ঘোষনা:
শিরোনাম :
ডোমারে সন্ত্রাসী হামলার স্বীকার প্রতিবন্ধী পরিবার, মামলা তুলে নেওয়ার হুমকী প্রদান নীলফামারীতে জাতীয় দক্ষতামান বেসিক ট্রেড কোর্সকে কারিগরি শিক্ষাবোর্ডে চলমান রাখার দাবীতে মানববন্ধন। নীলফামারীতে দূর্গা পুজা মন্ডপ পরিদর্শন করেছেন রংপুর বিভাগীয় কমিশনার। ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়ার নবীনগে দেশের অন্যতম মূর্তি তৈরী ও বিকিকিনি নীলফামারী সার্কেল অফিস এবং পুলিশ সুপার কার্যালয় পরিদর্শন নীলফামারী কমিটির পক্ষে পুরস্কার গ্রহণ করেন জেলা প্রশাসক খাগড়াছড়িতে ৬ষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্রী ধর্ষনের অভিযোগে ২ যুবক আটক নীলফামারীতে পুলিশ সুপারের সাথে হিন্দু ধর্মালম্বীদের মতবিনিময় নীলফামারীতে সামাজিক-সম্প্রীতি সমাবেশ হয়েছে। ডিমলায় কৃষক সমাবেশ ও আলোচনা সভা
এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষায় রাজশাহী কেন্দ্রে মেধা তালিকায় প্রথম   সিংড়ার সন্তান আন্নি।

এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষায় রাজশাহী কেন্দ্রে মেধা তালিকায় প্রথম   সিংড়ার সন্তান আন্নি।

সিংড়া(নাটোর) প্রতিনিধি ,
২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে মেডিকেল কলেজের এমবিবিএস কোর্সের প্রথম বর্ষে ভর্তি পরীক্ষার ফলাফলে জাতীয় মেধা তালিকায় দশম স্থান অর্জন করেছেন মোছাঃখাইরুন নাহার আন্নি ।

খাইরুন নাহার আন্নি সিংড়া দমদমা পাইলট স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষার্থী। প্রকাশিত ফলাফলে জাতীয় মেধা তালিকায় দশম হওয়ার গৌরব অর্জন করেন আন্নি।

আন্নির বাবা কাজী মাওলানা মোঃ আলাউদ্দিন মুসলিম ধর্মের বিবাহ ও তালাক সরকারী ভাবে রেজিস্টার করেন। নাটোর জেলার সিংড়া উপজেলার পৌরসভার এলাকার পাটকোল মহল্লায় বসবাস করেন তারা। আন্নির মা খাদিজা বেগম গৃহিণী। দুই ভাই-বোনের মধ্যে আন্নি ছোট। আন্নির বড় ভাই রাজশাহী প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (রুয়েট) থেকে লেখাপড়া শেষ করেছেন।

মেডিকেল কলেজের এমবিবিএস কোর্সে দশম হওয়ার অনুভূতি জানিয়ে খাইরুন নাহার আন্নি বলেন, এর চেয়ে বড় খুশির সংবাদ আর কিছুই হতে পারে না। আমি ভালো ডাক্তার হওয়ার আগে ভালো মানুষ হতে চাই। সেজন্য সবার দোয়া চাই।

সরকারি ও বেসরকারি মিলিয়ে সাড়ে ১০ হাজারেরও বেশি আসনের বিপরীতে পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন ৪৯ হাজার ৪১৩ জন। মঙ্গলবার বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ এ ফলাফল ঘোষণা করেন।

তিনি এলাকার অন্যতম শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কতুয়াবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে জিপিএ -৫ পেয়ে এসএসসি ও সিংড়া দমদমা পাইলট স্কুল এন্ড কলেজ থেকে জিপিএ – ৫ পেয়ে এইচএসসি পাশ করেন। এছাড়াও তিনি জে এস সি ও পি এস সি পরীক্ষায় জিপিএ- ৫ সহ বৃত্তি লাভ করেন।

অনুভূতি জানাতে গিয়ে খাইরুন নাহার বলেন, ফলাফল পেয়ে ভীষণ খুশি আমি। এমন ফলাফলের পেছনে মা-বাবাসহ শিক্ষকদের অবদান সবচেয়ে বেশি। ভবিষ্যতে চিকিৎসক হয়ে মানবতার সেবায় নিজেকে সম্পৃক্ত করতে চাই।

এ বছর এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষায় ৪৯ হাজার ৪১৩ জন পাস করে। পাসকৃতদের হার অনুযায়ী ছাত্র ৪৬ দশমিক ৩১ শতাংশ ও ছাত্রী ৫৩ দশমিক ৬৯ শতাংশ। পাস করা শিক্ষার্থীদের মধ্যে সরকারিতে নেয়া হবে ৪ হাজার ৬৮ জন আর বেসরকারিতে নেয়া হবে ৬ হাজার ৩৩৯ জন।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST