ঘোষনা:
শিরোনাম :
ইরান রাশিয়াকে ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র দিয়েছে ইমরানের স্বতন্ত্র প্রার্থীরা যাচ্ছেন সুন্নি ইত্তেহাদ কাউন্সিলে সমুদ্র সম্পদ অনুসন্ধান-আহরণ প্রয়োজন: প্রধানমন্ত্রী নীলফামারীতে নদী এখন ফসলি জমি নীলফামারীতে গ্রামীণ ব্যাংকের উদ্যোগে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত। নীলফামারী প্রেসক্লাবে সিয়াম সভাপতি, নুর আলম সাধারণ সম্পাদক ব্যাংক খাতে কমছে না খেলাপি ঋণ, এক বছরে বাড়ল ২৫ হাজার কোটি টাকা জলঢাকায় বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ কমিটির ত্রৈমাসিক সভা অনুষ্ঠিত ওরা আমার স্বামীকে হত্যা করেছে, আমি তাদের ফাঁসি চাই নীলফামারীতে পিতার সম্পত্তি চাইতেই নির্যাতনের শিকার শিক্ষার্থী অন্তি ; প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন
মেয়াদ উত্তীর্ণ স্যালাইনের কারনে নীলফামারী আধুনিক সদর হাসাপাতালের স্টোর সিলগালা এবং স্বজনদের ক্ষোভ।

মেয়াদ উত্তীর্ণ স্যালাইনের কারনে নীলফামারী আধুনিক সদর হাসাপাতালের স্টোর সিলগালা এবং স্বজনদের ক্ষোভ।

নীলফামারী প্রতিনিধি ,
নীলফামারী আধুনিক সদর হাসাপাতালে ৪ মাস মেয়াদ উত্তীর্ণ স্যালাইন রোগীর গায়ে পুশ করায় স্বজনদের বিক্ষোভ।এবং স্টোর কিপার মিজানুরসহ সিভিল সার্জনের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেে রোগীর স্বজনরা।এ সময় আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ আবু সুফি মাহমুদকে অবরুদ্ধ করে।পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি শান্ত করে।

এ ঘটনায় জেলা প্রশাসন পরিদর্শণ শেষে আধুনিক সদর হাসপাতাল স্টোর রুম সিলগালা করে । শনিবার রাত সাড়ে এগারোটায় এক জন মহিলা ওয়ার্ডের রোগীর স্বজন একমি কোম্পানির ৪ মাস মেয়াদ উত্তীর্ণ স্যালাইন দেখতে পেয়ে কর্তব্যরত নার্সদের জানালে তারা কোন পদক্ষেপ না নেওয়ায় বিষয়টি দ্রুত রেগীর স্বজনদের মাঝে ছড়িয়ে পড়ে।পরে প্রায় ৪০/৫০ টি রোগীর স্যালাইনে মেয়াদ নাই দেখতে পায় নার্সরা,সেগুলো দ্রুত সরিয়ে ফেলে। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক এটিএম আজহারুল ইসলাম বেশ কয়েকটি মেয়াদ উত্তীর্ণ স্যালাইন জব্দ করে। এবং সদর হাসপাতালের স্টোর সিলগালা করে।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক এটিএম আজহারুল ইসলাম বলেন,সিলগালা করা স্টোর ভাল করে দেখে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা নেওয়া হবে। মহিল ওয়ার্ডে ভর্ত্তি রোগী মল্লিকা বেগম, প্রিয়াংকা রানী,লাইজু আক্তার,গোলেজার বেগমসহ আরও অনেক রোগী বলেন,নার্সদের জানানোর পর তারা আমাদেক ভয় দেখিয়েছে ,খারাপ আচরন করছে,ডাকলে শুনেনা। পুরুষ ওয়ার্ডে স্যালাইন ঠিক আছে। অর্ধ শিক্ষিত রোগীর স্বজনরা বলেন,আমরা পড়ালেখা জানিনা আমরা কিভাবে বুঝব। নার্সরা দেখে নাই। অপরদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক নার্সরা বলেন,ইনচার্জ সিনিয়র স্টাফ নার্স ছায়া রানী ষ্টোর কিপার মিজানুর ভাইয়ের কাছ থেকে বুঝে নিয়ে এখানে রাখছে।, আমরা রোগীদের দিয়েছি। সিভিল সার্জন রনজিৎ কুমার রায়কে সেল ফোনে পাওয়া যায়নি।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST