ঘোষনা:
শিরোনাম :
দীর্ঘ এক বছর পর ৩০ মার্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ক্লাস শুরু,শিক্ষামন্ত্রী। চট্টগ্রামে সমন্বয়ের অভাবে কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন হচ্ছে না, পল্লি উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী, তাজুল ইসলাম । খুলনার মহাসমাবেশে শ্লোগান,এক সংগ্রাম, এক ডাক, আওয়ামী লীগ সরকার নিপাত যাক। বদরগঞ্জে একঝাঁক তরুন তরুনীদের প্রচেষ্টায় বদরগঞ্জে বি-বাজারের যাত্রা শুরু। বদরগঞ্জে শয়নকক্ষে শিক্ষার্থীর গলাকাটা মরদেহ : হত্যা নাকি আত্মহত্যা। জলঢাকায় গাঁজা কেনাবেচা কালে মা-ছেলেসহ আটক-৩। নীলফামারীর সৈয়দপুর পৌরসভায় প্রথমবার ইভিএমে ভোট।সকল প্রস্তুতি শেষ করেছে প্রশাসন। কিশোরগঞ্জে জাপা কর্মীর জানাজা সম্পন্ন । নীলফামারীতে অটোরিকশা ও নৈশ কোচের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ১ আহত ১১। নীলফামারীতে সড়ক র্দূঘটনায় ১জন নিহত ও ১২জন ইপিজেড কর্মী আহত
পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বলেছেন, বাংলায় এনআরসি হবে না।

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বলেছেন, বাংলায় এনআরসি হবে না।

কলকাতা প্রতিনিধি,
পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বলেছেন, বাংলায় এনআরসি হবে না। সোমবার পশ্চিমবঙ্গের দার্জিলিং জেলার শিলিগুড়ি মহকুমা শহরে তৃণমূল আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এ কথা বলেছেন তৃণমূল নেত্রী ও রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
ভারতের জাতীয় নাগরিক পঞ্জি (এনআরসি) নিয়ে আবার ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি আশ্বাস দিয়ে বলেছেন, বাংলায় এনআরসি হবে না। তিনি হবেন পাহারাদার। অনুষ্ঠানে মমতা বলেন, ‘এই রাজ্যে এনআরসি হবে না, হতে দেব না, কাউকে বাংলাও ছেড়ে যেতে হবে না, সবাই থাকবে এই বাংলায়। এখানে কোনো বিভাজন করতে দেওয়া হবে না। আমি আপনাদের পাহারাদার। আমি এই বাংলায় এনআরসি হতে দেব না। নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল আমরা সমর্থন করি না।’ এবারের লোকসভা নির্বাচনের পর এই প্রথম উত্তরবঙ্গে গেলেন মমতা। উত্তরবঙ্গে লোকসভা নির্বাচনে এবার সবচেয়ে বেশি খারাপ ফলাফল করে তৃণমূল। জয়ী হয় বিজেপি। পায়ের তলা থেকে সরে যাওয়া মাটিকে ফের শক্ত করার জন্য শিলিগুড়িতে আসেন তিনি।
মমতা বলেন, চূড়ান্ত এনআরসির তালিকা থেকে আসামে ১৯ লাখ মানুষকে বাদ দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে, হিন্দু, মুসলিম, নেপালি, গোর্খা, রাজবংশী, হিন্দিভাষী পাহাড়ি ভাই বোনেরা। আজ এনআরসির নামে রাজবংশীদের ভুল বোঝানো হচ্ছে। ভুল বোঝানো হচ্ছে অন্যদের। আশ্বাস দিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা এখনো তাঁদের পাশে রয়েছি। আসামে যেসব মানুষের নাম বাদ গেছে, তাদের নাম অন্তর্ভুক্তির দাবি জানিয়েছি। বাঙালিদের মধ্যে বেশির ভাগ রাজবংশীকে বাদ দেওয়া হয়েছে। আমরা চাই, এনআরসির নামে কাউকে বাদ দেওয়া চলবে না। আপনারা নিশ্চিন্তে থাকুন। আমাদের সরকার আপনাদের পাশে আছে। পাশে ছিল এবং আগামীতেও থাকবে। আমরা আপনাদের পাহারাদার হয়ে এই রাজ্য থেকে কাউকে তাড়াতে দেব না। এনআরসি বলবৎ করতে দেব না। নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল সমর্থন করব না।’
মমতার এই বক্তব্যের পর বিজেপির শিলিগুড়ি শাখার সভাপতি অভিজিৎ রায় চৌধুরী বলেন, এনআরসি নিয়ে বিভ্রান্তি ও আতঙ্ক ছড়াচ্ছেন মমতাই। রাজনৈতিক ফায়দা তুলতে তিনি এনআরসিকে হাতিয়ার করছেন। আতঙ্ক ছড়াচ্ছেন। তিনি বলেন, ‘আমরা তো বলছি, আগে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাস হবে। তারপর এনআরসি। আমরা তো আরও বলেছি, উদ্বাস্তু এবং শরণার্থী হয়ে আসা এ রাজ্যের কাউকে রাজ্য থেকে তাড়ানো হবে না। বরং তাঁদের নাগরিকত্ব নিশ্চিত করা হবে। অথচ মমতা এনআরসি নিয়ে মিথ্যে আতঙ্ক ছড়াচ্ছেন। মানুষকে ভয়ভীতির মধ্যে রাখছেন।’





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST