ঘোষনা:
শিরোনাম :
নীলফামারীতে পুলিশকে ব্যবহার করে জোরপূর্বক অন্যের জমি দখল নীলফামারীতে জোরপূর্বক মসজিদের সভাপতি হওয়ার পায়তারা, মুসল্লীদের মানববন্ধন। ডিমলায় সরকারী সেবা জনগনের দোরগোড়ায় দিতে চান ইউএনও উম্মে সালমা নীলফামারীতে পবিত্র ঈদুল আযহায় জেলা পুলিশের উৎসব সাতক্ষীরার শ্যামনগরে আত্মসমর্পনকারী বনদস্যুর মাঝে ঈদ উপহার সাতক্ষীরার দুটি উপজেলায় ভূমিহীন ও গৃহহীনদের চাবী ও দলিল দিয়ে ভূমিহীন ও গৃহহীন মুক্ত ঘোষণা নীলফামারীতে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও জমির মালিকানা বহালে সংবাদ সম্মেলন মিথ্যা প্রলোভনে পাহাড়ের নারীদের পাচার করছে একটি সংবদ্ধ চক্র সাতক্ষীরায় ভাঙান মাছ চাষ পদ্ধতি ও ব্যবস্থাপনা বিষয়ক কর্মশালা গ্রামীণব্যাংকের সেবার মান বাড়ানোর প্রতিশ্রুতি,
চীনা প্রতিনিধি তিনটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে কথা, আন্তর্জাতিক চাপ সহ্য করবে না বেইজিং, মিয়ানমারের সেনাপ্রধানের কার্যালয় থেকে দেয়া এক সংক্ষিপ্ত বিবৃতি ।

চীনা প্রতিনিধি তিনটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে কথা, আন্তর্জাতিক চাপ সহ্য করবে না বেইজিং, মিয়ানমারের সেনাপ্রধানের কার্যালয় থেকে দেয়া এক সংক্ষিপ্ত বিবৃতি ।

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ,
মিয়ানমার সেনাবাহিনীর বরাত দিয়ে স্থানীয় দৈনিক ইরাবতীর এক অনলাইন প্রতিবেদনে এ বৈঠকের খবর জানানো হয়। রোহিঙ্গা ইস্যুতে আন্তর্জাতিক চাপে মিয়ানমার কিছু মানুষকে ফিরিয়ে নিতে সম্মত হলেও গত শুক্রবার বাংলাদেশ থেকে দ্বিতীয় দফায় রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে।
মিয়ানমারের সেনাপ্রধান মিং অং হ্লেইংয়ের সঙ্গে বৈঠক করেছেন দেশটিতে নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত চেন হাই। তিনি সেনপ্রধানকে আশ্বস্ত করে বলেছেন, রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমারের পাশে থাকবে বেইজিং। রোহিঙ্গাদের গণহত্যাসহ আরও অনেক অভিযোগে চাপের মুখে রয়েছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী।
মিয়ানমারের সেনাপ্রধানের কার্যালয় থেকে দেয়া এক সংক্ষিপ্ত বিবৃতি অনুযায়ী চেন হাই এবং মিং অং হ্লেইংয়ের মধ্যে বৈঠকে আলোচিত বিষয় নিয়ে বলা হচ্ছে, চীনা প্রতিনিধি তিনটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে কথা বলেছেন। বিষয় তিনটি হলো- প্রথমত, রোহিঙ্গা এবং মানবাধিকার ইস্যুতে মিয়ানমারের ওপর ক্রমবর্ধমান আন্তর্জাতিক চাপ সহ্য করবে না বেইজিং। দ্বিতীয়ত, সম্প্রতি দেশটির উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশ সান এবং মানডালায় অঞ্চলের শহর পিও ও লুইনে যে সহিংস হামলা হয়েছে তার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে তারা। তৃতীয়ত, মিয়ানমারে শান্তি প্রক্রিয়া এবং শান্তি আলোচনা অব্যাহত রাখতে সম্ভাব্য পথ খুঁজতে সহায়তা করবে চীন।
গত শুক্রবার বাংলাদেশে আশ্রয়প্রাপ্ত নিবন্ধিত ১১ লাখের বেশি রোহিঙ্গার মধ্যে সাড়ে তিন হাজার রোহিঙ্গাকে ফেরত পাঠানোর কথা ছিল। প্রস্তুতিও সম্পন্ন হয়েছিল কিন্তু রোহিঙ্গাদের অসম্মতিতে তা সম্ভব হয়নি। এর আগেও গত বছরের নভেম্বরে প্রথমবারের মতো রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন চেষ্টাও ব্যর্থ হয়। রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের মতো পরিস্থিতি রাখাইনে নেই দাবি করে এ প্রক্রিয়া বিলম্বিত করার আহ্বান জানায় মানবাধিকার সংস্থা হিউমান রাইটস ওয়াচ এবং অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। তাদের বক্তব্য, মিয়ানমার যখন তাদের নিরাপদে, স্বেচ্ছায় ও সম্মানের সহিত ফিরিয়ে নেয়ার পরিবেশ তৈরি করবে তখনই তাদের পাঠানো হবে।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST