ঘোষনা:
শিরোনাম :
নীলফামারীতে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের ৭২ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন। খুলনায় স্বাস্থ্যবিধি না মানায় অর্থদণ্ড ও কারাদণ্ড প্রদান । জলঢাকায় হরিজন পল্লীতে তুরিন আফরোজ কিশোরগঞ্জে ভাতাভোগীদের টাকা হাতিয়েছে প্রতারক চক্রটি জলঢাকায় আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর বৃক্ষ রোপন ও চারাগাছ বিতরণ নীলফামারীতে মুজিববর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে বৃক্ষরোপন করেছে আনসার ওভিডিপি। সৈয়দপুরে রেলের তদন্ত প্রতিবেদন,নিজেকে বাঁচাতে উপজেলা চেয়ারম্যানের সংবাদ সম্মেলন । পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জে করোনা আক্রান্ত মাদ্রাসা শিক্ষিকার মৃত্যু। বাংলাদেশ স্কাউটস এর স্ট্রাটেজিক প্ল্যান ও গ্রোথ মূল্যায়ন ওয়ার্কশপ বরিশালের গৌরনদী উপজেলায় নির্বাচনী সহিংসতায় নিহত ১, আহত ২
আরও দুটি মেট্রোরেল লাইন নির্মাণ হচ্ছে, যেটি লাভজনক নয়।

আরও দুটি মেট্রোরেল লাইন নির্মাণ হচ্ছে, যেটি লাভজনক নয়।

ঢাকা প্রতিবেদক,
আরও দুটি মেট্রোরেল লাইন নির্মাণ হচ্ছে যেটি ‘লাভজনক নয়।
রাজধানীর উত্তরা দিয়াবাড়ি থেকে মতিঝিল সিটি সেন্টার পর্যন্ত ২০ দশমিক ১০ কিলোমিটার দীর্ঘ এলিভেটেড মেট্রোরেলের নির্মাণকাজ চলছে। এটি এমআরটি লাইন- ৬ এমআরটি লাইন-১ ও এমআরটি লাইন-৫ নামে আরও দুটি মেট্রোরেল লাইনের কাজ শুরু করতে যাচ্ছে সরকার। আগামীকাল মঙ্গলবার (১৪ অক্টোবর) জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় লাইন দুটি অনুমোদন পেতে যাচ্ছে।
‘ঢাকা ম্যাস র‌্যাপিড ট্রানজিট ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্ট (লাইন-১)’ ও ‘ঢাকা ম্যাস র‌্যাপিড ট্রানজিট ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্ট (লাইন-৫) : নর্দান রুট’ শিরোনামে দুটি আলাদা প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। প্রকল্প দুটিতে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৯৩ হাজার ৭৯৯ কোটি ৯৭ লাখ ৭৭ হাজার টাকা।
১২শতাংশ ডিসকাউন্ট রেট ধরে প্রকল্প দুটির আর্থিক ও অর্থনৈতিক আয়-ব্যয় বিশ্লেষণ করা হয়েছে। বিশ্লেষণ অনুযায়ী, দুটি প্রকল্পই আর্থিকভাবে লাভজনক নয়। তবে অর্থনৈতিকভাবে লাভজনক। এ অবস্থায় আর্থিক আয়-ব্যয় বিশ্লেষণের ফল বিবেচনায় না নিয়ে অর্থনৈতিক আয়-ব্যয় বিশ্লেষণের ফল বিবেচনায় নেয়া হয়েছে প্রকল্প দুটির ক্ষেত্রে। আর্থিক ক্ষতি হিসেবে একটিতে দেখানো হচ্ছে দুই হাজার ৪২৪ কোটি ২৬ লাখ টাকা এবং অন্যটিতে সাত হাজার ৩২৭ কোটি ৯৫ লাখ ৬০ হাজার টাকা। তবে অর্থনৈতিক দিক থেকে একটি প্রকল্পে ৯৪৯ কোটি ৯৭ লাখ এবং অন্যটিতে পাঁচ হাজার ৩০ কোটি ৪৭ লাখ ৪৬ হাজার টাকা লাভ দেখানো হচ্ছে।

লাইন-১ এর আওতায় মোট ৩১ দশমিক ২৪১ কিলোমিটার মেট্রোরেল নির্মাণ করা হবে। এর মধ্যে বিমানবন্দর থেকে কমলাপুর পর্যন্ত ১৬ দশমিক ২১৫ কিলোমিটার পাতাল (আন্ডারগ্রাউন্ড) মেট্রোরেল এবং কুড়িল থেকে পূর্বাচল ডিপো পর্যন্ত ১১ দশমিক ৩৬৯ কিলোমিটার এলিভেটেড মেট্রোরেল হবে।

লাইন-৫ এর আওতায় ২০ কিলোমিটার মেট্রোরেল নির্মাণ করা হবে। এর মধ্যে হেমায়েতপুর থেকে আমিনবাজার পর্যন্ত ৬ দশমিক ৫ কিলোমিটার এলিভেটেড মেট্রোরেল এবং আমিনবাজার থেকে ভাটারা পর্যন্ত ১৩ দশমিক ৫ কিলোমিটার পাতাল (আন্ডারগ্রাউন্ড) মেট্রোরেল হবে।
সড়ক পরিহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে প্রকল্প দুটি বাস্তবায়ন করবে ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড (ডিএমটিসিএল)। প্রকল্প দুটিতে জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সি (জাইকা) ঋণ প্রদান করছে।

এমআরটি লাইন-১ প্রকল্পে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৫২ হাজার ৫৬১ কোটি ৪৩ লাখ টাকা। এর মধ্যে বাংলাদেশ সরকার দেবে ১৩ হাজার ১১১ কোটি ১১ লাখ এবং বৈদেশিক ঋণ ৩৯ হাজার ৪৫০ কোটি ৩২ লাখ টাকা। প্রকল্পটি ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর থেকে ২০২৬ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে বাস্তবায়নের লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে।

এমআরটি লাইন-৫ প্রকল্পে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৪১ হাজার ২৩৮ কোটি ৫৪ লাখ ৭৭ হাজার টাকা। এর মধ্যে ১২ হাজার ১২১ কোটি ৪৯ লাখ ৬৭ হাজার টাকা দেবে বাংলাদেশ সরকার এবং ২৯ হাজার ১১৭ কোটি ৫ লাখ ১০ হাজার আসবে বৈদেশিক ঋণ থেকে। ২০১৯ সালের জুলাই থেকে ২০২৮ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে এ কাজ বাস্তবায়নের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST