ঘোষনা:
শিরোনাম :
নীলফামারীতে পুলিশকে ব্যবহার করে জোরপূর্বক অন্যের জমি দখল নীলফামারীতে জোরপূর্বক মসজিদের সভাপতি হওয়ার পায়তারা, মুসল্লীদের মানববন্ধন। ডিমলায় সরকারী সেবা জনগনের দোরগোড়ায় দিতে চান ইউএনও উম্মে সালমা নীলফামারীতে পবিত্র ঈদুল আযহায় জেলা পুলিশের উৎসব সাতক্ষীরার শ্যামনগরে আত্মসমর্পনকারী বনদস্যুর মাঝে ঈদ উপহার সাতক্ষীরার দুটি উপজেলায় ভূমিহীন ও গৃহহীনদের চাবী ও দলিল দিয়ে ভূমিহীন ও গৃহহীন মুক্ত ঘোষণা নীলফামারীতে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও জমির মালিকানা বহালে সংবাদ সম্মেলন মিথ্যা প্রলোভনে পাহাড়ের নারীদের পাচার করছে একটি সংবদ্ধ চক্র সাতক্ষীরায় ভাঙান মাছ চাষ পদ্ধতি ও ব্যবস্থাপনা বিষয়ক কর্মশালা গ্রামীণব্যাংকের সেবার মান বাড়ানোর প্রতিশ্রুতি,
কিশোরগঞ্জে ৬০ বছরেও বুলবুলি বেওয়ার কোন ভাতার কার্ড পায়নি । আর কত বয়স হলে ভাতা কপালে জুটবে।

কিশোরগঞ্জে ৬০ বছরেও বুলবুলি বেওয়ার কোন ভাতার কার্ড পায়নি । আর কত বয়স হলে ভাতা কপালে জুটবে।

কিশোরগঞ্জ (নীলফামারী)প্রতিনিধি ,
কিশোরগঞ্জে ৬০ বছরেও বুলবুলি বেওয়ার বিধবা ভাতা কিংবা বয়স্ক ভাতার কার্ড পায়নি । আর কত বয়স হলে ভাতা কপালে জুটবে। তাই কুড়ে ঘড়ে বসবাস।
স্বামীর মৃত্যুর ১৫ বছর হয়েছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত বিধবা ভাতা হয়নি বুলবুলি বেওয়ার (৬০)। চেয়ারম্যান মেম্বারের পিছনে এজন্য অনেক ধরর্ণা দিয়েছে তিনি। কেউ তাকে একটা বিধবা ভাতা কার্ড করে দেয়নি। এমন কি তিনি ভিজিএফ চালের একটি স্লিপও পাননি। বৃদ্ধ বয়সে তিনি এখন অন্যের বাড়ীতে ঝিঁয়ের কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করেন।  নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার চাঁদখানা সরঞ্জাবাড়ী গ্রামের মরহুম আজিজার রহমান বানারের স্ত্রী তিনি।
গত রোববার চাঁদখানা সরঞ্জাবাড়ী গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, ঘরের দুয়ারে বসে কাঁদছেন বুলবুলি বেওয়া। কাঁদার কারন জানতে চাইলে বলেন ৫ ছেলে মেয়ের মা তিনি। কিন্তু ৪ ছেলের কোন ছেলেই তার দিকে ফিরে তাকায়না। অনেকদিন থেকে তার কোমড়ে ব্যাথা। ব্যাথা বেড়ে যাওয়ায় আজকে তিনি কাজে যেতে পারেননি। তাছাড়া দিনরাত ছেলে এবং বউয়ে কটুক্তি তাকে বিষিয়ে তুলেছে।বুলবুলি বেওয়া বলেন একটি বিধবা ভাতা কার্ডের জন্য চেয়ারম্যান মেম্বার পিছনে অনেকদিন ঘুরেছি। তারা ৫হাজার টাকা চায়। কিন্তু টাকা কোথায় পাবো। এ বয়সে এসে অন্যের বাড়ীতে থালা বাসন মেজে এখন পেটে ভাত দিতে হচ্ছে। তারা যে ভাত দেয় সেটা খেয়ে রাতের জন্য নিয়ে আসি। রাতে এসে থাকতে হয় ছেলের গোয়াল ঘরে। মশারী নেই সারারাত মশার সাথে যুদ্ধকরে রাত কাটাতে হয়।বুলবুলি বেওয়া কাঁদত কাঁদতে বলেন স্বামী মরার ১৫ বছর হইছে। ৪ব্যাটা ১ বেটিকে খুব কষ্ঠ করি বড় করছু। কিন্তু এ্যলা ওমরা বড় হয়া মোর প্যাকে দেখেনা।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST