ঘোষনা:
শিরোনাম :
সাতক্ষীরার শ্যামনগরে আত্মসমর্পনকারী বনদস্যুর মাঝে ঈদ উপহার সাতক্ষীরার দুটি উপজেলায় ভূমিহীন ও গৃহহীনদের চাবী ও দলিল দিয়ে ভূমিহীন ও গৃহহীন মুক্ত ঘোষণা নীলফামারীতে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও জমির মালিকানা বহালে সংবাদসম্মেলন মিথ্যা প্রলোভনে পাহাড়ের নারীদের পাচার করছে একটি সংবদ্ধ চক্র সাতক্ষীরায় ভাঙান মাছ চাষ পদ্ধতি ও ব্যবস্থাপনা বিষয়ক কর্মশালা গ্রামীণব্যাংকের সেবার মান বাড়ানোর প্রতিশ্রুতি, নীলফামারীতে কোরবানির জন্য প্রস্তুত ২ লাখ ৭৬ হাজার ২০১টি পশু নীলফামারীতে প্রযুক্তিগত দক্ষতা বৃদ্ধিতে নারীদের ছয় মাস ব্যাপি প্রশিক্ষণের উদ্বোধন চট্টগ্রামে টাকার জন্য মাকে কুপিয়ে হত্যা, ছেলেকে আটক করেছে পুলিশ যুবদলের নির্যাতিত নেতৃবৃন্দের সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত
রুমিন ফারহানা জানান, খালেদা জিয়া তাঁদের জানিয়েছেন তিনি কোনো অপরাধ করেননি। যে মামলা, তাতে জামিন তাঁর অধিকার।

রুমিন ফারহানা জানান, খালেদা জিয়া তাঁদের জানিয়েছেন তিনি কোনো অপরাধ করেননি। যে মামলা, তাতে জামিন তাঁর অধিকার।

রুমিন ফারহানা ।

ঢাকা প্রতিবেদক,

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) কারাবন্দী দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করেছেন চার সাংসদ। আজ বুধবার বেলা তিনটায় তাঁরা দেখা করতে যান। রুমিন ফারহানা জানান, খালেদা জিয়া তাঁদের জানিয়েছেন তিনি কোনো অপরাধ করেননি। যে মামলা, তাতে জামিন তাঁর অধিকার।
বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া শারীরিকভাবে বেশি অসুস্থ হয়ে পড়ছেন বলে জানালেন দলটির চার সাংসদ। তাঁরা বলছেন, খালেদা জিয়া ঠিকমতো খেতেও পারছেন না।
বিকেলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) কারাবন্দী দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করেছেন সাংসদ মোশাররফ হোসেন, জাহিদুর রহমান, রুমিন ফারহানা ও গোলাম মোহম্মদ সিরাজ। বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সহ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ও সাংসদ রুমিন ফারহানা বলেন, ‘সার্বিকভাবে তাঁর (খালেদা জিয়া) শারীরিক অবস্থা অত্যন্ত খারাপ। ব্লাড সুগার অনেক বেশি। কোনো ওষুধেই নিয়ন্ত্রণে আসছে না। যে মানুষকে দেখেছি হেঁটে গাড়িতে উঠে আদালতে গিয়েছেন। তারপরে তাঁর শারীরিক যে অবস্থা, তার পুরো দায়দায়িত্ব সরকারের।’
রুমিন ফারহানা জানান, খালেদা জিয়া তাঁদের জানিয়েছেন তিনি কোনো অপরাধ করেননি। যে মামলা, তাতে জামিন তাঁর অধিকার।
বিএনপির আরেক সাংসদ মোশাররফ হোসেন বলেন, নির্বাচিত হওয়ার পর এই প্রথম তাঁরা খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে পেরেছেন। তিনি বলেন, খালেদা জিয়া ভীষণ অসুস্থ। তাঁর শরীর অবশ হয়ে আসার মতো। ঠিকমতো খেতেও পারছেন না। তিনি সরকারের কাছে জানতে চেয়েছেন, জামিনযোগ্য মামলা হলেও তাঁর জামিন কেন হচ্ছে না।
এর আগে গতকাল বিকেলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে কারাবন্দী বিএনপির চেয়ারপারসনের সঙ্গে দেখা করেন হারুনসহ দলটির তিন সাংসদ। তাঁর সঙ্গে বিএসএমএমইউতে যাওয়া অপর দুই সাংসদ হলেন মো. আমিনুল ইসলাম ও উকিল আবদুস সাত্তার।
হারুনুর রশীদ বলেন, ‘খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার অবনতি হচ্ছে। তিনি নিজ হাতে খেতে পারেন না। তাঁর (খালেদা জিয়া) শারীরিক অবস্থা খুব বেদনাদায়ক, হাত ফুলে আছে, ব্যথা। নিজের খাওয়াটাও নিজের হাতে খেতে পারেন না। সঙ্গে যিনি আছেন, তিনি খাইয়ে দেন। তাঁর পোশাকও আরেকজনকে পরিয়ে দিতে হয়। এ অবস্থায় তাঁকে জেলে বন্দী রাখাটা অত্যন্ত অমানবিক।’
সরকার খালেদা জিয়ার জামিন নিয়ে জুলুম করছে অভিযোগ করে হারুনুর রশীদ প্রত্যাশা করেন, সরকার তাঁর জামিন দেবে। হারুনুর রশীদ বলেন, জামিন পেলে তাঁকে সুচিকিৎসা দেওয়া হবে। প্রয়োজনে বিদেশেও নেওয়া হবে। তা না হলে তাঁর অবস্থার আরও অবনতি হবে।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST