ঘোষনা:
শিরোনাম :
পঞ্চগড়ে পুকুরের পানিতে ডুবে এক শিশুর মৃত্যু। ডিমলায় তিস্তার চরে ভুট্টার বাম্পার ফলন। সাতক্ষীরায় করোনায় আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে মেডিকেল হাসপাতালে নারীসহ দুই জনের মৃত্যু। বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির উপজেলা শাখা গঠনের আলোচনা সভা । নীলফামারীতে চাঁদা দিতে না পারায়,ঘরে অগ্নিসংযোগ জোড়পূর্বক মাছ চুরি। সৈয়দপুরের তিন শিক্ষার্থীর ভর্তি অনিশ্চিত মেডিকেল কলেজে । করোনা আক্রান্ত জননেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন অনেকটা সুস্থ্য বোধ করছেন। লকডাউনে ১০টা -০১ টা পর্যস্ত খোলা থাকবে ব্যাংক সেবা। চাঁদ দেখা গেছে, বুধবার থেকে পবিত্র রমজান শুরু। শঙ্কিত হওয়ার কোনো কারণ নেই, সরকার সবসময় পাশে থাকবে;প্রধানমন্ত্রী।
মেয়র আতিকুল ইসলাম, ভবন মালিকদের আগামী ১০ দিনের মধ্যে ভবনের অনুমোদন, নকশা, ফায়ার সেফটি, বিল্ডিং সেফটির কাগজ জমা দিতে নির্দেশ।

মেয়র আতিকুল ইসলাম, ভবন মালিকদের আগামী ১০ দিনের মধ্যে ভবনের অনুমোদন, নকশা, ফায়ার সেফটি, বিল্ডিং সেফটির কাগজ জমা দিতে নির্দেশ।

এফ আর টাওয়ারের সামনে কথা বলছেন মেয়র আতিকুল ইসলাম

ঢাকা প্রতিবেদক,

বনানীর এফ আর টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ডের পর কথা বলার আর সময় নেই। এখন সময় অ্যাকশনের। সব সংস্থাকে নিয়ে একত্রে কাজ করতে চাই। এই ভবনগুলো কীভাবে পারমিশন পেলো, ১৮ তলার অনুমোদন নিয়ে কীভাবে ২৩ তলা হলো সেগুলো আমরা দেখবো।

বৃহস্পতিবার (২৯ মার্চ) সকালে এফ আর টাওয়ার পরিদর্শনে এসে এমনটাই বলছিলেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম।

মেয়র বলেন, এই অনিয়ম মেনে নেওয়া যেতে পারে না। এখন কথা বলার সময় নেই, অ্যাকশন নেওয়ার সময়।

অ্যাকশনের উদাহরণ দিতে গিয়ে আতিক বলেন, রাজধানীর ভবন মালিকদের আগামী ১০ দিনের মধ্যে সিটি করপোরেশনে তাদের ভবনের অনুমোদন, নকশা, ফায়ার সেফটি, বিল্ডিং সেফটির অনুমোদনের কাগজ জমা দিতে নির্দেশ দিয়েছি। সেগুলো দেখে আমরা মূল্যায়ন করে সিদ্ধান্ত নেবো। এছাড়াও আমাদের ম্যাজিস্ট্রেট ভবনে ভবনে যাবেন। পরিস্থিতি দেখে প্রতিবেদন দেবেন আর সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ দুর্ঘটনার দায় এই ভবনের মালিক এবং অফিসগুলোর কর্তাব্যক্তিদের নিতে হবে জানিয়ে আতিক বলেন, আমাদের যেসব ভাই-বোন এসব অফিসে চাকরি করেন তাদের নিরাপত্তার দায়িত্ব অফিস মালিকদের, ভবন মালিকদের। তারা এই দায় এড়াতে পারেন না। আর আপনারা যারা চাকরি করেন, তাদের প্রতি অনুরোধ, অফিসে প্রবেশের আগে আপনারা দেখুন আপনার অফিসের বিল্ডিং সেফটি আছে কিনা, ফায়ার সেফটি আছে কিনা। যদি না থাকে তাহলে অফিসে প্রবেশ করবেন না।

এসময় গণপূর্ত মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেন, বিভিন্ন সংস্থায় এক শ্রেণীর অসাধু কর্মকর্তা কর্মচারী আছেন, অসাধু ব্যবসায়ী- ভবন মালিক আছেন। তাদের সবার যোগসাজশে এই অনিয়ম হয়। তবে এগুলো আর বরদাশত করা হবে না। প্রধানমন্ত্রীর কঠোর নিরর্দেশনা রয়েছে দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার। এসব ব্যবস্থা আর তদন্ত এবং তদন্ত প্রতিবেদনে সীমাবদ্ধ থাকবে না।

এসময় রাজউক চেয়ারম্যান আব্দুর রহমানসহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও সংস্থার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।





@২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । গ্রামপোস্ট২৪.কম, জিপি টোয়েন্টিফোর মিডিয়া লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।
Design BY MIM HOST