ঘোষনা:
শিরোনাম :
দিনাজপুরে ‍‍‍‍‍” মানুষ মানুষের জন্য ” সংগঠনের উদ্দ্যোগে মাস্ক বিতরণ চাঁদপুরে করোনায় আক্রান্ত ২জনের চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু : আক্রান্ত আরো ২৫জন। দেশে হারিয়ে যাচ্ছে গ্রামীণ খেলা-ধুলা । সাতক্ষীরায় এক শিশুকে হত্যার ভয় দেখিয়ে ধর্ষনের অভিযোগে,ধর্ষক সিরাজুল গ্রেপ্তার । খুলনা করোনা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এক বৃদ্ধের মৃত্যু। চট্টগ্রামে করোনায় আরও ৩ জনের মৃত্যু, নতুন আক্রান্ত ৩৮০ । নারায়ণগঞ্জে লঞ্চ ডুবির ঘটনায় ১৪ স্টাফ সহ এসকেএল -৩ জাহাজটি আটক। ভবানীগঞ্জে করোনা ভাইরাস সংক্রমণে সচেতন করেন,অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, এ.এস. এম. মুক্তারু জ্জামান। জলঢাকা থানা নীলফামারী কৃষকদের মাঝে আউশ ধানের বীজ ও সার বিনামূল্যে বিতরণ। বঙ্গবন্ধু ৯ম গেমসে ৯ স্বর্ণ,৭রৌপ্য,১তাম্র অর্জনে চ্যাম্পিয়ন আনসার,ভিডিপি।রানার্সআপ বাংলাদেশ সেনাবাহিনী।
আমনধান ক্ষেতে ইঁদুরের অত্যাচারে দিশেহারা কৃষক ।

আমনধান ক্ষেতে ইঁদুরের অত্যাচারে দিশেহারা কৃষক ।

রতন কুমার রায়,স্টাফ রির্পোটার ,
এখনো সময় আছে আমনধান পাকতে কিন্তু তর সইছে না নিজের খাদ্য সংগ্রহ করতে আসা এক ধরনের ইঁদুর যা ক্ষেতের ধানগাছে ধান না পাকলেও ধান গাছেই কেটে নিয়ে যাচ্ছে। কোন কীটনাশক প্রয়োগ করে ইঁদুরের উপদ্রব্য কমাতে না পেরে ক্ষেতের ফসল রক্ষাতে সনাতন পদ্ধতিতে বাড়ীতে বসে বাঁশের তৈরী ইঁদুর মারার ফাঁদ তৈরী করে ফসল রক্ষার আপ্রান চেষ্টা করছে নীলফামারী জেলার ডোমার উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের কৃষকরা। সরজমিনে উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখাযায়,আমনধান ক্ষেতে কয়েক ভাগে ৫/৬ ফিট করে যায়গায় ধান গাছের গুড়িগুলো দাঁড়িয়ে আছে । শুকনো ফসলের মাঠের চেয়ে পানি জমানো ফসলের ক্ষেতে বেশি কাটছে। ইঁদুরের হাত থেকে ফসল রক্ষাতে কৃষকরা ক্ষতিগ্রস্থ ধানক্ষেতে ছড়িয়ে ছিটিয়ে বসানো হয়েছে বাঁশের তৈরী ইঁদুর মারার ফাঁদ। বোড়াগাড়ী ইউনিয়নের কৃষক চয়ন কুমার,পশ্চিম বোড়াগাড়ী গ্রামের মনোরঞ্জন রায়,মজিবর রহমান, আব্দুল কাদের জানান,ইঁদুর ব্যাপকভাবে ধানগাছ কাটছে ঔষধে কাজ হচ্ছে না,তাই নিরুপায় হয়ে বাড়ীতে নিজে বাঁশ দিয়ে ফাঁদ তৈরী করে ক্ষেতে বসে রেখেছি। কিছুটা হলেও কাজ হচ্ছে ১বিঘা জমিতে ফাঁদে এ পর্যন্ত আটকা পড়েছে ১৫টি ইঁদুর।আবদুল কাদেরের ফাঁদে কুড়িটি ইঁদুর আটকা পড়েছে। নয়ানী গ্রামের চন্দন রায় জানান তিনি ২৫টি ইঁদুর দেশীয় ফাঁদে আটক করেছে। কৃষকরা জানান,অনেক চেষ্টা করছি ধানক্ষেতে ইঁদুরের অত্যাচার কমাতে কিন্তু পারিনি শেষে নিরুপায় হয়ে বাঁশের ফাঁদ বসিয়ে প্রতিরাতে ২/৩ টা করে ইঁদুর মারছি।
ডোমার উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবীদ জাফর ইকবাল জানান,উপজেলা কৃষি দপ্তর থেকে ইঁদুর নিধন প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছি। দেশীয় পদ্ধতিতে ইঁদুর মারার ফাঁদ,গর্তে পানি ভরিয়ে ইঁদুর তাড়ানো চেষ্টা করছি। আগামী দুই একদিনের মধ্যে আনুষ্ঠানিকভাবে কৃষকদের উপস্থিতিতে ইঁদুর নিধন প্রচারনা অভিযান শুরু করা হবে।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST