ঘোষনা:
শিরোনাম :
সত্য বলার সৎ সাহসেই গঠিত হবে স্মার্ট বাংলাদেশ: অ্যাড. মমতাজুল শঙ্কামুক্ত নন অভিনেত্রী শারমিন আওয়ামী লীগ শাসনামলে দেশের ব্যাপক উন্নয়ন বিবেচনায় নিতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর নীলফামারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের ক্লাস প্রমোশন না দেয়ার প্রতিবাদে মানববন্ধন নীলফামারীতে সড়ক দূর্ঘটনায় আহত ৮ জন নীলফামারীতে পুলিশ সার্ভিস এসোসিয়েশনের শীতবস্ত্র বিতরণ কিশোরগঞ্জে বিদায়ী মাঘে শীতের হানা কিশোরগঞ্জে অপহরণের দায়ে পেশ ইমাম আটক-ছাত্রী উদ্ধার বিপদে পুলিশকে পাশে পেয়ে মানুষ যেন স্বস্তি বোধ করে তা নিশ্চিত করতে হবে : প্রধানমন্ত্রী উন্নয়নের বদলে শেখ হাসিনাকে ভোট উপহার দিন: চাঁপাইনবাবগঞ্জে নানক
কুমিল্লায় চতুর্থ শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে গ্রাম্য মাতব্বরের বিরুদ্ধে।

কুমিল্লায় চতুর্থ শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে গ্রাম্য মাতব্বরের বিরুদ্ধে।

কুমিল্লা জেলা প্রতিনিধি ,
কুমিল্লায় চতুর্থ শ্রেণির এক ছাত্রীকে (৯) ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে গ্রাম্য মাতব্বরের বিরুদ্ধে। এ ঘটনার পাঁচদিন পর বুধবার থানায় মামলা হয়েছে। মামলার খবর পেয়ে গ্রাম ছেড়ে পালিয়েছে ধর্ষক ছিদ্দিকুর রহমান (৬৫)।

গত ৬ সেপ্টেম্বর মুরাদনগর উপজেলার বাঙ্গরা বাজার থানার রামচন্দ্রপুর উত্তর ইউনিয়নের বাখরাবাদ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এদিকে ধর্ষণের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে পড়ায় এ নিয়ে তোলপাড় চলছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত শুক্রবার গ্রামের চতুর্থ শ্রেণির এক ছাত্রীকে ২০ টাকার প্রলোভন দেখিয়ে কৌশলে বাড়ির পাশের একটি জঙ্গলে নিয়ে ধর্ষণ করে ছিদ্দিকুর রহমান। কে বা কারা ঘটনাটি দেখে অজ্ঞাত স্থান থেকে ধর্ষণের ভিডিওচিত্র ধারণ করে। এ ভিডিও বুধবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়। ফেসবুকে এ ভিডিও দেখে ধর্ষক ছিদ্দিকুর রহমান গ্রাম ছেড়ে পালিয়ে যায়।

এদিকে স্থানীয় এক ইউপি সদস্যের যোগসাজশে এ ভিডিও দেখিয়ে গ্রামের অপর মাতব্বররা ধর্ষক ছিদ্দিকুর রহমানের কাছ থেকে পাঁচ লাখ টাকা হাতিয়ে নেন বলে গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে।

বুধবার খবর পেয়ে বাঙ্গরা বাজার থানার ওসি মিজানুর রহমান পুলিশ নিয়ে ওই গ্রামে গিয়ে ভুক্তভোগীকে উদ্ধার করে থানায় এনে লিখিত অভিযোগ গ্রহণ করেন। পরে পুলিশের সহযোগিতায় ওই শিশুর মা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন।

শিশুটির ভাই বলেন, ঘটনার পর মাতব্বররা আমাদের কিছু টাকা দিতে চেয়েছিল কিন্তু আমরা তা গ্রহণ করিনি, আমরা ধর্ষকের উপযুক্ত শাস্তি দাবি করছি।

বাঙ্গরা বাজার থানার ওসি মিজানুর রহমান বলেন, ধর্ষকের কাছ থেকে পাঁচ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো অভিযোগ কিংবা তথ্যপ্রমাণ আমরা পাইনি। স্থানীয় মাতব্বররা বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেছিল কিন্তু খবর পেয়ে অভিযোগ ছাড়াই আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে ভিকটিমকে উদ্ধার করে থানায় এনে অভিযোগ গ্রহণ করেছি। বৃহস্পতিবার ভুক্তভোগী শিশুর মেডিকেল পরীক্ষা করা হবে।
তিনি বলেন, ধর্ষক ছিদ্দিকুর রহমানকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST