ঘোষনা:
শিরোনাম :
সত্য বলার সৎ সাহসেই গঠিত হবে স্মার্ট বাংলাদেশ: অ্যাড. মমতাজুল শঙ্কামুক্ত নন অভিনেত্রী শারমিন আওয়ামী লীগ শাসনামলে দেশের ব্যাপক উন্নয়ন বিবেচনায় নিতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর নীলফামারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের ক্লাস প্রমোশন না দেয়ার প্রতিবাদে মানববন্ধন নীলফামারীতে সড়ক দূর্ঘটনায় আহত ৮ জন নীলফামারীতে পুলিশ সার্ভিস এসোসিয়েশনের শীতবস্ত্র বিতরণ কিশোরগঞ্জে বিদায়ী মাঘে শীতের হানা কিশোরগঞ্জে অপহরণের দায়ে পেশ ইমাম আটক-ছাত্রী উদ্ধার বিপদে পুলিশকে পাশে পেয়ে মানুষ যেন স্বস্তি বোধ করে তা নিশ্চিত করতে হবে : প্রধানমন্ত্রী উন্নয়নের বদলে শেখ হাসিনাকে ভোট উপহার দিন: চাঁপাইনবাবগঞ্জে নানক
প্রধানমন্ত্রীর দূর্নীতিবিরোধী অভিযানকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে সৈয়দপুর রেলের জমিতে বহুতল ভবন বানাচ্ছেন চিহ্নিত ভূমিদস্যুরা।

প্রধানমন্ত্রীর দূর্নীতিবিরোধী অভিযানকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে সৈয়দপুর রেলের জমিতে বহুতল ভবন বানাচ্ছেন চিহ্নিত ভূমিদস্যুরা।

নীলফামারী প্রতিনিধি ,
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা দূর্নীতি, মাদক, ভূমিদস্যুদের বিরুদ্ধে সারাদেশ ব্যাপি অভিযান শুরু করেছেন, দূর্নীতিবাজ, ভূমিদস্যু যতবড়ই ক্ষমতাশালী, প্রভাবশালী নিজদলের কিংবা অন্য দলের হলেও কোন ছাড় না দেওয়ার জন্য প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছেন। কিন্তু সৈয়দপুরে দেখা যাচ্ছে তার উল্টো চিত্র। সৈয়দপুরে রেলের উন্নয়ন রেলের ভূমি উদ্ধারে লাল নোটিশ মাইকিংসহ উচ্ছেদের সকল কার্যক্রম চলমান সেই মুহুর্তে সৈয়দপুর পৌরসভার ২০০ গজ দুরে সৈয়দপুর থানা হতে ২০০ গজ দুরে রেলওয়ের এসপি অফিস হতে ১০০ গজ দুরে এ ই এন ও আই ডাব্লু অফিস হতে ২০০ গজ দুরে সৈয়দপুর কাপড় মার্কেট থ্যাংকস ক্লথ ষ্টোরের পিছনে জয়নুল হোটেল নামে আধাপাকা ঘরটি এক কোটি টাকায় কিনে নেন দুইজন কাপড় ব্যবসায়ী ও একজন যুবলীগ নেতা।
সারাদেশ ব্যাপি অভিযান যখন চলছে তখন সৈয়দপুরে রেলের জমিতে অবস্থিত এই জয়নুল হোটেলটি ভেঙ্গে বানানো হচ্ছে তিনতলা বিশিষ্ট কমার্শিয়াল মার্কেট। কোন প্রকার বৈধ্য কাগজ পত্র ছাড়াই শুধু দলীয় প্রভাব খাটিয়ে প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে কাজ শুরু করেন যুবলীগ নেতা।
সম্পূর্ণরুপে অবৈধ ও দূর্নীতিবিরোধী অভিযানকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে। এই ব্যাপারে গত ২৬/০৯/২০১৯ ইং তারিখে রাত ১২ টা অবধি দেখা যায় ভারী ভারী যন্ত্রপাতি দিয়ে তিনতলার ছাদ ঢালাইয়ের কাজ চলছে বহাল তবিয়তে এবং বুক ফুলিয়ে। এ ব্যাপারে বিল্ডিং নির্মানকারী কাপড় ব্যাবসায়ী আরমানকে টেলিফোনে জিজ্ঞেস করলে তিনি বলেন আমি ও থ্যাংকস ক্লথ ষ্টোরের মালিক একরামুল মিলে এই জমিটি জয়নুলের ছেলের কাছ থেকে এককোটি টাকায় কিনে নিয়েছি। পৌরসভার মৌখিক অনুমোদন নিয়ে স্থানীয় প্রশাসন ও রেলওয়ের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের ম্যানেজ করে এই অবকাঠামো ঢালাই করার কাজ শুরু করেছি। স্থানীয়ভাবে নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন ব্যবসায়ী জানান যুবলীগ নেতা দিল নেওয়াজ খান এটির দায়িত্বে আছেন। তার সেল্ডারে এটির নির্মাণ কাজ চলছে।  এই অবৈধ নির্মান কাজের বিষয়ে  সৈয়দপুর রেলওয়ের তৌহিদ  আই ডাব্লকে  মোবাইল ফোনে ফোন দিলে ফোন তুলেননি।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST