা দায়ের হয়েছে। এতে উপজেলা আ’লীগের সভাপতি আনছার আলী মিন্টু,সাধারন সম্পাদক সহীদ হোসেন রুবেল,সাবেক এমপি অধ্যাপক গোলাম মোস্তফাসহ সহস্রাধিক নেতাকর্মীকে আসামি করা হয়েছে। এ ঘটনায় শুক্রবার গভীর রাতে বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে পাঁচ জনকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হলেন, মীরগঞ্জ ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক হেলালুজ্জামান হেলাল, যুবলীগ সদস্য হারুন-অর রশিদ রাসেল, বালাগ্রাম ইউনিয়ন আ’লীগ ওয়ার্ড সম্পাদক ইবনে নুর,ইন্দ্রোজিৎ রায়, ছাত্রলীগ কর্মী মিল্লাত হোসেন। জানা যায়, গত ১৫ আগষ্ট শোক দিবসের কর্মসূচী চলাকে কেন্দ্র করে আ’লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় ওই দিন রাতে উপজেলা আ’লীগ সভাপতি আনছার আলী মিন্টু বাদি হয়ে সাবেক এমপি অধ্যাপক গোলাম মোস্তফাসহ ৭০জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাত আরও ৫শত জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। অপরদিকে একই দিনে পৌর আ’লীগ সভাপতি আশরাফ হোসেন বাদি হয়ে উপজেলা আ’লীগ সভাপতি আনছার আলী মিন্টু,সাধারন সম্পাদক সহীদ হোসেন রুবেলকে প্রধান করে নামীয় ৬৩ ও অজ্ঞাত ১৫০ জনকে আসামি করে মামলা করেন। ১৫ আগষ্টের আ’লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় জলঢাকা থানার এসআই মামুন-অর রশিদ হামলার শিকার হন। এ ঘটনায় এসআই আব্দুর রশিদ বাদি হয়ে ২০ জনের নাম উল্লেখ করে এবং আরো ১৫০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে মামলা দায়ের করেন। এ বিষয়ে জলঢাকা থানা অফিসার ইনচার্জ মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ১৫ আগষ্ট জাতীয় শোক দিবসের উপজেলা আ’লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় ৩ মামলায় এ যাবত গ্রেফতার হয়েছে ৫ জন। বাকীদের গ্রেফতারের বিষয়ে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে। উল্লেখ্য জলঢাকায় জাতীয় শোক দিবসের কর্মসূচীকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুইপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে পাঁচ পুলিশ সদস্যসহ সাতজন আহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার দুপুর ও বিকালে দু’দফায় জলঢাকা পৌরশহরে বঙ্গবন্ধু চত্ত্বর এলাকায় ঘটনাটি ঘটে। এ ঘটনায় পুলিশ ১৩ রাউন্ড টিয়ার শেল ও ১৫ রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। #





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST