ঘোষনা:
শিরোনাম :
পতেঙ্গা সমুদ্রসৈকতে বৈদ্যুতিক বাতির সংযোগ বিচ্ছিন্ন ,সন্ধ্যা নামলে প্রায় পুরো এলাকা ঘুটঘুটে অন্ধকার।

পতেঙ্গা সমুদ্রসৈকতে বৈদ্যুতিক বাতির সংযোগ বিচ্ছিন্ন ,সন্ধ্যা নামলে প্রায় পুরো এলাকা ঘুটঘুটে অন্ধকার।

চট্টগ্রাম প্রতিবেদক,
পতেঙ্গা সমুদ্রসৈকতে চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহে বাতির সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়ায় সন্ধ্যা নামলে প্রায় পুরো এলাকা ঘুটঘুটে অন্ধকার হয়ে পড়ছে। চট্টগ্রাম পতেঙ্গা সমুদ্রসৈকতে বৈদ্যুতিক বাতির সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি)। এতে পর্যটনকেন্দ্রের নিরাপত্তাব্যবস্থা স্বাভাবিক রাখতে হিমশিম খাচ্ছে পুলিশ।
চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ) পতেঙ্গার সমুদ্রসৈকতের পাশে আউটার রিং রোড নির্মাণ করছে। এই প্রকল্পের আওতায় সৈকতের পাঁচ কিলোমিটার এলাকায় সৌন্দর্যবর্ধন করে। সৈকতের নান্দনিক সৌন্দর্য উপভোগ করার জন্য আগের তুলনায় কয়েক গুণ দর্শনার্থী বৃদ্ধি পায়। ছুটির দিনে দর্শনার্থীর সংখ্যা লাখ ছাড়িয়ে যায়।
সিডিএ, নগর পুলিশ ও পিডিবি সূত্র জানায়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত ২৪ ফেব্রুয়ারি কর্ণফুলী নদীর তলদেশে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেলের নির্মাণকাজের উদ্বোধন করেন। এই উপলক্ষে পতেঙ্গা সমুদ্রসৈকত এলাকায় সুধী সমাবেশের আয়োজন করা হয়। এই উপলক্ষে ২৩ ফেব্রুয়ারি সেখানে সাময়িকভাবে বিদ্যুৎ সংযোগ দেয় পিডিবি। এরপর বিদ্যুৎ বিল আসে ২ লাখ ১৭ হাজার ৩৫৯ টাকা। এ জন্য বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়। তবে সিডিএর লাগানো ৪০টি সৌরবাতি রয়েছে।
নগরের পতেঙ্গা এলাকার বাসিন্দা শাহেদ হাসান বলেন, বৈদ্যুতিক বাতি না থাকায় সৈকত এলাকার সেই নান্দনিক সৌন্দর্য আর নেই। তার চেয়েও আশঙ্কার বিষয় হলো, নিরাপত্তার কারণে এখন রাতের বেলায় সেখানে যাওয়া হয় না। বিশেষ করে নারী-শিশু নিয়ে বেড়াতে আসা লোকজন বিপাকে পড়ছে।
পুলিশ জানায়, সৈকতের মূল অংশে সৌরবাতি থাকলেও তা পর্যাপ্ত নয়। রাতে আলোক স্বল্পতার কারণে সৈকতে আসা দর্শনার্থীরা নিরাপত্তাহীনতাসহ নানা সমস্যা পড়ছেন। বৈদ্যুতিক বাতি না থাকায় রাতের বেলায় ছিনতাই, মাদক সেবনসহ অসামাজিক কার্যকলাপ বৃদ্ধি পেয়েছে। এসব অপরাধমূলক কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণ রাখতে পুলিশ হিমশিম খাচ্ছে।
পতেঙ্গা থানার ওসি উৎপল বড়ুয়া বলেন, সৈকতের মতো পর্যটনকেন্দ্রে বৈদ্যুতিক বাতি না থাকার কারণে কাজ করতে খুব বেগ পেতে হচ্ছে। কোনো ধরনের অঘটন এড়ানোর জন্য অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করতে হয়েছে।যোগাযোগ করা হলে সিডিএর ভারপ্রাপ্ত প্রধান প্রকৌশলী এ এ এম হাবিবুর রহমান বলেন, পিডিবি নিজের উদ্যোগে বাতিগুলো লাগিয়েছে। সিডিএর প্রকল্পের কাজের আওতায় এখনো সেখানে বাতি ও খুঁটি স্থাপন করেনি। আপাতত সৌরবাতি স্থাপন করা হয়েছে।
পিডিবির চট্টগ্রাম অঞ্চলের প্রধান প্রকৌশলী প্রবীর কুমার সেন বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সফর উপলক্ষে সিডিএর অনুরোধে সৈকত এলাকায় বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হয়েছিল। এভাবে বিল জমা হয় ২ লাখ ১৭ হাজার ৩৫৯ টাকা। কিন্তু তা পরিশোধ করছিল না সিডিএ। যোগাযোগ করা হলেও তারা এই খাতে কোনো বাজেট নেই জানিয়ে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিতে বলে। তাই সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST